"নীলদর্পণ" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

নীলদর্পণ নাটকের ইংরেজি অনুবাদ ইংল্যান্ডের পার্লামেন্টে প্রেরিত হয়। স্বদেশে ও বিদেশে নীলকরদের বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু হয়। ফলে সরকার ইন্ডিগো কমিশন বা নীল কমিশন বসাতে বাধ্য হন। আইন করে নীলকরদের বর্বরতা বন্ধের ব্যবস্থা করা হয়। বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় পরবর্তীকালে এই নাটকের সঙ্গে স্টো-এর আঙ্কল টমস কেবিন গ্রন্থের তুলনা করেছিলেন। তা থেকেই বোঝা যায়, সেই সময়কার বাংলা সাহিত্য ও বাঙালির সমাজজীবনে এই নাটক কি গভীর প্রভাব বিস্তার করতে সক্ষম হয়েছিল। সমাজের তৃণমূল স্তরের মানুষজনের জীবনকথা এমনই স্বার্থক ও গভীরভাবে নীলদর্পণ নাটকে প্রতিফলিত হয়েছে যে অনেকেই এই নাটককে বাংলার প্রথম গণনাটক হিসাবে স্বীকার করে নিয়েছিলেন। আবার বিদেশি শক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর কথা বলে এই নাটকই প্রথম জাতির জীবনে জাতীয়তাবোধের সঞ্চার ঘটিয়েছিল।
যদিও সামগ্রিকভাবে এই নাটকের কিছু আঙ্গিকগত ত্রুটিও সমালোচকদের দৃষ্টি এড়ায়নি। যেমন এই নাটকে চরিত্রে অন্তর্দ্বন্দ বড় একটা দৃষ্টিগোচর হয় না। বহির্সংঘাতের আধিপত্যে কোনও চরিত্রই বিকাশশীল হয়ে উঠতে পারেনি। নাট্যকাহিনিতেও যথোপযুক্ত জটিলতা না থাকার কারণে নাটকটি দর্শকমহলে তদনুরূপ আগ্রহ ধরে রাখতে পারেনি। সমাজের নিচু তলার বাসিন্দাদের ছবি এই নাটকে অত্যন্ত জীবন্ত হলেও ভদ্রলোক শ্রেণীর চরিত্রগুলির আচরণ ও সংলাপ এখানে বড় কৃত্রিম। এছাড়াও ট্রাজেডি রচনায় যে সংযম ও বিচক্ষণতা প্রত্যাশিত, দীনবন্ধু তার মাত্রা ছাড়িয়ে গিয়ে আতিশায্যের আশ্রয় নিয়ে ফেলেন। ফলে নাটকের অনেক অংশই মেলোড্রামাটিক বা অতিনাটকীয়তার দোষে দুষ্ট হয়ে পড়ে। যার কারণে যথার্থ ট্র্যাজেডি হিসাবে গণ্য হওয়ার যোগ্যতা হারায় নীলদর্পণ।
 
== চরিত্রসমূহ ==
* গোলক চন্দ্র বসু, একজন সম্ভ্রান্ত লোক
* নবীন মধব, গোলক বসুর বড় ছেলে
* বিন্দু মাধব, গোলক বসুর ছোট ছেলে
* সাধু চরণ, গোলকের প্রতিবেশি রাইয়ত
* রায় চরণ, সাধু চরণের ছোট ভাই
* গোপীনাথ, নীলকরের দেওয়ান)
* তোরাপ, একজন প্রতিবাদী চরিত্র)
* জ়ে জ়ে ঊড, প্রধান নীলকর
* পি পি রোজ, উডের ছেলে
* জমির পরিমাপকারী
* আমিন খালাসী, নীল সংগ্রাহক
* সাবিত্রী, গোলক বসুর স্ত্রী
* সৌরিন্দ্রী, নবীন মাধবের স্ত্রী
* সরলতা, বিন্দু মাধবের স্ত্রী
* রেবতী, সাধু চরণের স্ত্রী
* ক্ষেত্রমনি, সাধুচরণ ও রেবতীর মেয়ে
* আদুরি, গোলকের বাড়ির কাজের মেয়ে
* পদী ময়রানী, বিনোদনকারিনী
 
== তথ্যসূত্র ==