"অপরাধ" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

উৎপত্তি
(সম্প্রসারণ)
(উৎপত্তি)
 
সাধারণ ধারনা অনুযায়ী কোন ব্যক্তি, অন্য কোন ব্যক্তি বা সমাজের সমস্যা সৃষ্টিকল্পে যে সকল কাজ করেন তাই অপরাধ। অপরাধ হিসেবে কোন ব্যক্তিকে [[খুন]], জখম, চুরি, ডাকাতি, রাহাজানি, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড, [[ধর্ষণ]], জালিয়াতি, অর্থপাচার ইত্যাদি রয়েছে যা পৃথিবীর সকল সভ্য দেশেই স্বীকৃত থাকায় দণ্ডনীয়। এছাড়াও, [[মদ্যপান]], [[কোকেন]], [[হেরোইন]], [[গাজা সেবন]], নিষিদ্ধ প্রাণীর মাংস খাওয়াসহ সমাজের বিরুদ্ধ কার্যাবলী সম্পাদন করা অপরাধের আওতাভূক্ত।
 
== উৎপত্তি ==
অপরাধের ইংরেজি প্রতিশব্দ ''ক্রাইম'' যা [[ল্যাটিন ভাষা|ল্যাটিন ভাষায়]] উদ্ভূত ''সার্নো'' থেকে এসেছে। এর অর্থ হচ্ছে "আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি, আমি দণ্ডাজ্ঞা দিব"।
 
বিখ্যাত [[সমাজবিজ্ঞানী]] [[রিচার্ড কুইনী]] সমাজ এবং অপরাধের মধ্যে সম্পর্কের কথা উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেছেন, 'অপরাধ হচ্ছে সামাজিকতার দৃশ্যমান প্রতিফলন'। এ কথার মাধ্যমে তিনি মূলতঃ ব্যক্তির অপরাধে সম্পৃক্ততার প্রেক্ষাপট এবং সামাজিক আদর্শ, ন্যায়-নিষ্ঠার মাধ্যমে জনগণের উপলদ্ধিবোধ জাগ্রতকরণ - উভয় দিকই বিবেচনা করতে বলেছেন।<ref>Quinney, Richard, "Structural Characteristics, Population Areas, and Crime Rates in the United States," The Journal of Criminal Law, Criminology and Police Science, 57(1), p. 45-52</ref>
 
== প্রকারভেদ ==
৭৬,৩০৫টি

সম্পাদনা