"টিম ব্রেসনান" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

প্রারম্ভিক জীবন
(খেলোয়াড়ী জীবন)
(প্রারম্ভিক জীবন)
}}
'''টিমোথি টিম থমাস ব্রেসনান''' ([[জন্ম]]: [[২৮ ফেব্রুয়ারি]], [[১৯৮৫]]) একজন [[ইংল্যান্ড|ইংরেজ]] [[ক্রিকেটার]]।<ref name="YB">{{cite book |title=The Yorkshire County Cricket Club: 2011 Yearbook |last=Warner |first=David |year=2011 |edition=113th |publisher=Great Northern Books |location=Ilkley, Yorkshire |isbn=978-1-905080-85-4 |page=365 |url= |accessdate=3 May 2011}}</ref> [[ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল|ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের]] অন্যতম সদস্য ব্রেসনান ফাস্ট-মিডিয়াম বোলিং করেন। পাশাপাশি [[ব্যাটিং (ক্রিকেট)|ব্যাটিংয়েও]] তিনি তার সামর্থ্যতা যথাসাধ্য প্রদর্শন করে থাকেন। কাউন্টি ক্রিকেটে [[Yorkshire County Cricket Club|ইয়র্কশায়ারের]] পক্ষাবলম্বন করে মাঠেন নামেন। সাধারণতঃ তিনি ডিপ অঞ্চলে ফিল্ডিং করেন। ২০০২ ও ২০০৩ সালে [[NBC Denis Compton Award|এনবিসি ডেনিস কম্পটন পুরস্কার]] লাভ করেন।
 
== প্রারম্ভিক জীবন ==
রে এবং জুলি দম্পতির সন্তান হিসেবে ব্রেসনান জন্মগ্রহণ করেন। ক্যাসলফোর্ড হাই স্কুল টেকনোলজি এন্ড স্পোর্টস কলেজে পড়াশোনা শেষে পন্টেফ্রাক্টের নিউ কলেজে অধ্যয়ন করেন। টাউনভিল ক্রিকেট ক্লাবের জুনিয়র ক্রিকেটের মাধ্যমে তার খেলোয়াড়ী জীবনের সূত্রপাত ঘটে। এ ক্লাবেই তার বাবা, ভাতৃদ্বয় - নিক এবং রিচি ক্রিকেট খেলেছিলেন। তারপর তিনি ক্যাসলফোর্ড ক্রিকেট ক্লাবে স্থানান্তরিত হন ও ইয়র্কশায়ারে স্থায়ীভাবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি [[লিডস ইউনাইটেড এসোসিয়েশন ফুটবল ক্লাব|লিডস ইউনাইটেড ফুটবল ক্লাবের]] একনিষ্ঠ [[সমর্থক]]।
 
== খেলোয়াড়ী জীবন ==
জুন, ২০০৬ সালে তিনি ইংল্যান্ডের [[একদিনের আন্তর্জাতিক]] দলে খেলার জন্য আমন্ত্রিত হন ও আয়ারল্যান্ড এবং শ্রীলঙ্কা সফরে যান। ১৫ জুন, ২০০৬ তারিখে [[টুয়েন্টি২০]] ক্রিকেটে [[Rose Bowl, Hampshire|রোজ বোলে]] অনুষ্ঠিত শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে অভিষেক ঘটে তার। খেলায় তিনি ৬ রানে অপরাজিত ছিলেন ও ২ ওভারে ২০ রান দেন। দুইদিন পর [[লর্ড’স ক্রিকেট গ্রাউন্ড|লর্ডসে]] অনুষ্ঠিত একদিনের আন্তর্জাতিকে একই দলের বিপক্ষে ৯ ওভারে ৪৪ রান দিয়ে ১ উইকেট লাভ করেন। খেলায় তার দল ২০ রানের ব্যবধানে পরাজিত হয়।
জুন, ২০০৬ সালে তিনি ইংল্যান্ডের [[একদিনের আন্তর্জাতিক]] দলে খেলার জন্য আমন্ত্রিত হন। এরপর মে, ২০০৯ সালে [[টেস্ট ক্রিকেট|টেস্ট দলের]] সদস্যরূপে অন্তর্ভূক্ত হন। [[২০১০-১১ অ্যাশেজ সিরিজ|২০১০-১১]] মৌসুমে অনুষ্ঠিত [[দি অ্যাশেজ|অ্যাশেজ]] সিরিজে দলের সদস্য হিসেবে মনোনীত হন। [[মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ড|এমসিজিতে]] অনুষ্ঠিত [[বক্সিং ডে]] [[বক্সিং ডে টেস্ট|টেস্টে]] ৬ [[উইকেট]] লাভ করেন। তন্মধ্যে শেষ উইকেটটি দখল করে ইংল্যান্ডকে বিজয়ে নিয়ে যান ও ইংল্যান্ড অ্যাশেজ [[ট্রফি]] ফিরে পায়। এ সময়ে ইংল্যান্ড একটিমাত্র টেস্টে পরাজিত হয়। ২০০৯ থেকে ২০১২ সালের মধ্যে প্রথম ১৩ টেস্টে জয়ী হয়, ১৪তম টেস্ট ড্র এবং পরেরটি [[দক্ষিণ আফ্রিকা জাতীয় ক্রিকেট দল|দক্ষিণ আফ্রিকা দলের]] কাছে ১৯ জুলাই, ২০১২ তারিখে পরাভূত হয়েছিল।<ref>{{cite web|url=http://stats.espncricinfo.com/ci/engine/player/9310.html?class=1;template=results;type=allround;view=results|title=Statistics: TT Bresnan |publisher=Cricinfo |accessdate=8 April 2012}}</ref><ref>[http://www.bbc.co.uk/sport/0/hi/english/static/cricket/statistics/scorecards/2012/07/87008/html/scorecard.stm;class=1;template=results;type=allround;view=results]{{dead link|date=June 2013}}</ref>
 
