"জলবায়ু" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

(95.97.89.176 (আলাপ)-এর সম্পাদিত 1377688 নম্বর সংশোধনটি বাতিল করা হয়েছে (Vandalism))
=== পর্বতের অবস্থান ===
উঁচু পর্বতে বায়ুপ্রবাহ বাধাপ্রাপ্ত হলে আবহাওয়া ও জলবায়ুগত পার্থক্য পরিলক্ষিত হয়। উদাহরণস্বরূপ, [[হিমালয়|হিমালয়ে]] বাধাপ্রাপ্ত হয়ে [[মৌসুমী জলবায়ু]] [[বাংলাদেশ]], [[ভারত]] ও [[নেপাল|নেপালে]] প্রচুর বৃষ্টিপাত ঘটায়।
=== [[বনভূমি]] ===
গাছের [[প্রস্বেদন]] ও [[বাষ্পীভবন|বাষ্পীভবনের]] মাধ্যমে জলীয় বাষ্প ঘনীভূত হয়ে বৃষ্টিপাত ঘটায়। বনভূমির প্রগাঢ়তার কারণে কোনো কোনো স্থানে সূর্যালোক মাটিতে পড়ে না, ফলে ঐসকল এলাকা ঠান্ডা থাকে। তাছাড়া বনভূমি ঝড়, সাইক্লোন, টর্নেডো ইত্যাদির গতিপথে বাধা সৃষ্টি করে বায়ুমণ্ডলীয় অবস্থার রূপ বদলে দেয়।
 
=== ভূমির ঢাল ===
সূর্যকীরণ উঁচু স্থানের ঢাল বরাবর পড়লে ভূমি উত্তপ্ত হয়ে তাপমাত্রা বাড়ে আবার ঢালের বিপরীত দিকে পড়লে তাপমাত্রা অতোটা বাড়ে না। তাছাড়া ঢাল বরাবর লম্বভাবে সুর্যালোকের পতন, তীর্যকভাবে সূর্যালোক পতনের তুলনায় তুলনামূলক উত্তপ্ত আবহাওয়ার সৃষ্টি করে।
বেনামী ব্যবহারকারী