বিগ অ্যান্ড লিটেল ওং টিন বার

বিগ অ্যান্ড লিটেল ওং টিন বার (চীনা: 大小黄天霸), আরেক নাম সেভেন লিটেল ভ্যালিয়েন্ট ফাইটার (চীনা: 橫掃江南七霸天) ও টু অব আ কাইন্ড, হলো ১৯৬২ সালে নির্মিত হংকং এর চলচ্চিত্র। এই চলচ্চিত্রটি জ্যাকি চ্যানসামো হুং এর প্রথম অভিনীত চলচ্চিত্র হওয়ার সুবাদে উল্লেখযোগ্য। ২০১৬ সাল পর্যন্ত এটাকে হারানো চলচ্চিত্র ভাবা হতো। খুঁজে পাওয়ার পূর্বে টিকে থাকা প্রাপ্ত চলচ্চিত্র ফুটেজগুলো যথাক্রমে ৯ মিনিট শুরুর দিকে এবং ৫ মিনিটের সংলাপের ভিডিও ছিলো।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] পুরো চলচ্চিত্রটি খুঁজে পাওয়া যায় এবং ইউটিউবে ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ তারিখে প্রকাশ করা হয়।[৩]

বিগ অ্যান্ড লিটেল ওং টিন বার
বিগ অ্যান্ড লিটেল ওং টিন বার (১৯৬২).jpeg
জ্যাকি চ্যানসামো হুং দের প্রথম অভিনীত চলচ্চিত্র ছিলো ১৯৬২ সালে নির্মিত মার্শাল আর্ট চলচ্চিত্র বিগ অ্যান্ড লিটেল ওং টিন বার, ২০১৬ সালের পূর্বে এটাকে হারানো চলচ্চিত্র ভাবা হতো (ছবিতে এর প্রথম দৃশ্য দেখা যাচ্ছে)
পরিচালকলুং তো
প্রযোজকলিউং কিং-হিন
রচয়িতালি উয়েন-মান
শ্রেষ্ঠাংশেজ্যাকি চ্যান
সামো হুং
লি লি-হুয়া
সম্পাদকফ্যান কা-কেন
প্রযোজনা
কোম্পানি
গ্রেইট উইন ফিল্ম কোম্পানি
প্যান এশিয়া ফিল্মস[১]
পরিবেশকগালা ডিস্ট্রিবিউশন
ফরচুন স্টার
মুক্তি
  • ৫ ডিসেম্বর ১৯৬২ (1962-12-05)[১]
দৈর্ঘ্য১০৬ মিনিট[২]
দেশব্রিটিশ হংকং
ভাষাক্যান্টনীয়

পটভূমিসম্পাদনা

বৃদ্ধ নায়ক ওং সামতাই, সমুদ্রের চারদিকের যোদ্ধাদের জন্য ভোজের আয়োজন করেন। ভোজের আমন্ত্রণ গ্রহণ করেন ব্ল্যাক উইন্ড দূর্গের প্রধান কাম চিং, যে তার মেয়ে লোটাসের বিয়ে ওং এর ছেলে ওং টিনবারের সাথে দিতে চায়। কিন্তু টিনবার এই বিয়ে করতে চায় না এবং চিউং কোয়াইলাংকে পছন্দ করে। দুর্দশাগ্রস্ত চিং ও তার মেয়ে জাদুরকরী ক্ষমতার রাজার জেড সিলমোহর চুরি করে। টিনবারকে এই চুরির অপবাদে অভিযুক্ত করা হয়। সিলমোহর খুঁজে পেতে ব্যর্থ হওয়ায় তার বাবা তাকে কারাবন্দী করে। চিউং কোয়াইলাং রাত্রিবেলায় টিনবারকে খুঁজতে গিয়ে ব্ল্যাক উইন্ড দূর্গে আঁটকা পড়ে, কিন্তু সেভেন লিটল রুকিসরা এসে তাকে উদ্ধার করে। যার ফলে মেয়েটি খোঁজ চালিতে যেতে সক্ষম হয় এবং বিষাক্ত অজগরের সাথে ড্রাগনের গুহায় চলে আসে যেখানে সিলমোহরটি রয়েছে। তবুও টিনবার মালিকের অধীনে বন্দী থাকে। কোয়াইলাং ও সেভেন রাসকেলস ফোর্স অপরাধীদের আত্মসমর্পণ করতে বাধ্য করে - এটি প্রধানের বাড়িতে টিনবারের উদ্ধার প্রকল্পের অংশ যা সমস্যার সমাধান করে।

