"শতক (ক্রিকেট)" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

(→‎দ্রুততম সেঞ্চুরি: টেস্ট ও ওডিআইয়ের দ্রুততম সেঞ্চুরীর নতুন রেকর্ড)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল অ্যাপ সম্পাদনা
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল অ্যাপ সম্পাদনা
২৩ এপ্রিল, ২০১৩ সালে [[ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল|ওয়েস্ট ইন্ডিজের]] মারকুটে ব্যাটসম্যান [[ক্রিস গেইল]] [[আন্তর্জাতিক ক্রিকেট|আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের]] ৩টি পদ্ধতির (টেস্ট, একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট এবং টুয়েন্টি২০) যে-কোনটিতে দ্রুততম সেঞ্চুরি করেন। [[ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ|ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগের]] টি২০ ম্যাচে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর হয়ে পুনে ওয়ারিয়র্সের বিপক্ষে তিনি মাত্র ৩০ [[বল (ক্রিকেট)|বলে]] এ কীর্তিগাঁথা রচনা করেন।<ref>[http://archive.prothom-alo.com/detail/date/2013-04-23/news/347094 ‘অতিমানবীয়’ গেইল, প্রথম আলো, ২৩ এপ্রিল ২০১৩]</ref> পূর্বতন রেকর্ডটি ছিল অস্ট্রেলিয়ার [[অ্যান্ড্রু সাইমন্ডস|অ্যান্ড্রু সাইমন্ডসের]] ৩৪ বলে। এছাড়াও তিনি [[টুয়েন্টি২০]] ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশী ১১টি সেঞ্চুরি করেন।
 
একদিনের ক্রিকেটের ইতিহাসে দ্রুততম সেঞ্চুরির [[বিশ্বরেকর্ড]] গড়েন [[নিউজিল্যান্ড জাতীয় ক্রিকেট দল|নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের]] অল-রাউন্ডার [[কোরে অ্যান্ডারসন]]। ১ জানুয়ারি, ২০১৪ তারিখে [[কুইন্সটাউন ইভেন্টস সেন্টার]] স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত তৃতীয় ওডিআইয়ে [[ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল|ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের]] বিরুদ্ধে এ রেকর্ড স্থাপন করেন। মাত্র ৩৬ বলে দ্রুততম সেঞ্চুরি করার ফলে তিনি শহীদ আফ্রিদি’র ১৯৯৬ সালে ৩৭ বলের সেঞ্চুরির ১৭ বছরের পুরনো রেকর্ড ভেঙ্গে দেন।<ref>[http://www.abc.net.au/news/2014-01-01/anderson-smashes-odi-century-record/5181234 "Corey Anderson smashes ODI world record bringing up century against West Indies in 36 balls"। ABC Grandstand (Australian Broadcasting Corporation)। 1 January 2014। সংগৃহীত 1 January 2014।]</ref>
 
একদিনের ক্রিকেটের ইতিহাসে দ্রুততম সেঞ্চুরির [[বিশ্বরেকর্ড]] গড়েন [[এবি ডি ভিলিয়ার্স]] ২০১৫ সালে ১৮ জানুয়ারী তিনি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৩১ বলে সেঞ্চুরী করেন এবং [[কোরে অ্যান্ডারসন]] এর করা ৩৬ বলে সেঞ্চুরীর রেকর্ড ভেঙে দেন|
১২৩টি

সম্পাদনা