জুন,এরপর ২০০৬২৯ সালেএপ্রিল, তিনি২০০৯ ইংল্যান্ডেরতারিখে [[একদিনেরটেস্ট আন্তর্জাতিকক্রিকেট|টেস্ট দলের]] সদস্যরূপে অন্তর্ভূক্ত করা হয়। ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে খেলারবিপক্ষে জন্যআঘাতপ্রাপ্ত আমন্ত্রিতঅ্যান্ড্রু হন।ফ্লিনটসের এরপরবিপরীতে মে,তার ২০০৯এ অন্তর্ভূক্তি। এক সপ্তাহ পর সালেলর্ডসে [[টেস্টGraham ক্রিকেটOnions|গ্রাহাম অনিয়ন্সের]] সাথে তারও টেস্ট দলেরঅভিষেক ঘটে। খেলায় তিনি ৯ রান সংগ্রহ করেছিলেন ও কোন উইকেট লাভ করতে সক্ষমতা দেখাতে পারেননি। দ্বিতীয় খেলায় [[Brendan Nash|ব্রেন্ডন ন্যাশকে]] সদস্যরূপেআউট অন্তর্ভূক্তকরার হন।মাধ্যমে তিনি তার প্রথম উইকেট লাভ করেন।<ref>{{cite web |url=http://content.cricinfo.com/engvwi2009/content/current/story/404858.html |title=Bresnan and Anderson swing through Windies |last=Miller |first=Andrew |date=18 May 2009 |publisher=Cricinfo |accessdate=18 May 2009}}</ref> পরের বলেই [[দীনেশ রামদিন|দীনেশ রামদিনকে]] আউট করেন। খেলায় তিনি তিন উইকেট লাভ করেন। [[২০১০-১১ অ্যাশেজ সিরিজ|২০১০-১১]] মৌসুমে অনুষ্ঠিত [[দি অ্যাশেজ|অ্যাশেজ]] সিরিজে দলের সদস্য হিসেবে মনোনীত হন। [[মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ড|এমসিজিতে]] অনুষ্ঠিত [[বক্সিং ডে]] [[বক্সিং ডে টেস্ট|টেস্টে]] ৬ [[উইকেট]] লাভ করেন। তন্মধ্যে শেষ উইকেটটি দখল করে ইংল্যান্ডকে বিজয়ে নিয়ে যান ও ইংল্যান্ড অ্যাশেজ [[ট্রফি]] ফিরে পায়। এ সময়ে ইংল্যান্ড একটিমাত্র টেস্টে পরাজিত হয়। ২০০৯ থেকে ২০১২ সালের মধ্যে প্রথম ১৩ টেস্টে জয়ী হয়, ১৪তম টেস্ট ড্র এবং পরেরটি [[দক্ষিণ আফ্রিকা জাতীয় ক্রিকেট দল|দক্ষিণ আফ্রিকা দলের]] কাছে ১৯ জুলাই, ২০১২ তারিখে পরাভূত হয়েছিল।<ref>{{cite web|url=http://stats.espncricinfo.com/ci/engine/player/9310.html?class=1;template=results;type=allround;view=results|title=Statistics: TT Bresnan |publisher=Cricinfo |accessdate=8 April 2012}}</ref><ref>[http://www.bbc.co.uk/sport/0/hi/english/static/cricket/statistics/scorecards/2012/07/87008/html/scorecard.stm;class=1;template=results;type=allround;view=results]{{dead link|date=June 2013}}</ref>
 
== তথ্যসূত্র ==
[[বিষয়শ্রেণী:ইয়র্কশায়ারের ক্রিকেটার]]
[[বিষয়শ্রেণী:২০১১ ক্রিকেট বিশ্বকাপের ক্রিকেটার]]
[[বিষয়শ্রেণী:মেরিলেবোন ক্রিকেট ক্লাবের ক্রিকেটার]]
[[বিষয়শ্রেণী:উইজডেন বর্ষসেরা ক্রিকেটার]]
[[বিষয়শ্রেণী:মেরিলেবোন ক্রিকেট ক্লাবের ক্রিকেটার]]
[[বিষয়শ্রেণী:পন্টেফ্রাক্টের ব্যক্তিত্ব]]
৭৩,৩২০টি

সম্পাদনা