প্রধান মেনু খুলুন

বাসুদেব আচার্য

ভারতীয় রাজনীতিবিদ

বাসুদেব আচার্য (জন্ম ১১ই জুলাই ১৯৪২) একজন ভারতীয় রাজনীতিবিদ এবং ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্ক্সবাদী) রাজনৈতিক দলের নেতা।[১] তার পরিবার মূলত তামিলনাড়ুর বাসিন্দা হলেও তারা কয়েক প্রজন্ম ধরে বাংলায় বসবাস করছেন। তিনি নিজেকে বাঙালি হিসাবেই বিবেচনা করেন।

মাননীয় নেতা
বাসুদেব আচার্য
ভারতীয় সংসদ সদস্য
বাঁকুড়া
কাজের মেয়াদ
1980 - 2014
পূর্বসূরীবিজয় মন্ডল
উত্তরসূরীমুনমুন সেন
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (1942-07-11) ১১ জুলাই ১৯৪২ (বয়স ৭৭)
বেরো, পুরুলিয়া জেলা, পশ্চিমবঙ্গ
রাজনৈতিক দলভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্ক্সবাদী)
দাম্পত্য সঙ্গীরাজলক্ষ্মী আচার্য
সন্তান১ পুত্র ও ২ কন্যা
বাসস্থানকাঁটারাঙুনি, ডাকঘর আদ্রা, পুরুলিয়া জেলা
ধর্মহিন্দু
১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০০৬ অনুযায়ী
উৎস: [১]

প্রাথমিক জীবনসম্পাদনা

প্রয়াত কানাই লাল আচার্য ও শ্রীমতি কনক লতা আচার্যের পুত্র, তিনি পুরুলিয়া জেলার বেরোতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তিনি এখন থাকেন পুরুলিয়া জেলার কাঁটারাঙুনিতে, ডাকঘর আদ্রা। তিনি এম.এ এবং বি.টি.

রাজনৈতিক জীবনসম্পাদনা

তিনি ১৯৮০ সালে বাঁকুড়া নির্বাচনী ক্ষেত্র থেকে প্রথমবারের মতো সপ্তম লোকসভায় নির্বাচিত হয়েছিলেন। পরবর্তীকালে, তিনি ১৯৮৪, ১৯৮৯, ১৯৯১, ১৯৯৬, ১৯৯৮, ১৯৯৯, ২০০৪ এবং ২০০৯ সালে একই আসন থেকে লোকসভায় পুনর্নির্বাচিত হন।[২][৩] তিনি পঞ্চদশ লোকসভায় সিপিআই (এম) সংসদীয় দলের নেতা ছিলেন।[২]

তিনি রেলওয়ের কমিটির সভাপতি, এবং বিধি কমিটি, সাধারণ উদ্দেশ্য কমিটি, সংসদ কমপ্লেক্সে সুরক্ষা বিষয়ক কমিটি এবং সংসদ ভবনে জাতীয় নেতাদের প্রতিকৃতি / মূর্তি স্থাপন কমিটির সদস্য ছিলেন। তিনি সিআইটিইউ এর সর্বভারতীয় উপ-সভাপতিদের মধ্যে একজন। ১৯৮০ সালে তিনি প্রথমবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৮১ সালে, তাকে ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী)র পুরুলিয়া জেলা কমিটিতে সচিবালয়ের সদস্য করা হয়। ১৯৮৪ সালে, তিনি আবার লোকসভায় নির্বাচিত হন। ১৯৮৫ সাল থেকে তিনি সিপিআই (এম) পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটির সদস্য। তিনি ১৯৯০ থেকে ১৯৯১ সাল পর্যন্ত পাবলিক আন্ডারটেকিংস কমিটির চেয়ারম্যান হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

১৯৯০ থেকে ১৯৯৬ পর্যন্ত তিনি রেলপথ মন্ত্রকের পরামর্শক কমিটির সদস্য ছিলেন। তিনি পর্যায়ক্রমে ১৯৮৯, ১৯৯১, ১৯৯৬, ১৯৯৮, ১৯৯৯, ২০০৪ এবং ২০০৯ সালে লোকসভায় নির্বাচিত হয়েছিলেন। ১৯৯৩ থেকে ৯৬ পর্যন্ত তিনি সরকারী নিশ্চয়তা কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন। ১৯৯৬-৯৭ সালে তিনি রেল কমিটির চেয়ারম্যান, এবং শিল্প মন্ত্রকের পরামর্শক কমিটির সদস্য ছিলেন। ১৯৯৮-৯৯ সালে তিনি বিদ্যুতের উপ-কমিটি এবং শক্তি সম্পর্কিত কমিটির আহ্বায়ক ছিলেন, এবং রেলপথ মন্ত্রকের পরামর্শক কমিটির বিশেষ আমন্ত্রিত ছিলেন।

১৯৯৯-২০০৪ এর মধ্যে তিনি দরখাস্ত কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন। ২০০৪ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত তিনি চতুর্দশ লোকসভায় সিপিআই (এম)এর সংসদীয় পার্টির নেতা, লোকসভার চেয়ারম্যান এবং বেশ কয়েকটি সংসদীয় কমিটির সদস্য ছিলেন। ২০০৭ সালে তাকে রেলওয়ের কমিটির চেয়ারম্যান করা হয়। ২০০৮ সালে, তিনি কোয়েম্বাটুরএ অনুষ্ঠিত ১৯ তম পার্টির কংগ্রেসে কমিউনিস্ট পার্টি অফ ইন্ডিয়া (মার্কসবাদী)র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হিসাবে নির্বাচিত হয়েছিলেন। ২০০৯ সালে, তিনি পঞ্চদশ লোকসভায় সিপিআই (এম) এর সংসদীয় পার্টির নেতা হিসাবে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছিলেন। আগস্ট ২০০৯ সাল থেকে তিনি কৃষি কমিটির চেয়ারম্যান হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। সংসদ সদস্য হিসাবে তিনি বেশ কয়েকটি দেশ সফর করেছেন।

তিনি একজন বরিষ্ঠ ট্রেড ইউনিয়ন নেতা।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Datta, Romita (২০১৪-০৪-২১)। "In Bankura, it's a battle between the old guard and the new order"Livemint। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৪-০৩ 
  2. "Detailed Profile: Shri Basudeb Acharia"। india.gov.in website। ২৯ মার্চ ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ মার্চ ২০১০ 
  3. "Basudeb Acharia"Fifteen Lok Sabha member। westbengalelectionresult.com। ১৭ অক্টোবর ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১০ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা