"অভিজিৎ রায়" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য যুক্ত।
(বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য যুক্ত।)
| signature =
| signature_alt =
| website = http://www.mukto-mona.com/
| portaldisp =
}}
'''অভিজিৎ রায়''' (১২ সেপ্টেম্বর ১৯৭২ - ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৫) একজন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মার্কিন প্রকৌশলী, লেখক ও ব্লগার। তিনি বাংলাদেশের মুক্ত চিন্তার আন্দোলনের সাথে জড়িত ছিলেন। তিনি পেশায় একজন প্রকৌশলী কিন্তু তিনি তার স্ব-প্রতিষ্ঠিত সাইট ''মুক্তমনামুক্তমনায়''য় লেখালেখির জন্য পরিচিত। ২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে একুশে বইমেলা থেকে বেরোনোর সময় সন্ত্রাসীরা তাকে হত্যা করে ও তার স্ত্রী রাফিদা আহমেদ বন্যাকে আহত করে। <ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি|title=ব্লগার অভিজিৎ​ রায়কে কুপিয়ে হত্যা|url=http://www.prothom-alo.com/bangladesh/article/462685/ব্লগার-অভিজিত-রায়কে-কুপিয়ে-হত্যা |website=http://www.prothom-alo.com|accessdate=26 ফেব্রুয়ারি 2015}}</ref>
 
==পরিবার ও কর্মজীবন==
 
==মৃত্যু==
২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫ রাত্রি ৮:৩০-এ নাগাদ [[অমর একুশে গ্রন্থমেলা|বইমেলা]] থেকে ফেরার পথে [[ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়]] মসজিদের উল্টো দিকের [[সোহরাওয়ার্দী উদ্যান]] সংলগ্ন সড়কে [[সন্ত্রাসবাদ|সন্ত্রাসীদের]] হামলার শিকার হন।<ref name="bdnews24.com">{{cite web|url=http://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article931281.bdnews|title=বইমেলার বাইরে হামলায় লেখক অভিজিৎ নিহত|work=bdnews24.com|accessdate=২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫}}</ref> তাঁর মাথা ও গলায় কোপ মারা হয়। স্ত্রী বন্যা বাধা দিতে গেলে তাঁকেও এলোপাথাড়ি কোপানো হয়। তার পর অস্ত্রগুলি ফেলে রেখেই দুষ্কৃতীরা উধাও হয়ে যায়।
অভিজিৎ ও তাঁর স্ত্রীকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরে কিছুক্ষণের মধ্যেই মারা যান অভিজিৎ।<ref name="bdnews24.com"/> চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, চাপাতির ঘায়ে তাঁর মাথা ঘাড় থেকে প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছিল। অস্ত্রোপচারের তোড়জোড় করতে করতেই সব শেষ হয়ে যায়।
 
==ভবিষ্যৎ ফল==
২৭-এ ফেব্রুয়ারি "আনসারুল্লাহ বাংলা টিম" নামক একটি অন্ধবিশ্বাসী ও উগ্রবাদী সন্ত্রাসবাদী সংস্থা এই হামলাটির দায় নেয়। "আনসারুল্লাহ বাংলা টিম" তাদের [[টুইটার]] পেজের মাধ্যমে অভিজিত রায কে হত্যা করার অভিপ্রায় জানায়।
তাদের কাছ থেকে শুক্রবার, ২৭-এ ফেব্রুয়ারি এই টুইট-টি আসে: "অভিজিত রায় কে ইসলামের বিরুদ্ধে তার অপরাধের জন্যে লক্ষ্যবস্তু করা হল।"<ref name="timesofindia.indiatimes.com">{{cite web|url=http://http://timesofindia.indiatimes.com/world/rest-of-world/US-based-Bangla-blogger-hacked-to-death-in-Dhaka/articleshow/46402996.cms|title=US-based Bangla blogger hacked to death in Dhaka|work=http://timesofindia.indiatimes.com/|accessdate=২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৫}}</ref>
 
==আরও দেখুন==
* [[হুমায়ুন আজাদ]]
 
==তথ্যসূত্র==