"ইউনিকোড" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

→‎ইউনিকোডের গঠন ইউনিকোড কী?: হুবহু প্রতিলিপিকৃত তথ্য বাদ দিয়েছি । নতুন তথ্য য‌োগ করলাম ।
(সঠিক স্থানে ট্যাগটিকে সরালাম ।)
(→‎ইউনিকোডের গঠন ইউনিকোড কী?: হুবহু প্রতিলিপিকৃত তথ্য বাদ দিয়েছি । নতুন তথ্য য‌োগ করলাম ।)
 
== ইউনিকোডের গঠন<ref>[http://www.unicode.org/standard/WhatIsUnicode.html ইউনিকোড কী?]</ref> ==
বুলীয় বীজগণিতের নিয়মে গণনা করায় কম্পিউটার কেবলমাত্র শূন্য বা ০ বা অফ এবং এক বা ১ বা অন এই দুটি অবস্থা বোঝে । এক-একটি সংখ্যাকে বোঝানোর জন্য কম্পিউটারে ০ এবং ১ এর বিভিন্ন ক্রম ব্যবহার করা হয় । কম্পিউটারে লিপি বা অন্যান্য অক্ষর সংরক্ষিত হয় সেই অক্ষরগুলির প্রতিটির পিছনেজন্য ০ ও ১-এর অদ্বিতীয় একটি করেক্রম দিয়ে<ref>[http://techterms.com/definition/characterencoding Character Encoding]</ref> । একটি বর্ণ সংকেতায়ন ব্যবহ্থা এরূপ একটি অদ্বিতীয় সংখ্যাক্রমের দিয়ে।সঙ্গে ইউনিকোডেরএকটি ক্ষেত্রেঅক্ষরকে সংযুক্ত করে । এই সংখ্যাগুলিকেসমস্ত ক্রমগুলিকে একত্রে বলা হয় ''কোড পয়েন্টকোডস্পেস্''<ref name="glossary">[http://unicode.org/glossary/ ইউনিকোডের পরিভাষা সূচী]</ref> ইউনিকোডএবং আবিষ্কারকোডস্পেসের হওয়ারঅন্তর্ভুক্ত আগেপ্রত্যেকটি ক্রমকে ''ক‌োড পয়েন্ট'' বলা হয়<ref name="glossary"/> । কম্পিউটারে ব্যবহারের জন্য অনেকএকাধিক বর্ণসংকেতায়ন ব্যবস্থা ছিলোরয়েছে । প্রত্যেকটি অক্ষরের জন্য বিভিন্ন বর্ণসংকেতায়ন ব্যবস্থায় ওই অদ্বিতীয় সংখ্যার মান ছিল ভিন্ন হওয়ায় একটিতথ্য বর্ণসংকেতায়নআদানপ্রদানে ব্যবস্থারঅসুবিধা পক্ষেদেখা সবদেয় অক্ষরের সমর্থনইউনিকোড দেয়াপ্রত্যেকটি সম্ভবপরিচিত ছিলোঅক্ষরের না:জন্য যেমন,একটি ইউরোপিয়করে ইউনিয়েনেরইকোডপয়েন্ট অনেকরকমবরাদ্দ বর্ণসংকেতায়নকরে ব্যবস্থারএবং প্রয়োজনপ্রত্যেকটি হতকোডপয়েন্টকে তাদেরএকটি সবঅদ্বিতীয় ভাষাকে[[w:Hexadecimal|ষষ্ঠদশনিধান]] সমর্থনবিশিষ্ট দেয়ারপূর্ণসংখ্য জন্য।দ্বারা এমনকিচিহ্নিত ইংরেজিরকরে মতো একটিইউনিকোডে ভাষারবর্তমানে স্বাভাবিক১১,১৪,১১২ ব্যবহারেরসংখ্যক ক্ষেত্রেওক‌োডপয়েন্ট একটিমাত্ররয়েছে, বর্ণসংকেতায়নযেগুলিকে ব্যবস্থার0<sub>16</sub> দিয়েথেকে অক্ষর,10FFFF<sub>16</sub> বিরামপর্যন্ত চিহ্নসংখ্যগুলি এবংদ্বারা কারিগরিচিহ্নিত অক্ষরগুলিরকরা সমর্থনহয়<ref দেয়াname="glossary"/> সম্ভব হতো না।
{{copypaste | url=http://www.unicode.org/standard/translations/bangla.html | date=জুন ২০১৫}}
বুলীয় বীজগণিতের নিয়মে গণনা করায় কম্পিউটার কেবলমাত্র শূন্য বা ০ বা অফ এবং এক বা ১ বা অন এই দুটি অবস্থা বোঝে । এক-একটি সংখ্যাকে বোঝানোর জন্য কম্পিউটারে ০ এবং ১ এর বিভিন্ন ক্রম ব্যবহার করা হয় । কম্পিউটারে লিপি বা অন্যান্য অক্ষর সংরক্ষিত হয় সেই অক্ষরগুলির প্রতিটির পিছনে একটি করে অদ্বিতীয় সংখ্যা দিয়ে। ইউনিকোডের ক্ষেত্রে এই সংখ্যাগুলিকে বলা হয় ''কোড পয়েন্ট''<ref>[http://unicode.org/glossary/ ইউনিকোডের পরিভাষা সূচী]</ref>। ইউনিকোড আবিষ্কার হওয়ার আগে কম্পিউটারে ব্যবহারের জন্য অনেক বর্ণসংকেতায়ন ব্যবস্থা ছিলো । প্রত্যেকটি অক্ষরের জন্য বিভিন্ন বর্ণসংকেতায়ন ব্যবস্থায় ওই অদ্বিতীয় সংখ্যার মান ছিল ভিন্ন । একটি বর্ণসংকেতায়ন ব্যবস্থার পক্ষে সব অক্ষরের সমর্থন দেয়া সম্ভব ছিলো না: যেমন, ইউরোপিয় ইউনিয়েনেরই অনেকরকম বর্ণসংকেতায়ন ব্যবস্থার প্রয়োজন হত তাদের সব ভাষাকে সমর্থন দেয়ার জন্য। এমনকি ইংরেজির মতো একটি ভাষার স্বাভাবিক ব্যবহারের ক্ষেত্রেও একটিমাত্র বর্ণসংকেতায়ন ব্যবস্থার দিয়ে অক্ষর, বিরাম চিহ্ন এবং কারিগরি অক্ষরগুলির সমর্থন দেয়া সম্ভব হতো না।
 
