"উইন্ডসর" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
 
উইন্ডসর স্টারের শতবার্ষীকি সংখ্যায় (১৯৯২) নগরীর ইতিহাস, রেলওয়ে কেন্দ্র হিসেবে সাফল্য, প্রথম ও দ্বীতিয় বিশ্বযুদ্ধের অবদান প্রকাশিত হয়। এছাড়াও ১৮৯২ সালে নগরের নামকরণ সংক্রান্ত জটিলতার কথা উঠে আশে। সর্বাধিক জনপ্রিয় নামগুলো ছিল "দক্ষিন-ডেট্রয়েট", "ফেরি"(ডেট্রয়েট ও উইন্ডসরের মাঝে সংযোগ স্থাপনকারী ফেরি থেকে), "উইন্ডসর" এবং "রিচমন্ড"(জনপ্রিয়তার বিচারে দ্বীতিয়)। নাম হিসেবে উইন্ডসর বেছে নেয়া হয় এর পত্তনকারীদের ইংরেজ ঐতিহ্যের কারনে, বার্কশায়ারের উইন্ডসর কেল্লার নামানুসারে। তবে দ্বীতিয় বিশ্বযুদ্ধের সময় পর্যন্তও স্থানীয় জনগন এবং ডাকবিভাগ একে রিচমন্ড নামটাই ব্যবহার করত।
 
==অর্থনীতি==
উইন্ডসরের অর্থনীতি মূলতঃ শিক্ষা, পর্যটন, শিল্প এবং সরকারী বিভাগ সমূহের উপর নির্ভরশীল।
উইন্ডসর বিশ্ববিদ্যালয় এবং সেইন্ট ক্লেয়ার কলেজ ঊল্লেখযোগ্য সংখ্যক লোকের কর্মসংস্থান যোগায় এবং সাম্প্রতিক কালে উভয়েরই পরিসর বৃদ্ধি পেয়েছে। উইন্ডসর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে পশ্চিম অন্টারিও বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগীতায় ২০০৮ সালে স্থাপিত মেডিকাল স্কুলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান এবং স্থানীয় অর্থনীতিতে তার অবদানকে জোরদার করেছে। বর্তমানে প্রায় ১১২ মিলিয়ন ডলার ব্যায়ে প্রকৌশল ভবন নির্মানাধিন রয়েছে।
 
উইন্ডসরের পর্যটন শিল্প ও যথেষ্ট শক্তিশালী। সিজার উইন্ডসর (প্রাক্তন ক্যাসিনো উইন্ডসর) প্রচুর সঙ্খ্যক স্থানীয় এবং আমেরিকান পর্যটককে আকর্ষণ করে। ক্যাসিনোটি স্থানীয় বাসিন্দাদের একটি বড় অংশের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে। উইন্ডসর-কুইবেক করিডোরে প্রায় ১৮ মিলিয়ন লোকের বসবাস, যা কানাডার জনসংখ্যার ৫১% এবং এই অঞ্চলে উইন্ডসর চারটি বৃহত্তম মহানগরীর একটি, ২০০১ এর আদমশুমারী মতে।
 
 
== তথ্যসূত্র ==
৬১৭টি

সম্পাদনা