বিক্রম ভাট

ভারতীয় চলচ্চিত্র পরিচালক

বিক্রম ভাট (জন্ম: ২৭ জানুয়ারি ১৯৬৯) হলেন একজন ভারতীয় চলচ্চিত্র পরিচালক, প্রযোজক ও চিত্রনাট্যকার। তিনি কয়েকটি চলচ্চিত্রে অভিনয়ও করেছেন। তিনি গুলাম (১৯৯৮) ও রাজ (২০০২) চলচ্চিত্রের জন্য দুইবার শ্রেষ্ঠ পরিচালক বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। তার পরিচালিত কয়েকটি ব্যবসাসফল চলচ্চিত্র হল ১৯২০ (২০০৮), শাপিত (২০১০), হন্টেড - থ্রিডি (২০১১) ও রাজ থ্রিডি (২০১২)।

বিক্রম ভাট
Vikram bhatt.jpg
জন্ম (1969-01-27) ২৭ জানুয়ারি ১৯৬৯ (বয়স ৫২)
পেশাচলচ্চিত্র পরিচালক, প্রযোজক, চিত্রনাট্যকার
কর্মজীবন১৯৯২–বর্তমান
আত্মীয়দেখুন ভাট পরিবার

তিনি আসা প্রডাকশন্স অ্যান্ড এন্টারপ্রাইজেস প্রাইভেট লিমিটেডের সৃজনশীল প্রধান ছিলেন, ২০১৪ সালে তিনি এই কোম্পানি থেকে অব্যহতি নেন।[১]

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

বিক্রম ভাট ১৯৬৯ সালের ২৭শে জানুয়ারি মহারাষ্ট্রের বোম্বে শহরে জন্মগ্রহণ করেন।[২] তার পিতা চিত্রগ্রাহক প্রবীণ ভাট। তার পিতামহ বিজয় ভাট ভারতীয় চলচ্চিত্র শিল্পের অগ্রদূতদের একজন।[৩]

কর্মজীবনসম্পাদনা

ভাট ১৯৮২ সালে ১৪ বছর বয়সে[৪] পরিচালক মুকুল আনন্দের সহকারী হিসেবে আনন্দের প্রথম চলচ্চিত্র কানুন ক্যায়া করেগা দিয়ে তার কর্মজীবন শুরু করেন। ভাট এরপর আনন্দের প্রধান সহকারী হিসেবে অগ্নিপথ চলচ্চিত্রে কাজ করেন। চলচ্চিত্রে বক্স অফিসে সফল না হলেও কাল্ট ক্লাসিকে পরিণত হয়।

তিনি ১৯৯২ সালে মুকেশ ভাটের প্রযোজনায় জনম চলচ্চিত্র দিয়ে পূর্ণ পরিচালক হিসেবে আবির্ভূত হন। তার প্রথম চারটি চলচ্চিত্র বক্স অফিসে ব্যর্থ হয়।[৫] তার পরিচালিত প্রথম সফল চলচ্চিত্র ছিল ফারেব (১৯৯৬)। এরপর তার পরিচালিত গুলাম (১৯৯৮), কসুর (২০০১), রাজ (২০০২) ও আওয়ারা পাগল দিওয়ানা (২০০২) চলচ্চিত্রগুলো সফলতা লাভ করে।[৫] গুলামরাজ চলচ্চিত্রের জন্য তিনি দুইবার শ্রেষ্ঠ পরিচালক বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। আওয়ারা পাগল দিওয়ানা চলচ্চিত্রের পর তার পরিচালিত আপ মুজে অচ্চে লগনে লগে, দিওয়ানে হুয়ে পাগলআনকাহি চলচ্চিত্রগুলো বক্স অফিসে ব্যর্থ হয়।[৫] ২০০৮ সালে তিনি রোমহর্ষক ধারা নিয়ে ফিরে আসেন এবং তার পরিচালিত ১৯২০ (২০০৮) ও শাপিত (২০১০) ব্যবসাসফল হয়। ২০১০ সালে তিনি ভারতে প্রথমবারের মত স্টেরিওস্কোপিক ত্রিমাত্রিক চলচ্চিত্র নিয়ে আসেন। এই ধারার প্রথম চলচ্চিত্র হন্টেড - থ্রিডি ২০১১ সালের মে মাসে মুক্তি পায়,[৬] এবং বক্স অফিসে ২৭০ মিলিয়ন রুপী আয় করে সে সময়ে সর্বকালের সর্বোচ্চ আয়কারী হিন্দি রোমহর্ষক চলচ্চিত্রের রেকর্ড গড়ে।[৭]

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

ভাট তার কিশোর বয়সের প্রেমিকা অদিতি ভাটকে বিয়ে করেন। তাদের এক কন্যা রয়েছে, তার নাম কৃষ্ণা ভাট। পরবর্তীকালে ভাট অমিষা পটেলের সাথে পাঁচ বছর প্রেমের সম্পর্কে লিপ্ত ছিলেন।[২] ভাট তার কন্যার সাথে খুবই ঘনিষ্ঠ এবং তার কন্যা তার সহকারী হিসেবে কাজ করে থাকেন।

পুরস্কার ও মনোনয়নসম্পাদনা

বছর পুরস্কার চলচ্চিত্র ফলাফল
১৯৯৯ শ্রেষ্ঠ পরিচালক বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার গুলাম মনোনীত
২০০৩ রাজ মনোনীত
বর্ষসেরা পরিচালক বিভাগে স্টারডাস্ট পুরস্কার বিজয়ী

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Reliance upset with ASA Entertainment over 1920 London" (ইংরেজি ভাষায়)। বলিউড হাঙ্গামা। ২৭ মে ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ২ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  2. গুপ্তা, প্রিয়া (৮ সেপ্টেম্বর ২০১২)। "Ameesha and I never loved each other: Vikram Bhatt" (ইংরেজি ভাষায়)। দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ২ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  3. "Romancing The Reel" (ইংরেজি ভাষায়)। তেহেলকা। ২১ ফেব্রুয়ারি ২০০৮। ৪ ডিসেম্বর ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  4. গুপ্তা, প্রিয়া (৮ সেপ্টেম্বর ২০১২)। "Ameesha and I never loved each other: Vikram Bhatt"দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০২১ 
  5. "Vikram Bhatt Filmography"বক্স অফিস ইন্ডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০২১ 
  6. "Haunted 3D: 10 Things You Didn't Know About The Movie"কইমই। ৫ মে ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০২১ 
  7. "Haunted 3D - Movie"বক্স অফিস ইন্ডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০২১ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

টেমপ্লেট:বিক্রম ভাট