"ফরিদপুর ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

(পরিমার্জন)
 
== ইতিহাস ==
২০০৫ সালে বাংলাদেশ সরকারের নিজস্ব অর্থায়নে এবং শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের বাস্তবায়নে ৫৩ কোটি টাকা ব্যায়ে ফরিদপুর শহরতলীর বায়তুল আমান এলাকায় ৫ একর জমির উপর ফরিদপুর ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের নির্মাণ কাজ শুরু হয় ও ২০১০ সালের দিকে কাজ শেষ হয়। <ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|title=উদ্বোধনের অপেক্ষায় ফরিদপুর ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ|url=http://www.jugantor.com/bangla-face/2013/09/28/31277|accessdate=৩১ জুলাই ২০১৫|date=২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৩|publisher=[[দৈনিক যুগান্তর]]}}</ref> ঐ বছরই শিক্ষাকার্যক্রম শুরু করার থাকলেও বিদ্যুৎ ও পানি সংযোগের জটিলতার কারণে পরবর্তী তিন বছরে কর্তৃপক্ষ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজটি চালু করতে পারেনি। অবশেষে ২০১৩-২০১৪ শিক্ষাবর্ষে সালে কলেজে ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়। ফরিদপুর ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে [[তড়িৎ প্রকৌশল]] (ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক), [[পুরকৌশল]] (সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং) ও [[কম্পিউটার প্রকৌশল]](কম্পিউটার ও কমুনিকেশন প্রকৌশল]]) এই ৩টি প্রযুক্তি বিভাগে পড়ানোর কথা থাকলেও, প্রাথমিক ভাবে [[তড়িৎ প্রকৌশল]] ও পুরকৌশল বিভাগের কার্যক্রম শুরু হয় ও এবং প্রথম বছর ৬০ জন করে দুই বিভাগে ১২০ জন ভর্তি করা হয়।পর্যায়ক্রমে ২০১৪-১৫ সেশনে ১২০ জন ভর্তি করা হয়। ২০১৫-১৬ সেশনে ভর্তি কার্যক্রম চলছে।
 
== ক্যাম্পাস ==
বেনামী ব্যবহারকারী