"মুস্তাফিজুর রহমান" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
(Mohammad Elias Hosaen.-এর সম্পাদিত সংস্করণ হতে 180.234.49.253-এর সম্পাদিত সর্বশেষ সংস্করণ...)
}}
 
'''মুস্তাফিজুর রহমান''' ([[জন্ম]]: [[৬ সেপ্টেম্বর]], [[১৯৯৫]]) [[সাতক্ষীরা জেলা|সাতক্ষীরায়]] জন্মগ্রহণকারী [[বাংলাদেশী|বাংলাদেশের]] উদীয়মানতারকা [[ক্রিকেট|ক্রিকেটার]]।<ref>{{cite web|url=http://www.espncricinfo.com/bangladesh/content/player/330902.html|title=Mustafizur Rahman|work=Cricinfo|accessdate=24 April 2015}}</ref><ref>{{cite web|url=http://cricketarchive.com/Archive/Players/1248/1248675/1248675.html|title=The Home of CricketArchive|work=cricketarchive.com|accessdate=24 April 2015}}</ref> [[বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল|বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের]] অন্যতম সদস্য হিসেবে দলে তিনি বাহাতি মিডিয়াম [[বোলিং (ক্রিকেট)|বোলিং]] করে থাকেন। বিশ্বের একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে তিনি তার প্রথম দুই ম্যাচে এগারোটি [[উইকেট]] লাভ করেন।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|title=‘রত্ন’ মুস্তাফিজে বিস্মিত সাকিব|url=http://www.prothom-alo.com/sports/article/558958/%E2%80%98%E0%A6%B0%E0%A6%A4%E0%A7%8D%E0%A6%A8%E2%80%99-%E0%A6%AE%E0%A7%81%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A6%AB%E0%A6%BF%E0%A6%9C%E0%A7%87-%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%AE%E0%A6%BF%E0%A6%A4-%E0%A6%B8%E0%A6%BE%E0%A6%95%E0%A6%BF%E0%A6%AC|accessdate=জুন ২১, ২০১৫|agency=প্রথম আলো|publisher= shahriar |date=২২:০৬, জুন ২১, ২০১৫}}</ref> ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে আবাহনী লিমিটেড, খুলনা বিভাগের প্রতিনিধিত্ব করছেন তিনি। এছাড়া ২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত আইপিএলে তিনি "সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ" দলে খেলছেন । আর ইংল্যান্ডের সাসেক্সের হয়ে খেলার জন্য ইতিমধ্যে তিনি দেশ ছেড়েছেন।
 
[[আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল|আইসিসি]] ঘোষিত ২০১৫ সালে আইসিসি বর্ষসেরা দলে অন্তর্ভুক্ত হন।<ref>http://www.espncricinfo.com/bangladesh/content/story/947671.html</ref>
এর দুইমাস পর ১৯ জুন, ২০১৫ তারিখে সফরকারী [[ভারত জাতীয় ক্রিকেট দল|ভারতীয় জাতীয় ক্রিকেট দলের]] বিপক্ষে তার [[একদিনের আন্তর্জাতিক|একদিনের আন্তর্জাতিকে]] অভিষেক ঘটে। অভিষেক ম্যাচেই তিনি ৫ [[উইকেট]] লাভ করেন এবং ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হন। তার পরে ২১ জুনেও ভারতের বিপক্ষে ৪৩ রানের বিনিময়ে ৬ উইকেট নিয়ে [[ম্যান অব দ্য ম্যাচ|ম্যাচ সেরা]] হন। জীবনের প্রথম দুই ম্যাচে ১১ উইকেট নিয়ে তিনি [[বিশ্বরেকর্ড]] গড়েন৷ [[ব্রায়ান ভিটোরি|ব্রায়ান ভিটোরি’র]] পর দ্বিতীয় বোলার হিসেবে প্রথম দুইটি ওডিআইয়ে পাঁচ-উইকেট লাভের বিরল কীর্তিগাথা রচনা করেন মুস্তাফিজুর।
 
মুস্তাফিজুর তার প্রথম দুইটি ওডিআইয়ে ৫/৫০ ও ৬/৪৩ লাভ করেন। তার এ ক্রীড়ানৈপুণ্যে ওডিআইয়ের ইতিহাসেব যে-কোন বোলারের তুলনায় সেরা। তার এ অসম্ভব বোলিংয়ের ফলে ২০১১ সালে জিম্বাবুয়ের ব্রায়ান ভিটোরি’র বাংলাদেশের বিপক্ষে ৫/৩০ ও ৫/২০ ম্লান হয়ে যায়। ভারতকে তিনি তৃতীয়বার ২০০ বা তার নিচে রান তুলতে বাধ্য করান। এরফলে বাংলাদেশ পঞ্চমবারের মতো ভারতের বিপক্ষে জয় পায়। এ জয়ে বাংলাদেশ [[আইসিসি ওডিআই চ্যাম্পিয়নশীপ|আইসিসি র‌্যাঙ্কিংয়ে]] ৯৩ পয়েন্ট নিয়ে ৭ম স্থানে উত্তরণ ঘটায়। দ্বিতীয় ওডিআইয়ে মুস্তাফিজুরের ৬/৪৩ বোলিং পরিসংখ্যান বাংলাদেশী বোলারদের মধ্যে তৃতীয় সেরা। তার পূর্বে [[মাশরাফি বিন মর্তুজা]] ৬/২৬ (ব কেনিয়া, ২০০৬) ও [[রুবেল হোসেন]] ৬/২৬ (ব নিউজিল্যান্ড, ২০১৩) রয়েছেন।<ref name="bvi">{{cite news|first=Bishen |last=Jeswant|title =Mustafizur's record-breaking ODI genesis, Bangladesh v India, 2nd ODI, Mirpur | url=http://www.espncricinfo.com/bangladesh-v-india-2015/content/story/890051.html |date =2015-6-24 |accessdate = 2015-6-21|publisher= [[Cricinfo]]}}</ref>
 
== সম্মাননা ==
বেনামী ব্যবহারকারী