"পিটার সিমোন পালাস" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে, কোন সমস্যা?
(বট কসমেটিক পরিবর্তন করছে; কোনো সমস্যা?)
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে, কোন সমস্যা?)
পালাস অবশেষে সেন্ট পিটার্সবুর্গে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন। তিনি শিঘ্রীই সম্রাজ্ঞী দ্বিতীয় ক্যাথরিনের প্রিয়পাত্রে পরিণত হন এবং গ্র্যান্ড ডিউক আলেক্সান্ডার আর কন্সটানটাইনকে প্রাকৃতিক ইতিহাস সম্পর্কে পড়ানো শুরু করেন। তৎকালীন প্রথিতযশা প্রকৃতিবিদদের সংগ্রহ করা উদ্ভিদের নমুনা থেকে ১৭৮৪ থেকে ১৮১৫ সালের মধ্যে তিনি রচনা করেন ''Flora Rossica''। ''Zoographica Rosso-Asiatica'' (১৮১১-৩১) নামে আরেকটি গ্রন্থ রচনার কাজে হাত দেন তিনি। [[ইয়োহান আন্টন গুল্ডেনস্টাট|ইয়োহান আন্টন গুল্ডেনস্টাটের]] [[ককেশাস পর্বতমালা|ককেশাস পর্বতমালায়]] ভ্রমণকাহিনীগুলো তিনি প্রকাশ করেন। পরবর্তীতে তিনি [[মুলোভস্কি অভিযান|মুলোভস্কি অভিযানের]] পরিকল্পনা করেন, কিন্তু [[রুশ-তুর্কি যুদ্ধ|রুশ-তুর্কি যুদ্ধের]] কারণে ১৭৮৭ সালের অক্টোবর মাসে তাঁর এ পরিকল্পনা ভেস্তে যায়। সম্রাজ্ঞী ক্যাথরিন পরে পালাসের বিশাল সংগ্রহ দুই হাজার রুবলে কিনে নেন। পালাসের দাবি থেকে ৫০০ রুবল বেশিই দেন তিনি। শর্ত থাকে যে মৃত্যু পর্যন্ত এসব নমুনা পালাসের কাছেই থাকবে।
 
১৭৯৩ থেকে ১৭৯৪ সালের মধ্যে পালাস পু্নরায় দক্ষিণ রাশিয়া অভিযানে যান। এসময় তিনি [[ক্রিমিয়া]] ও [[কৃষ্ণ সাগর]] চষে বেড়ান। তাঁর সহযোগী ছিলেন তাঁর প্রথম পক্ষের কন্যা, দ্বিতীয়া স্ত্রী (তাঁর প্রথম পক্ষের স্ত্রী ১৭৮২ সালে মারা যান), একজন চিত্রকর, চাকর-বাকর ও তাঁদের পাহারাদার সেনাবাহিনীর সদস্যগণ। ১৭৯৩ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে তাঁরা [[সারাটভ]] পৌঁছান এবং [[ভোলগাগ্রাদ|ভোলগাগ্রাদের]] ভাটির দিকে যাত্রা শুরু করেন। পুরো বসন্তটা তাঁরা রাশিয়ার পূর্বাঞ্চল ভ্রমণে কাটিয়ে দেন এবং আগস্টের দিকে তাঁরা [[কাস্পিয়ান সাগর|কাস্পিয়ান সাগরের]] তীর ও [[ককেশাস পর্বতমালা|ককেশাস পর্বতমালায়]] নমুনা খুঁজতে শুরু করেন।
 
{{Commons|Peter Simon Pallas|পিটার সিমোন পালাস}}
| PLACE OF DEATH = Berlin
}}
 
[[বিষয়শ্রেণী:পক্ষীবিদ]]
 
১,৮৫,২০১টি

সম্পাদনা