বিধাননগর রোড রেলওয়ে স্টেশন

পশ্চিমবঙ্গের রেলওয়ে স্টেশন

'বিধাননগর রোড রেল স্টেশন'টি হল শিয়ালদহ-রানাঘাট লাইন, শিয়ালদহ-ডানকুনি লাইন-এর একটি ব্যস্ত রেল স্টেশন। স্টেশনটি পুরোনো 'উল্টোডাঙা রেল স্টেশন' নামেও পরিচিত। স্টেশনটি শিয়ালদহদমদম রেলওয়ে স্টেশন-এর মাঝে অবস্থিত একটি রেল স্টেশন। এই রেল স্টেশনটি বিধাননগরউল্টোডাঙা এলাকার রেল পরিষেবা প্রদান করে। স্টেশনটি ভারতীয় রেল-এর পূর্ব রেল জোনের শিয়ালদহ বিভাগের অধীনস্থ এবং স্টেশনটি কলকাতা শহরতলি রেল-এর একটি স্টেশন।

বিধাননগর রোড
কলকাতা শহরতলি রেল স্টেশন
চিত্র:Bidhannagar Road station.jpg
অন্যান্য নামউল্টোডাঙা স্টেশন
অবস্থানবিধাননগর,উত্তর চব্বিশ পরগনা,পশ্চিমবঙ্গ
ভারত
স্থানাঙ্ক২২°৩৫′২৮″ উত্তর ৮৮°২৩′২৭″ পূর্ব / ২২.৫৯১১° উত্তর ৮৮.৩৯০৭° পূর্ব / 22.5911; 88.3907স্থানাঙ্ক: ২২°৩৫′২৮″ উত্তর ৮৮°২৩′২৭″ পূর্ব / ২২.৫৯১১° উত্তর ৮৮.৩৯০৭° পূর্ব / 22.5911; 88.3907
উচ্চতা৮ মিটার (২৬ ফু)
পরিচালিতপূর্ব রেল
লাইনশিয়ালদহ-রানাঘাট লাইন,শিয়ালদহ-ডানকুনি লাইন
প্ল্যাটফর্ম
রেলপথ
নির্মাণ
গঠনের ধরনআদর্শ
পার্কিংনা
সাইকেলের সুবিধানা
অন্য তথ্য
অবস্থাসক্রিয়
স্টেশন কোডবিএনএক্সআর (BNXR)
ভাড়ার স্থানপূর্ব রেল
ইতিহাস
চালু১৮৬২
বৈদ্যুতীকরণ১৯৬৩-১৯৬৪
পরিষেবা
পূর্ববর্তী স্টেশন   কলকাতা শহরতলি রেল   পরবর্তী স্টেশন
শেষ স্টেশন
পূর্ব লাইন
কর্ড লিংক লাইন
সামনে দমদম জংশন
চক্ররেল লাইন
শেষ স্টেশন
অবস্থান

ইতিহাসসম্পাদনা

 
বিধাননগর রোড রেল স্টেশন

১৮৬২ খ্রিষ্টাব্দে এই রেল স্টেশনটি নির্মাণ করে 'ইস্টার্ন বেঙ্গল রেলওয়ে'।[১] সেই সময় স্টেশনটি কলকাতা-কুষ্ঠিয়া রেলপথের অংশ ছিল।

বৈদ্যুতিকরণসম্পাদনা

১৯৬৩-১৯৬৪ খ্রিষ্টাব্দে এই স্টেশনটির বৈদ্যুতিকরণ করা হয়।

'বিধাননগর রোড' রেল স্টেশনের নামকরণসম্পাদনা

পশ্চিমবঙ্গের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ডাক্তার বিধানচন্দ্র রায়ের উদ্যোগে গঙ্গার লবণাক্ত জল সমেত পলিমাটি পাম্প করে করে নিচু জায়গা ভরাট করে যে শহর গড়ে ওঠে তার নাম হয় 'লবণহ্রদ' বা 'সল্টলক'। ১৯৭২ খ্রিষ্টাব্দে ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধির নেতৃত্বে এই লবণহ্রদেই অনুষ্ঠিত হয় ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের কলকাতা অধিবেশন। আর সারা ভারত থেকে কংগ্রেস প্রতিনিধিরা ভারতীয় রেলের উল্টোডাঙা স্টেশনের ওপর দিয়েই আসতে থাকেন। ঘটনাচক্রে ওই সময়ই, অর্থাৎ ১৯৭২ খ্রিষ্টাব্দে 'লবণহ্রদ' শহরের নাম পরিবর্তন করে 'বিধাননগর' রাখা হয় এবং 'উল্টোডাঙা' রেল স্টেশনের নাম বদল করে নতুন নাম দেওয়া হয় 'বিধাননগর রোড' রেল স্টেশন।

যাত্রী পরিবহনসম্পাদনা

প্রতিদিন এই স্টেশন দিয়ে গড়ে ৯,৭৫,০০০ জন যাত্রী চলাচল করে। এই স্টেশনে উভয় দিকে দিনে ৩২৫টি ট্রেন চলাচল করে।[২] এই স্টেশনে আপ এবং ডাউন সর্বমোট চারটি প্ল্যাটফর্ম রয়েছে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Eastern_Bengal_Railway"। IRFCA। সংগ্রহের তারিখ ১০-০৯-২০১৬  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  2. "Bidhannaga Road"। Railenquiry.in। সংগ্রহের তারিখ ১০-০৯-২০১৬  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)

বহিঃসংযোগসম্পাদনা