সবচেয়ে বড় সমস্যা ছিলো যে ঐ লিপিসংকেতগুলি একটি আরেকটির সাথে ঝামেলা করত বা এখনও করে। কারণ দু'টি লিপিসংকেতে দু'টি আলাদা অক্ষরের জন্য একই সংখ্যা ব্যবহার করা হয় অথবা একই অক্ষরের জন্য আলাদা আলাদা সংখ্যা ব্যবহার করা হয়। যার জন্য, যে-কোনো কম্পিউটার (বিশেষ করে সার্ভার)-এ অনেকগুলি লিপিসংকেতের সমর্থনের প্রয়োজন হয়ে দাঁড়ায়; তার পরেও বিভিন্ন লিপিসংকেত বা প্লাটফর্মের ডাটা প্রসেস করার সময় সেটা বিকৃত হয়ে যাবার ভয় থেকেই যায়।
 
ইউনিকোড পৃথিবীর প্রতিটি ভাষার প্রতিটি অক্ষরের জন্য একটি একক সংখ্যা বরাদ্দ করেছে, সেটা যে প্লাটফর্মের জন্যই হোক, যে প্রোগ্রামের জন্যই হোক, আর যে ভাষার জন্যই হোক। ইউনিকোডের এই বৈশিষ্ট্য প্রযুক্তিশিল্পে নেতৃত্ব দিচ্ছে এরকম কোম্পানিগুলি যেমন, Apple, HP, IBM, JustSystem, Microsoft, Oracle, SAP, Sun, Sybase, Unisys সহ অনেকেই গ্রহণ করেছে। আধুনিক বৈশিষ্ট্যের ব্যবহারের জন্য যেমন, XML, Java, ECMAScript (JavaScript), LDAP, CORBA 3.0, WML, ইত্যাদি, ইউনিকোডের প্রয়োজন, এবং এই ইউনিকোডই ISO/IEC 10646-এর প্রয়োগের একমাত্র উপায়। অনেক অপারেটিং সিস্টেমে, নতুন সব ইন্টারনেট ব্রাউজারে এবং এরকম অনেক অ্যাপ্লিকেশনে ইউনিকোডের সমর্থন রয়েছে। ইউনিকোড বৈশিষ্টের উত্থান, একে সমর্থন করে এরকম টুলের উপস্থিতি, বর্তমান বিশ্বের সফটওয়্যার উন্নতির গতির জন্য গুরুত্বপুর্ণ।
 
বিশাল লিপিসংকেতের সমর্থন থাকায় ক্লায়েন্ট সার্ভার বা বহুমুখী এ্যপ্লিকেশন এবং ওয়েবের গঠনে পুরোনো লিপিমালার ব্যবহার না করে ইউনিকোডের ব্যবহার অনেক খরচ কমিয়ে আনতে পারে। ইউনিকোড কোনো বাড়তি প্রকৌশল ছাড়াই একটি সফটওয়্যার বা ওয়েবসাইটকে বিভিন্ন প্লাটফর্ম, ভাষা এবং দেশে ব্যবহারযোগ্যতা দেয়। এটা ব্যবহারের ফলে ডাটা বিভিন্ন সিস্টেমের মধ্যে দিয়ে আনাগোনা করতে পারে কোনো রকম বিকৃতি ছাড়াই।
 
== ইউনিকোডে অন্তর্ভুক্ত লিপিসমূহ ==
৬০টি

সম্পাদনা