প্রধান মেনু খুলুন

পরিবর্তনসমূহ

 
==শেষ জীবনে অশ্বত্থামা==
[[অর্জুন]] দ্বারা [[কর্ণ]] এর মৃত্যুর পরে [[দুর্যোধন]] অশ্বত্থামাকে সেনাপতি নিয়োগ করেন। কুরুক্ষেত্র যুদ্ধ এ যখন [[দুর্যোধন]] সহ কৌরবদের সবাই মারা যায় তখন শেষ সময় এ এসে অশ্বত্থামা [[দুর্যোধন]]কে বলেন কি করলে [[দুর্যোধন]] মৃত্যু কালে খুশিতে মৃত্যু বরণ করতে পারবেন। আর তার উত্তরে [[দুর্যোধন]] বলেন তিনি পাণ্ডবদের বংশকে নিঃচিহ্ন করে দেখতে চান। তার মিত্রের কথা রক্ষার জন্য অশ্বত্থামা সাথে সাথে পাণ্ডবদের শিবিরে গমন করেন। আর প্রথমে ধৃষ্টদ্যুম্ন কে দেখা মাত্র তাকে হত্যা করেন। তারপরে অশ্বত্থামা দ্রৌপদীর পুত্রদের, শিখণ্ডী ও অন্যান্য পাণ্ডব বীরদের হত্যা করেন। উল্লেখ্য, এই সময় পঞ্চপাণ্ডব, কৃষ্ণ গঙ্গাতীরে অবস্থান করছিলেন। তারপরে অশ্বত্থামা ব্রহ্মশির অস্ত্র প্রয়োগ করলে সেটা গিয়ে উত্তরার গর্ভে থাকেথাকা সন্তান এর উপর গিয়ে পড়ে। অশ্বত্থামা এর এইরুপ কাজ থেকে [[শ্রীকৃষ্ণ]] তাকে এইরুপ অভিশাপ দেন যে কখনো অশ্বত্থামার মৃত্যু হবে না। অশ্বত্থামা চাইলেও কোনদিন মৃত্যুবরণ করতে পারবেন না। আজীবন অমর থাকবে। <ref>যুদ্ধশেষ</ref>
 
== তথ্যসূত্র ==
বেনামী ব্যবহারকারী