"জ্যোতিপ্রসাদ আগরওয়ালা" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

(বিষয়শ্রেণী:১৯০৩-এ জন্ম যোগ হটক্যাটের মাধ্যমে)
১৯০৩ সনের ৩ জুনে উজনী অসমের ডিব্রুগড় জিলার অন্তর্গত তামোলবারী ছা্হ বাগিচায় জ্যোতিপ্রসাদ আগরয়ালার জন্ম হয়েছিল। জ্যোতিপ্রসাদ আগরয়ালার পিতার নাম পরমানন্দ আগরয়ালা ও মাতার নাম কিরনময়ী আগরয়ালা। চন্দ্রকুমার আগরয়ালা সমন্ধে কাকা ছিলেন। আগরয়ালার পুর্বপুরুষ নবরংগরাম ১৮১১ সনে রাজস্থান থেকে অসমে এসেছিলেন।
==শিক্ষা==
অসম ও কলকতার বিভিন্ন স্থানের থেকে শিখ্ষাশিক্ষা লাভ করার পর ১৯২১ সনে দ্বিতীয় বিভাগে মেট্রিকুলেশনে উর্ত্তীন হন। ১৯২৬ সনে জ্যোতিপ্রসাদে অর্থনীতিতে উচ্চ শিখ্ষারশিক্ষার জন্য এডিনবার্গে যান কিন্তু ১৯৩০ সনে শিখ্ষাশিক্ষা শেষ না করে তিনি অসমে ঘুড়ে আসেন। ফিরে আসার পথে তিনি জার্মানী থেকে চলচিত্র নির্মানের প্রশিখ্ষনপ্রশিক্ষন নিয়েছিলেন।
 
==অন্যান্য==
শিখ্ষা ত্যাগ করে অসম আসার পর জ্যোতিপ্রসাদ আগরয়ালা ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনে যোগদান করেন। ১৯৩২ সনে তিনি স্বাধীনতা সংগ্রামের জন্য ১৫ মাসের জন্য কারাবাসে থাকেন। শিলচর জেলে তিনি টাইফয়েড জ্বরে আক্রান্ত থাকা অবস্থায় তিনি কারাবাস পূর্ন করেন। ১৯৩৩ সনে জ্যোতিপ্রসাদ ভোলাগুরি চাহ বাগিচায় চিত্রবন স্থাপন করেন ও প্রথম অসমীয়া চলচিত্র “জয়মতীর” সম্পাদনার কাজ আরম্ভ করেন। ১৯৩৫ সনে লখ্ষীনাথ বেজবরুয়ার কাহিনীর উপড়ে আধারিত অসমীয়া প্রথম চলচিত্র “জয়মতী” মুক্তি পায়। জয়মতী চলচিত্র থেকে হওয়া বানিজ্যিক লোকসানের ধন আদায় করার জন্য তিনি ১৯৩৯ সনে দ্বিতীয় অসমীয়া চলচিত্র “ইন্দ্রমালতী” নির্মান করেছিলেন। ১৯৪১ সনে জ্যোতিপ্রসাদ আগরয়ালা পুনরায় স্বাধীনতা সংগ্রামে অংশগ্র্ন করেন।