"অলিম্পিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

ঔপনিবেশিক রাজনীতি চর্চার বা আদর্শ ধারণের জন্য অলিম্পিক গেমস বহুবার সমালোচিত হয়েছে। অলিম্পিক গেমসের নামে এই ঔপনিবেশিক চর্চাটি সরাসরি আন্তর্যাতিক অলিম্পিক কমিটি অথবা আয়োজনকারী প্রস্তিষ্ঠানসমূহ কিংবা এর পৃষ্ঠপোষকগোষ্ঠী কর্তৃক হয়ে আসছে। বিশেষ করে আয়োজক দেশগুলোর ঔপনিবেশ কালিন নেতিমাচক ভাবমূর্তি তুলে ধরার জন্যও অলিম্পিক গেমসের সমালোচনা হয়ে আসছে। আদিবাসী জনগোষ্ঠীর অগ্রহণযোগ্য আচার আচরণ, ঘুষ প্রদান বা গ্রহণ, সরকারী পৃষ্ঠপোষকতা প্রদান, এমনকি চুরির মত বিষয়েও সমালোচনায় এসেছিল। কিছু কিছু ক্ষেত্রে আদিবাসীদের আক্রমনাক্তক আচার ব্যাবহার,দরিদ্রের প্রতি অবহেলাপূরণ ভাবভঙ্গিকে পরোক্ষ সমর্থন করা হয়েছিল। যার মধ্যে ১৯০৪ সালের সেন্ট লই এর গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক, ১৯৭৬ এর গ্রীষ্মকালীন মন্ট্রিল অলিম্পিক এবং ১৯৮৮ তে ক্যলগেরি,আলবেরতায় অনুষ্ঠিত শীতকালীন অলিম্পিক উল্লেখযোগ্য।
 
== স্বাগতিক দেশ ও শহর নির্বাচন ==
[[File:Summer olympics all cities.PNG|thumb|upright=1.35|গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকের আয়োজক দেশসমূহের মানচিত্র। যেসব দেশ একবার স্বাগতিকের ভূমিকা পালন করেছে তাদের সবুজ, আর যারা দুই বা তার অধিক গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক আয়োজন করেছে তাদের নীল রঙ দ্বারা চিহ্নিত করে হয়েছে।]]
[[File:Winter olympics all cities.PNG|thumb|upright=1.35|শীতকালীন অলিম্পিকের আয়োজক দেশসমূহের মানচিত্র। যেসব দেশ একবার স্বাগতিকের ভূমিকা পালন করেছে তাদের সবুজ, আর যারা দুই বা তার অধিক শীতকালীন অলিম্পিক আয়োজন করেছে তাদের নীল রঙ দ্বারা চিহ্নিত করে হয়েছে।]]
অলিম্পিক গেমস অনুষ্ঠানের প্রায় সাত থেকে আট বছর আগেই স্বাগতিক শহর নির্বাচনের পর্বটি সম্পাদন করা হয়। এই পদ্ধতিটি সাধারণত দুটি ধাপে সম্পন্ন হয়, প্রথমে আগ্রহী শহরগুলো নিজ দেশের জাতীয় অলিম্পিক কমিটির কাছে প্রস্তাব পাঠায়। যদি একাধিক শহর একই সাথে তাদের জাতীয় অলিম্পিক কমিটির কাছে প্রস্তাব পাঠায় সেক্ষেত্রে কমিটি একটি অভ্যন্তরীণ নির্বাচনের মাধ্যমে একটি শহরের প্রস্তাবনা আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির কাছে তুলে ধরে। প্রথম পর্যায়ে প্রস্তাবনার সময়সীমা অতিবাহিত হওয়ার পর সম্ভাব্য স্বাগতিক শহরগুলোকে আয়োজক কমিটির জন্য গুরুত্বপূর্ন এমন বিষয় নিয়ে একটি প্রশ্নপত্র পূরণ করতে হয়। এরপর আবেদনকারীদের অলিম্পিক কমিটিকে এই মর্মে আশ্বস্ত করতে হয় যে তারা অলিম্পিক চার্টারের সমস্ত নিয়ম কানুন মেনে চলবে অতঃপর পরবর্তী ধাপে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি আবেদনকারীদের যোগ্যতা, অবকাঠামো, অর্থনৈতীক সক্ষমতা, রাজনৈতিক ও ভৌগলিক পরিবেশ পরিস্থিতি বিবেচনা করে একটি শহরকে স্বাগতিক শহর হওয়ার সুযোগ করে দেয়।
 
== তথ্যসূত্র ==
{{reflist|3}}