অম্ল: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে
সম্পাদনা সারাংশ নেই
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে)
প্রতিস্থাপনীয় হাইড্রোজেন পরমাণু থাকে এবং ঐ প্রতিস্থাপনীয়
হাইড্রোজেনকে ধাতু বা যৌগমূলক দ্বারা আংশিক বা সম্পূর্ণরূপে প্রতিস্থাপিত করা যায় এবং যা ক্ষারকের সাথে প্রশমন বিক্রিয়া করে লবণ ও পানি
উৎপন্ন করে তাকে অম্ল বা এসিড (Acid) বলে।'' Acid শব্দটির উৎপত্তি এসিডাস (Acidus) কিংবা এসিয়ার হতে ; যার অর্থ টক।টক স্বাদযুক্ত সব বস্তুর মধ্যে এসিড থাকে। তেঁতুল, লেবু প্রভৃতিতে জৈব এসিড বিদ্যমান। এসকল এসিড অতি অল্প পরিমাণে থাকে বলে ক্ষতিকারক নয়। কিন্তু পরীক্ষাগারে ব্যবহৃত এসিড (যেমন : হাইড্রোক্লোরিক এসিড, সালফিউরিক এসিড ইত্যাদি।) অত্যন্ত তীব্র। এগুলোকে অজৈব বা খনিজ এসিড বলে।
 
== এসিড চেনার পদ্ধতি ও শনাক্তকরণ==
 
জোহানেস ব্রনস্টেড (১৮৭৯-১৯৪৭) ও থমাস লাওরি ( ১৮৭৪-১৯৩৬) ১৯২৩ সালে ডেনমার্ক ও ইউকে -তে বসে অম্ল ও ক্ষারক সর্ম্পকে মতবাদ পোষণ করেন। তাদের মতে
এসিড হল এমন একটি অণু যা রাসায়নিক বিক্রিয়ায় প্রোটন ( হাইড্রোজেন H+) দান করতে সক্ষম এবং ক্ষারক হল এমন একটি অণু যা রাসায়নিক বিক্রিয়ায় প্রোটন গ্রহণ করে। সাধারণভাবে বলা যায় যে, অম্ল হল প্রোটন দাতা ও ক্ষারক হল প্রোটন গ্রহীতা।
 
 
===== এসিডের উদাহরণ =====
| উদাহরণ || উদাহরণ
|}
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
তথ্যসূত্র :
<ref>১। উচ্চ মাধ্যমিক রসায়ন প্রথম পত্র - হাজারী ও নাগ। </ref>
<references/>
 
১,৯৬,০১৪টি

সম্পাদনা