"মোহামেদ বুয়াজিজি" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বট কসমেটিক পরিবর্তন করছে; কোনো সমস্যা?
(Mohd. Toukir Hamid ব্যবহারকারী মোহামেদ বৌয়াজিজি পাতাটিকে মোহামেদ বুয়াজিজি শিরোনামে স্থানান্তর করে...)
(বট কসমেটিক পরিবর্তন করছে; কোনো সমস্যা?)
{{Infobox person
| name = মোহামেদ বুয়াজিজি<br /><small>محمد البوعزيزي</small>
| image = <!-- Mohamed Bouazizi.jpg -->
| caption = মোহামেদ বুয়াজিজি
'''তারেক আল-তায়েব মোহামেদ বুয়াজিজি''' ({{lang-ar|محمد البوعزيزي}}) (২৯শে মার্চ, ১৯৮৪ - ৪ঠা জানুয়ারি, ২০১১) [[তিউনিসিয়া]]র তরুন যিনি নিদারুণ অর্থনৈতিক সঙ্কট আর পুলিশি অত্যাচারে জর্জরিত হয়ে নিজের শরীরেই আগুন জ্বালিয়ে দেন। তার শরীরের সেই আগুনের খবর দাবাগ্নির মতো ছড়িয়ে পড়েছে দেশ থেকে দেশান্তরে। উত্তর আফ্রিকার দেশগুলোতে সেই আগুনের আঁচ লাগে সবার আগে। এরপর তা ছড়িয়ে পড়ে আরব বিশ্বসহ সমগ্র বিশ্বে। ইতিহাসের পাতায় এই দাবানলের নাম হয়ে দাঁড়ালো 'আরব বসন্ত'।<ref name="bd-pratidin">''[http://www.bd-pratidin.com/index.php?view=details&archiev=yes&arch_date=20-03-2011&type=gold&data=Download&pub_no=323&cat_id=3&menu_id=16&news_type_id=1&news_id=56423 বিপ্লবী বুয়াজিজি]'',শাকিল মাহমুদ, দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ২০-০৩-২০১১ খ্রিস্টাব্দ।</ref>
 
== কাহিনীর সূত্রপাত ==
স্নাতক পাস করে বুয়াজিজি কোনো চাকরি না পেয়ে স্থানীয় বাজারে সবজি বিক্রি করতেন। ২০১০ সালের ডিসেম্বরের ১৭ তারিখ সকালবেলায় তিউনিশিয়ার শহর সিদি বাওজিদে ফল বিক্রি করছিলেন বুয়াজিজি। পৌরসভার নারী পুলিশ ইন্সপেক্টর ফাইদা হামদির সঙ্গে কথা কাটাকাটি বেধে যায় ঘুষের জন্য।। এক পর্যায়ে ইন্সপেক্টর বুয়াজিজি’র সকল পণ্য ঠেলা গাড়িটিসহ আটক করে নিয়ে যায়। বুয়াজিজি অনেক কাতর অনুনয় বিনয় করে তার পণ্যসহ গাড়ি ফেরত পাওয়ার জন্য। কিন্তু তাতে মন গলেনি নগর কর্তৃপক্ষের। শেষমেষ মরিয়া বুয়াজিজি বাজার থেকে জ্বালানি কিনে এনে সরকারি ভবনের গেটের সামনে নিজেকে জ্বালিয়ে দেন।<ref name="bd-pratidin"></ref>
== মৃত্যু ==
[[Imageচিত্র:Tunis Hôpital polytraumatisme.JPG|thumb|right|250px|ট্রমা সেন্টার যেখানে বুয়াজিজি মৃত্যুবরন করেন।]]
১৮ দিন ধরে হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়ে ৪ জানুয়ারি মারা যান মোহাম্মদ বুয়াজিজি। তার মৃত্যুর খবরে নতুন করে সরকারবিরোধী বিক্ষোভে ফুঁসে ওঠে তিউনিসিয়ার তরুণ বিপ্লবীরা।<ref name="bd-pratidin"></ref>
 
== বিপ্লব ==
মোহাম্মাদ বুয়াজিজির আত্ত্মাহুতির পর দেশব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ। পতন ঘটে ২৩ বছরের স্বৈরশাসক জয়নাল আবেদিন বিন আলির।<ref name="">''[http://www.dailysangram.com/news_details.php?news_id=69670 তিউনিসিয়ায় সরকার গঠনে ঐকমত্য]'', দৈনিক সংগ্রাম। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ২১-১১-২০১১ খ্রিস্টাব্দ।</ref>মাত্র একমাসের মাথায় ক্ষমতা থেকে নেমে যেতে বাধ্য হন তিউনিশিয়ার তৎকালীন প্রেসিডেন্ট জয়নাল আবেদিন বিন আলী।<ref name="bd-pratidin"></ref>
 
== গ্যালারি ==
<gallery>
File:Mother of Mohamed Bouazizi.jpg|মোহামেদ বৌয়াজিজির মা।
</gallery>
 
== তথ্যসূত্র ==
{{reflist|colwidth=30em}}
 
== বহিঃসংযোগ ==
* [http://nos.nl/video/209867-begrafenis-mohammed-bouazizi.html Bouazizi's funeral procession] (Video). nos.nl, 6 January 2011.
* Davies, Wyre. "[http://www.bbc.co.uk/news/world-middle-east-13800493 Doubt over Tunisian 'martyr' who triggered revolution]." ''[[BBC]]''. 16 June 2011.
{{Sakharov Prize 2001-2025}}
{{শাখারভ পুরস্কার}}
২,০০,১০৩টি

সম্পাদনা