বিবর্তনের আলো ছাড়া জীববিজ্ঞানের কিছুই অর্থবহ নয়

নটরডেম বিশ্ববিদ্যালয়ের জর্ডান হল অব সায়েন্সের প্রধান হলের মেঝেতে; মোজাইক নির্মিত বৃহৎ বৃত্তে এই বাক্যটি লিপিবদ্ধ করা হয়েছে

"Nothing in Biology Makes Sense Except in the Light of Evolution" হচ্ছে ১৯৭৩ সালের বিবর্তনীয় জীববিজ্ঞানী, ইস্টার্ন অর্থোডক্স, খ্রিষ্টান ধর্মাবলম্বী থিওডোসিয়াস ডোবঝানস্কির একটি প্রবন্ধ। তিনি বিবর্তন বিরোধী সৃষ্টিবাদের সমালোচনা করেন এবং আস্তিক্যবাদী বিবর্তনকে সমর্থন প্রদান করেন। ১৯৭৩ সালে 'আমেরিকান বায়োলজি টিচারে এই প্রবন্ধটি প্রথম প্রকাশিত হয়।[১]

ডোবঝান্সকি এই উদ্ধৃতিকে প্রথমবার ব্যবহার করেন, একটু ভিন্নভাবে, ১৯৬৪ সালে আমেরিকান সোসাইটি জুওলোজিস্ট এর একটি প্রেসিডেন্টশিয়াল এড্রেস, যার শিরোনাম ছিল "Biology, Molecular and Organismic"; সেখানে এটিকে ব্যবহার করেন। এই নিবন্ধের মুল বিষয়টা ছিল অণুজীববিজ্ঞান নামক যে নতুন ক্ষেত্রের উথ্থান ঘটছে, তার নানাবিধ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রাণ জীববিজ্ঞানের (organismic biology) গুরুত্ব কতটা তার উপর আলোকপাত করা।[২] "বিবর্তনের আলোয়" বা sub specie evolutionis নামক পদটি প্রথমে— Jesuit পুরোহিত পিয়ের তাঁয়ার দ্য শারদাঁ এবং পরবর্তীতে জীববিজ্ঞানী জুলিয়ান হাক্সলী ব্যবহার করেন।[৩]

পর্যালোচনাসম্পাদনা

ডোবঝানস্কি শুরুই করেন শাইখ আব্দুল বিন বাজের সমালোচনার মাধ্যমে, শাইখ পরবর্তীতে সৌদি আরবের গ্র্যাণ্ড মুফতি হন। শাইখ ধর্মীয় গ্রন্থের উপর ভিত্তি করে, এটা বিশ্বাস করতেন সুর্য পৃথিবীকে কেন্দ্র করে ঘুরতে থাকে। ডোবঝানস্কি তার বিবৃতিতে উল্লেখ করেন, "এটা খুবই হাস্যকর রকমের ভুল যে, বাইবেল এবং কোরানকে প্রাকৃতিক বিজ্ঞানের আধার ধরে নেওয়া। তারা কিছু বিষয়কে অনেক গুরুত্বপূর্ণ যেমন: মানুষের উদ্দেশ্য আর ঈশ্বরের সাথে তার সংযোগ কি তা নিয়েই অনেক চিন্তা ভাবনা করে।" [১] তিনি এরপর পুর্বের বিবর্তনবিরোধী পি এইচ গোসের সমালোচনা করেন – গোসে বলেছিলেন, ফসিলসমুহ যেখানে পাওয়া গিয়েছে, সেগুলো সেখানে পরিকল্পিতভাবে তৈরী করা হয়েছিল – তার এই বাক্যকে উল্লেখ করে, ডোবঝানস্কি বলেন, "এটা তো প্রমাণিত যে, ফসিল গুলো যেখানে পাওয়া গিয়েছে, সেখানেই এগুলো ছিল, যদি কেও তৈরী করে থাকে, তাহলে সেগুলো মানুষ নয়, বরং ঈশ্বরের ইচ্ছায়, এই জীবকুল তৈরী হয়েছিল, যা পরবর্তীতে ফসিলে রুপান্তরিত হয়, গোসে ফসিলকে পরিকল্পিত ভাবে তৈরী বলে বিবর্তনকে নয়, বরং ঈশ্বরকেই প্রতারক বলছে। এটা নিঃসন্দেহে ঈশ্বরকে কটুক্তি করার সামিল। এটা তো ব্লাস্ফেমী"[১]

তিনি পুর্বে রাষ্ট্রপতি-নির্বাচনের ভাষণে (presidential address) বলেছেন, "যদি জীবসমুহ একটি সাধারণ পুর্বপুরুষ থেকে বিবর্তনীয় প্রক্রিয়ায় উদ্ভুত না হয়ে থাকে, তাহলে জীবের মৌলিক বিষয়গুলোর একইরুপ হওয়া একটা ধোঁকা(hoax) এবং তাদের বৈচিত্র্য একটা মশকারী(joke)।"[২] জীবন্ত বস্তু সমুহের এই একতা আর জীবের বৈচিত্র্য, এই দুইটি বিষয়ের উপর নির্ভর করেই তার প্রবন্ধ উলিখিত হয়েছিল

