"অর্জুন" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

==বিয়ে==
[[অর্জুন]] ও তার চার ভাই তাদের মাতার সাথে বনবাসে গেলে সেখানে তারা ঘটনাক্রমে দ্রৌপদ রাজার একমাত্র কন্যা [[দ্রৌপদী|দ্রৌপদীর ]] স্বয়ম্বরসভায় ছদ্মবেশে উপস্থিত হন। আর সেখানে অন্য সব রাজকুমারদের সাথে [[দুর্যোধন]], তার মামা শকুনি এবং [[কর্ণ]] উপস্থিত থাকেন। সেখানে দ্রৌপদ রাজার এক অন্য রকম স্বয়ম্বরসভার আয়োজন করেন। আর সেটা বলেন তার একমাত্র পুত্র ধৃষ্টদ্যুম্ন। আর সেই নিয়ম হল চক্রমধ্য-মৎস্যকে বিদ্ধ করতে হবে। সেখানে যে ধনুক ছিল তার ভার বহন করা এত সম্ভব ছিল না। তাদের মধ্যে [[কর্ণ]] সেই ধনুক উঠাতে পারতেন। কিন্থু [[দ্রৌপদী]] কোন সুত পুত্রকে বিবাহ করবেন না বলে জানান। আর সেই কারনে [[কর্ণ]] এই ধনুক উঠালেন না। তারপরে [[শ্রীকৃষ্ণ]] এর অনুরোধে থাকা সেখানে ব্রাক্ষ্মনদের সেই ধনুক উঠানোর জন্য অনুরোধ করেন ধৃষ্টদ্যুম্ন। আর তখন ছদ্মবেশে থাকে [[অর্জুন]] সেই চক্রমধ্য-মৎস্যকে বিদ্ধ করতে সক্ষম হন এবং পরে [[দ্রৌপদী|দ্রৌপদীকে]] বিয়ে করেন। কিন্তু পরে তারা পাঁচ ভাই একসাথে এলে তাদের মাতা [[কুন্তি]] তখন ধ্যানে ছিলেন। আর তখন [[ভীম]] বলেন তারা কি এনেছেন। [[কুন্তি]] কিছু না দেখে বলেন '''যা এনেছো তা তোমরা পাঁচ ভাই মিলে ভাগ করে নাও'''। তার এই কথার সাথে শেষ পর্যন্ত মহামুনি ব্যাসদেব এর কথা অনুসারে তারা পাঁচ ভাই মিলে [[দ্রৌপদী|দ্রৌপদীকে ]] বিয়ে করেন। পরে [[নারদ]] আরো একটা সমাধান করে দেন, আর তা হল [[দ্রৌপদী]] যে সময়ে এক ভ্রাতার সঙ্গে থাকছেন, সেই সময় অন্য কোনও ভ্রাতা তাঁদের শয়ন-গৃহে প্রবেশ করতে পারবেন না। তারপরেও অবশ্য [[অর্জুন]] আরও তিনজনকে বিবাহ করেছিলেন। এঁরা হলেন - কৌরব্যনাগের কন্যা উলুপী (ইনি পূর্ব-বিবাহিতা ছিলেন), মণিপুররাজ চিত্রবাহনের কন্যা চিত্রাঙ্গদা এবং কৃষ্ণ ভগিনী সুভদ্রা। তার চার পুত্রের নাম হল শ্রুতকীর্তি (কৃষ্ণার গর্ভজাত), ইরাবান্ (উলুপীর গর্ভজাত), বভ্রুবাহন (চিত্রাঙ্গদার গর্ভজাত) ও [[অভিমন্যু]] (সুভদ্রার গর্ভজাত)।<ref>অভিমন্যু</ref>
 
==বনবাস==
পাণ্ডবগণ তাদের নতুন রাজ্যে অশ্বমেধ যজ্ঞের আয়োজন করলে সেখান থেকে মামা শকুনির পরামশে [[তক্ষক]] নাগ পাণ্ডবদের সকল অশ্ব নিয়ে পালিয়ে যায়।
৫২৩টি

সম্পাদনা