"অতীন্দ্রিয় উপলব্ধি" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে, কোন সমস্যা?
(বট কসমেটিক পরিবর্তন করছে; কোনো সমস্যা?)
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে, কোন সমস্যা?)
[[চিত্র:Cartas Zener.svg|thumb|জেনার কার্ড, বিংশ শতাব্দীর প্রথম দিকে অতিইন্দ্রিয় উপলব্ধি সংক্রান্ত পরীক্ষামূলক গবেষণায় ব্যবহৃত বিশেষ কার্ড।]]
'''অতীন্দ্রিয় উপলব্ধি''' ([[ইংরেজী|ইংরেজীতে]]: Extrasensory perception) বলতে বোঝায় মনের বিশেষ ক্ষমতার মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ। এক্ষেত্রে স্বভাবিকভাবে শারীরিক কোন উপায়ে তথ্য লাভ করা হয় না। পরিভাষাটি সর্বপ্রথম ব্যবহার করেন স্যর রিচার্ড বার্টন, [[ডিউক ইউনিভার্সিটি|ডিউক ইউনিভার্সিটির]] মনোবিজ্ঞানী জে. বি. রাইন বিভিন্ন আধ্যাত্মিক ক্ষমতাকে ব্যাখ্যা করার জন্য অতিইন্দ্রিয় উপলব্ধিকে ব্যবহার করেন। অতিইন্দিয় উপলব্ধিকে অনেক সময় ষষ্ঠ ইন্দ্রিয় নামেও অভিহিত করা হয়। এই পরিভাষাটি সাধারণ উপায় ব্যতিরেকে বিশেষ উপায়ে তথ্য লাভকে নির্দেশ করে। যেমন- মনের দ্বারা অতীতকালের তথ্য লাভ।
 
[[প্যারাসাইকোলোজি]] হল অতিন্দ্রিয় সংক্রান্ত বৈজ্ঞানিক বিদ্যা।<ref>{{cite web|title=Parapsychological Association Homepage|url=http://www.parapsych.org/index.html|accessdate=2010-09-10}}</ref> বিজ্ঞানীরা সাধারণত অতিইন্দ্রিয় উপলব্ধিকে অগ্রাহ্য করেন, কারণ এক্ষেত্রে কোন সুনির্দিষ্ট সাক্ষ্য অনুপস্থিত থাকে। এছাড়া পরীক্ষামূলক পদ্ধতি না থাকায় এ পদ্ধতির কোন সুস্পষ্ট নির্ভরযোগ্যতা না থাকার কারণে বিজ্ঞানীরা একে পুরোপুরি গ্রহণ করেননি।<ref name=Gracely>{{cite web |last=Gracely, Ph.D. |first=Ed J. |authorlink= |title=Why Extraordinary Claims Demand Extraordinary Proof |work=PhACT |year=1998 |url=http://www.quackwatch.org/01QuackeryRelatedTopics/extraproof.html
১,৮৪,৭৫১টি

সম্পাদনা