পৃথিবীতে দেখা যাওয়া জীববৈচিত্র্যকে উল্লেখ করে ডোবঝানস্কি জিজ্ঞেস করে বলেন, ঈশ্বর কী ভিন্ন ভিন্ন পরিবেশে ভিন্ন প্রজাতি তৈরী করার সময় মজা করছিলেন কি না।

তিনি জীবের মৌলিক বিষয়ের উপর আলোকপাত করে বলেন, এমানুয়েল মারগোলিয়াস এবং ওয়াল্টার এম. ফিচ বৃহত্তর প্রজাতির বিস্তৃতিতে দেখিয়েছেন- জীবকুল যেমনঃ বানর, টুনা,ক্যাঙ্গারু এবং ছত্রাকে সাইটোক্রোম সি এর আণবিক বিন্যাস (molecular sequence) একইরকম[১]। এই সামঞ্জস্য বিভিন্ন প্রজাতির ভ্রুণেও দেখা যায়। এখন হয়, ঈশ্বর উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে এসব সামঞ্জস্যগুলো তৈরী করেছে, যাতে করে সত্যান্বেষী মানুষ পথভ্রষ্ট হয় [১] অথবা এসব মিলগুলো বিবর্তনেরই ফলাফল।

ডোবঝানস্কি বক্তব্য শেষ করেন এইভাবে যে, ধর্মীয় বই এবং বিজ্ঞান সম্পুর্ণ ভিন্ন বিষয়: "পবিত্র ধর্মীয় গ্রন্থকে আধার ধরে, সে আলোয় নভোবিজ্ঞান, ভূতত্ব, জীববিজ্ঞান এবং নৃবিজ্ঞানকে ব্যাখ্যা করা- একটা বোকার ন্যায় ভুল করার সামিল।"[১]

এই প্রবন্ধের কারণসম্পাদনা

এই প্রবন্ধ সৃষ্টির অধীনস্থ কারণ ছিলো বিবর্তনীয় জীববিজ্ঞান শিখানোর প্রতি জোর দেওয়া। কারণ যুক্তরাষ্ট্রের জনশিক্ষায় সৃষ্টিবাদ বনাম বির্তনবাদের মধ্যে বিবর্তন পড়ানো জরুরী বলে তিনি মনে করতেন।[৪] বিবর্তনের অন্যতম ফ্যাক্ট হলো, জীববিজ্ঞানের বিভিন্ন শাখার আন্তঃসম্পর্কীয় ব্যাখ্যা এটি দিতে পারে।[৫] জীববিজ্ঞানের শিক্ষায়, জীববিজ্ঞান সম্পৃক্ত সকল বিষয়ের সমন্বিত রুপ হচ্ছে বিবর্তনবাদ, যা বর্তমানে দৃঢ়ভাবে স্বীকৃত।[৬]

প্রবচনসম্পাদনা

"বিবর্তনের আলোকাধারায়" এই মতবাদটি মুলত প্রাণবাদী Jesuit পণ্ডিত পিয়ের তাঁয়ার দ্য শারদাঁর কাছ থেকেই মুলত এসেছে। যা পরবর্তীতে ডোবঝানস্কি ব্যবহার করেন। তার অনুচ্ছেদের শেষ দিকের প্যারায় দ্য শারদাঁর উদ্ধৃতি ব্যবহার করা হয়

(বিবর্তন) হচ্ছে এমন একটা শর্ত যার কাছে এসে সকল তত্ব, সকল অনুকল্প, সকল ব্যবস্থা; যদি সেগুলো বাস্তব হয়, তবে বিবর্তনের কাছে তাদের মাথা নত করতে হয়। বিবর্তন হচ্ছে আলোর ন্যায়; যা সকল ফ্যাক্টকে আলোকিত করে, এ এমন এক বক্র রেখা; যাকে; সকল সরলরেখা অবশ্যই অনুসরণ করে। (p. 219 of Phenomenon of Man)

"nothing in biology makes sense except in the light of evolution" নামক ফ্রেসটি সৃষ্টিবাদের বা এর সমার্থক নাম বুদ্ধিদীপ্ত নকশার বিরোধিতা করতে ব্যবহার করা হয়।[৪][৭] এই প্রবন্ধটিতে দেখানো হয়েছিল, খ্রিষ্ঠান ধর্ম আর বিবর্তনীয় জীববিজ্ঞান পাশাপাশি অবস্থান করতে পারে (অর্থাৎ আস্তিক্যবাদী বিবর্তন বা বিবর্তনীয় সৃষ্টিবাদকে যা ব্যখ্যা করে), এই প্রবাদটি উভয়ই ব্যবহার করে, যারা নৃবিজ্ঞান ও জীববিজ্ঞান দিয়ে নিজের বিশ্বাসকে বিবেচনা করে এবং যারা স্রষ্টাকে অপ্রয়োজনীয় ভাবে। এই ফ্রেসটি রিচার্ড ডকিন্স তার প্রকাশিত বই The Selfish Geneএ ব্যবহার করেছেন, যেখানে তিনি ঈশ্বরকে অপ্রয়োজনীয় বলে উল্লেখ করেছেন।