কুশীলবসম্পাদনা

টীকা: অনেক অভিনয়শিল্পী যারা এখানে অভিনয় করেছেন বর্তমানে ভিন্ন নামে অভিনয় করেন, এটি মূলত হয়েছে তাদের শিক্ষকের নাম গ্রহণের ঐতিহ্যের ফলে যা চীনা মার্শাল আর্টের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য।

  • ওং টিনবার চরিত্রে ইউ কাই
  • ইউয়েন লাউ (ওরফে জ্যাকি চ্যান) – গান গাওয়া বাচ্চা ও বড় মানুষের সাথে লড়াই করার চরিত্রে
  • ইউয়েন লুং (ওরফে সামো হুং) – অজ্ঞাত একটি বাচ্চা
  • ইউয়েন ওয়াহ
  • হো সিউ-হুং – প্রধান ওং সামটাই চরিত্রে
  • চেং বিক-ইং – চেউং কোয়াইলাং চরিত্রে
  • ইয়াম ইন – লোটাস চরিত্রে
  • লাউ হারক-সুয়েন – ব্ল্যাক উইন্ড দূর্গের প্রধান কাম চিং চরিত্রে

অতিরিক্ত অভিনয়শিল্পীসম্পাদনা

  • ইউয়েন ফু (ওরফে লি কুক-ওয়াহ)
  • ইউয়েন টিং (ওরফে নং মিং-চই)
  • ইউয়েন মান (ওরফে মাং ইউয়েন-মান)
  • ইউয়েন তাই
  • লাম ইম
  • মিই ইয়াম
  • ইয়াম তাই-কুন
  • ওয়াহ ওয়ান-ফুং

ঘটনার কালানুক্রমসম্পাদনা

২০০৯ সালের আগ পর্যন্ত এই চলচ্চিত্রকে হারানো চলচ্চিত্র ধরে নেওয়া হয়েছিলো। অনেক শতক পরে ২০০৯ সালে এটি হংকং চলচ্চিত্র সংরক্ষাণাগারে পাওয়া যায়। সেই দিন এই চলচ্চিত্রটি সংরক্ষাণাগারের হলে ১৪ ও ২২ নভেম্বর তারিখে প্রদর্শন করা হয়।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

দুইবার চলচ্চিত্রটি দেখানোর পর ২০০৯ সালের ডিসেম্বরে ইউটিউবে এর ৯ মিনিটের সূচনা ও ৫ মিনিটের সংলাপের দৃশ্য ইউটিউবে আপলোড করা হয়। ২০১৬ সালের ৩ ফেব্রুয়ারিতে সম্পূর্ণ চলচ্চিত্র ইউটিউবে আপলোড করা হয়।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

খুঁজে পাওয়া ও ইউটিউবে আপলোডের পূর্বে জ্যাকি চ্যান ও কিছু বাচ্চার তিনটি বিখ্যাত দৃশ্য পাওয়া যেতো। একটি দৃশ্যে জ্যাকি চ্যান একজন বড় লোকের সাথে লড়াই করছে এবং তারপর গান গাইছে। চলচ্চিত্রের কিছু দৃশ্য জ্যাকি চ্যান: মাই স্টোরি প্রামাণ্যচিত্রে দেখানো হয়েছে।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

চিত্রগ্রহণের তথ্যসম্পাদনা

এই চলচ্চিত্রটি হংকংয়ে ক্যান্টনীয় ভাষায় সাদাকালো ৩৫ মিলিমিটার ফিল্মমোনো অডিও ট্র‍্যাক ব্যবহার করে নির্মাণ করা হয়েছে।

আরো দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "The Seven little valiant fighters"Hong Kong Film Archive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৩ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. "Seven Little Valiant Fighters (aka Two of a Kind)"Hong Kong Film Archive। ১৭ মার্চ ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩০ আগস্ট ২০১৩ 
  3. https://www.youtube.com/watch?v=qXYmbG6W1VY

বহিঃসংযোগসম্পাদনা