"আবিষ্কার" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

ভূমিকাংশ+
(ভূমিকাংশ)
(ভূমিকাংশ+)
'''আবিষ্কার''' ({{lang-en|Invention}}) বলতে ব্যক্তি বা দলীয়ভাবে কোন নতুন ধরণের জিনিস, যন্ত্র বা বিষয় তৈরী, প্রযুক্তি উদ্ভাবন, প্রক্রিয়াকরণ ইত্যাদিকে বুঝায়। আধুনিককালের [[কম্পিউটার|কম্পিউটারও]] একটি আবিষ্কার ছিল যখন তা প্রথম আবিষ্কৃত হয়েছিল। নতুন কোন প্রযুক্তি, জিনিস বা জিনিসের উৎপত্তি কোন ব্যক্তি বা গোষ্ঠী কর্তৃক আবিষ্কার করা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি, দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠান ঘোষণা করে থাকে। পূর্বে আবিষ্কৃত [[যন্ত্র]] বা জিনিসের উন্নয়নে বাউন্নয়নকল্পে বিকল্প জিনিস তৈরীও আবিষ্কার নামে স্বীকৃত। [[যোগাযোগ]] ব্যবস্থায় ব্যবহৃত গাড়ী ও সংশ্লিষ্ট যন্ত্রপাতি কোন এক সময় আবিষ্কৃত হয়েছিল যা আমরা প্রত্যেকই জানি। যিনি ঐ সকল জিনিস, যন্ত্র বা বিষয়ের কোন একটি বা সবগুলো আবিষ্কার করেন, তিনি জনসমক্ষে বা প্রচার মাধ্যমে [[আবিষ্কারক]] নামে পরিচিত। অর্থাৎ, আবিষ্কারকের তৈরী জিনিসই আবিষ্কার। [[মেধাস্বত্ত্ব]] আইন মোতাবেক বুদ্ধিবৃত্তিভিত্তিক সম্পদরূপে বৈধভাবে আবিষ্কারকের [[অধিকার|অধিকারকে]] সুরক্ষিত করে থাকে।
 
[[ধারণা|ধারণাও]] আবিষ্কার হিসেবে পরিচিত। [[লেখক|লেখকগণ]] কর্তৃক সৃষ্ট চরিত্র এবং গল্পে ঐ চরিত্রের উপস্থাপনও আবিষ্কারের অংশবিশেষ।
 
অন্য ধরণের আবিষ্কার হিসেবে রয়েছে [[সাংস্কৃতিক আবিষ্কার]] যা নতুন [[প্রথা]] প্রবর্তনের মাধ্যমে [[সামাজিক আচরণ|সামাজিক আচরণের]] জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এ প্রথা সমাজবদ্ধ [[মানুষ]] গ্রহণ করে একে-অপরের মাঝে ছড়িয়ে দেয়।<ref>Artificial Mythologies: A Guide to Cultural Invention by Craig J. Saper (1997); Review of Artificial Mythologies. A Guide to cultural Invention, Kirsten Ostherr (1998) http://findarticles.com/p/articles/mi_qa3709/is_199810/ai_n8821092</ref> অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হিসেবেও এটি শিল্পী, কলাকুশলী এবং [[সৃষ্টিশীলতা|সৃষ্টিশীলতায়]] অনন্য সাধারণ ভূমিকা রাখে। এটি প্রায়শঃই বিস্তৃত পটভূমিতে সীমানা পেরিয়ে মানুষের জ্ঞানভাণ্ডার সমৃদ্ধকরণ, [[অভিজ্ঞতা]] বিনিময় কিংবা সক্ষমতাকে আলোকিত করে থাকে।
 
== তথ্যসূত্র ==
৭৪,৭৬৪টি

সম্পাদনা