উদ্ধৃতিসম্পাদনা

আমি একজন সৃষ্টিবাদী ও বিবর্তনবাদী। বিবর্তন ঈশ্বর অথবা প্রকৃতিরই খেলা। বিবর্তনের ফলে হওয়া এইসব সৃষ্টি শুধুমাত্র ৪০০৪ খ্রিষ্ঠপুর্বে সংগঠিত হয় নি। এটা এমন একটা প্রক্রিয়া যা ১০ বিলিয়ন বছরের পুর্ব থেকে শুরু হয়েছে এবং এখনো তা চলছে

— Theodosius Dobzhansky, "Nothing in Biology Makes Sense Except in the Light of Evolution" (1973)
(I am a creationist and an evolutionist. Evolution is God's, or Nature's method of creation. Creation is not an event that happened in 4004 BC; it is a process that began some 10 billion years ago and is still under way.)

বিবর্তনীয় মতবাদ কি ধর্মের সাথে সাংঘর্ষিক? অবশ্যই না। এটা একটা মারাত্মক ভুল যে, ধর্মীয় পুস্তিকা ব্যবহার করে জীববিজ্ঞান, ভূগোল, নৃবিজ্ঞান, নভোবিজ্ঞানকে ব্যাখ্যা করা। যদি, কোনো প্রতীকের অর্থকে এমনভাবে ব্যাখ্যা করা হয় যে, আদৌ ধর্মগ্রন্থে সেভাবে ব্যাখ্যা করা হয়ই নি, তাহলে এর ফলে একটা অমীমাংসিত, কাল্পনিক সংঘর্ষের জন্ম হয়। এই ভুলকারী ধর্মদ্রোহীই হয়ে গেল: তার এ আচরণের জন্য মহান স্রষ্টা এক প্রকার পদ্ধতিগত প্রতারক হিসেবে বিবেচিত হন।

— Theodosius Dobzhansky, "Nothing in Biology Makes Sense Except in the Light of Evolution" (1973)
Does the evolutionary doctrine clash with religious faith? It does not. It is a blunder to mistake the Holy Scriptures for elementary textbooks of astronomy, geology, biology, and anthropology. Only if symbols are construed to mean what they are not intended to mean can there arise imaginary, insoluble conflicts.... the blunder leads to blasphemy: the Creator is accused of systematic deceitfulness.

তথ্যসুত্রসম্পাদনা

  1. Dobzhansky, Theodosius (মার্চ ১৯৭৩), "Nothing in Biology Makes Sense Except in the Light of Evolution", American Biology Teacher, 35 (3): 125–129, জেস্টোর 4444260 ; reprinted in Zetterberg, J. Peter, সম্পাদক (১৯৮৩), Evolution versus Creationism, Phoenix, Arizona: ORYX Press 
  2. Dobzhansky, Theodosius (নভে ১৯৬৪), "Biology, Molecular and Organismic" (PDF), American Zoologist, 4 (4): 443–452, doi:10.1093/icb/4.4.443, জেস্টোর 3881145, ৩ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা, সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুলাই ২০১৭ ।এই প্রবাদটি দেখা যায় তার নিবন্ধের ৪৪৯ পৃষ্ঠায়, সেখানে উল্লেখ ছিল, "nothing makes sense in biology except in the light of evolution, sub specie evolutionis."
  3. Huxley, Julian (১৯৫৩), Evolution in Action, New York: Harper & Brothers, পৃষ্ঠা 152, Medieval theology urged men to think of human life in the light of eternity—sub specie aeternitatis: I am attempting to rethink it sub specie evolutionis—in the light of evolution. 
  4. "NCSE Resource"Cans and Can'ts of Teaching EvolutionNational Center for Science Education। ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০০১। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-১২-১৩ 
  5. Eugenie C. Scott (নভেম্বর ৮, ১৯৯৭)। "BioForum 11/9/97: Scott: Evolution and Biology"। Access Excellence at the National Health Museum। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-১২-১৩ 
  6. David L. Haury (১৯৯৬)। "CSMEE Digest 96-4"Teaching Evolution in School Science Classes। The Educational Resources Information Center। ২০০৭-০৯-২৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-১২-১৩ 
  7. Kitzmiller v. Dover Area School DistrictContext: 1. An Objective Observer Would Know that ID and Teaching About "Gaps" and "Problems" in Evolutionary Theory are Creationist, Religious Strategies that Evolved from Earlier Forms of Creationism

বহিঃস্থ সংযোগসম্পাদনা