"বালুচরী শাড়ি" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
'''বালুচরী''' পশ্চিমবঙ্গের প্রসিদ্ধ শাড়ি, ভারতের ভৌগোলিক স্বীকৃতি এবং বয়নশৈলীতে জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত শিল্পকর্ম৷ আঁচলে বিবিধ পৌরাণিক ও অন্যান্য নকশা-বোনা এই শাড়ি আভিজাত্যের প্রতীক হিসাবে গণ্য৷ বালুচরী শাড়ি তৈরিতে মোটামুটি ১ সপ্তাহ ও তার বেশি সময় লাগে ।<ref>{{cite news|last=BALASUBRAMANIAM|first=CHITRA|title=Recreating the age-old Baluchari magic|url=http://www.thehindu.com/arts/magazine/article2795487.ece|accessdate=20 July 2012|newspaper=The Hindu|date=14 January 2012|location=Chennai, India}}</ref>
<ref>{{cite news|last=Mookerji|first=Madhumita|title=Baluchari silk loses its sheen to Benarasi|url=http://www.dnaindia.com/india/report_baluchari-silk-loses-its-sheen-to-benarasi_1121911|accessdate=20 July 2012|newspaper=DNA}}</ref> এই শাড়ি ভারতের ভৌগলিক অস্তিত্বের ইঙ্গিত দেয় । <ref>{{cite web|title=Journal 41 GI Application 173|url=http://ipindia.nic.in/girindia/journal/Journal_41.pdf|publisher=Controller General of Patents, Designs, and Trade Marks, Government of India|accessdate=11 January 2013}}</ref>
 
== ইতিহাস ==
== প্রকার ==
 
রেশম বালুচরীতে নিত্য নতুন পরীক্ষা-নিরীক্ষার ফলে তৈরি হয়েছে অনেক ধরণের শাড়ি৷ এক বা দুই রঙের সাধারণ বালুচরী, রঙে ঝলমল মীনাকরী বালুচরী, গুরুদাস লক্ষ্মণ আবিষ্কৃত স্বর্ণচরী, অমিতাভ পালের সৃষ্টি রূপশালি ও মধুমালতী, অমিত লক্ষ্মণের সৃষ্টি দ্রৌপদীধ্রুপদী বালুচরী ইত্যাদি এর নানা প্রকার৷<ref>[http://www.anandabazar.com/district/purolia-birvhum-bankura/প-জ-র-ব-জ-র-নত-ন-ব-ল-চর-স-বর-ণচর-1.222830 পুজোর বাজারে নতুন বালুচরী, স্বর্ণচরী], আনন্দবাজার পত্রিকা, ১৪ অক্টোবর, ২০১৫</ref>
 
== ভবিষ্যৎ ==
১,২৪৪টি

সম্পাদনা