ফেডারেশন কাপ (বাংলাদেশ)

বাংলাদেশের ফুটবল প্রতিযোগিতা
(বাংলাদেশ ফেডারেশন কাপ থেকে পুনর্নির্দেশিত)

ফেডারেশন কাপ (পূর্বে বাংলাদেশ ফেডারেশন কাপ নামে পরিচিত) হচ্ছে বাংলাদেশের পুরুষ ফুটবল ক্লাবের মধ্যকার আয়োজিত ফুটবল প্রতিযোগিতা। এই প্রতিযোগিতাটি ১৯৮০ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় এবং বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন কর্তৃক পরিচালিত হয়, যা দেশের সব ধরনের প্রতিযোগিতামূলক খেলার কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণ করে। দেশের বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ এবং অন্যান্য ক্লাবের দলগুলো এই প্রতিযোগিতায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে, তবে পূর্বে মাঝেমধ্যে কিছু ভারতীয় ক্লাবকে এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করার ক্ষেত্রে আমন্ত্রণ জানানো হতো।

ফেডারেশন কাপ
আয়োজকবাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন
প্রতিষ্ঠিত১৯৮০; ৪৪ বছর আগে (1980)
অঞ্চলবাংলাদেশ
দলের সংখ্যা১৩
বর্তমান চ্যাম্পিয়নবসুন্ধরা কিংস (৩য় শিরোপা)
সবচেয়ে সফল দলঢাকা আবাহনী (১২টি শিরোপা)
টেলিভিশন সম্প্রচারকটি স্পোর্টস
ওয়েবসাইটwww.bff.com.bd
২০২৩–২৪


এপর্যন্ত এই প্রতিযোগিতাটি ৭টি ক্লাব জয়লাভ করেছে, যার মধ্যে ৫টি ক্লাব একাধিকবার জয়লাভ করেছে। ঢাকা আবাহনী এই প্রতিযোগিতার ইতিহাসের সবচেয়ে সফল ক্লাব, যারা সর্বমোট ১২ বার শিরোপা জয়লাভ করেছে।[১][২][৩] দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব, যারা এপর্যন্ত ১১ বার। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস ২০২৩–২৪ মৌসুমের ফাইনালে ঢাকা মোহামেডানকে ২–১ গোলে হারিয়ে ক্লাবের ইতিহাসে তৃতীয়বারের মতো ফেডারেশন কাপের শিরোপা ঘরে তুলতে সক্ষম হয়।[৪]

বিন্যাস সম্পাদনা

ফেডারেশন কাপের প্রতিটি আসরে সর্বমোট ১৩টি দল অংশগ্রহণ করে। দলগুলোকে ৪ গ্রুপে বিভক্ত করা হয়। প্রতিটি গ্রুপ হতে দুটি দল নকআউট পর্বে খেলার জন্য উত্তীর্ণ হয়।[৫]

ফলাফল সম্পাদনা

বিজয়ী সাল ফলাফল রানার্স-আপ শীর্ষ গোলদাতা সূত্র
ঢাকা মোহামেডান[ক] ১৯৮০ ০–০ ব্রাদার্স ইউনিয়ন[ক]
ঢাকা মোহামেডান ১৯৮১ ২–০ ঢাকা আবাহনী
ঢাকা আবাহনী[ক] ১৯৮২ ০–০ ঢাকা মোহামেডান[ক]
ঢাকা মোহামেডান ১৯৮৩ ২–০ ঢাকা আবাহনী
ঢাকা মোহামেডান[খ] ১৯৮৪ ০–০[গ] ঢাকা আবাহনী[খ]
ঢাকা আবাহনী ১৯৮৫ ১–০ ব্রাদার্স ইউনিয়ন
ঢাকা আবাহনী ১৯৮৬ ২–১ ব্রাদার্স ইউনিয়ন
ঢাকা মোহামেডান ১৯৮৭ ১–০ ঢাকা ওয়ান্ডারার্স ক্লাব
ঢাকা আবাহনী ১৯৮৮ ১–০ ঢাকা মোহামেডান
ঢাকা মোহামেডান ১৯৮৯ ২–১ (অ.স.প.) ঢাকা আবাহনী
ব্রাদার্স ইউনিয়ন ১৯৯১ ০–০ (অ.স.প.)
(৪–২ পে.)
ঢাকা মোহামেডান
মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ১৯৯৪ ৩–২ ঢাকা আবাহনী
ঢাকা মোহামেডান ১৯৯৫ ০–০ (অ.স.প.)
(৬–৫ পে.)
ঢাকা আবাহনী
ঢাকা আবাহনী ১৯৯৭ ২–১ আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ
ঢাকা আবাহনী ১৯৯৯ ০–০ (অ.স.প.)
(৫–৩ পে.)
মুক্তিযোদ্ধা সংসদ
ঢাকা আবাহনী ২০০০ ২–১ ঢাকা মোহামেডান
মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ২০০১ ৩–০ আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ
ঢাকা মোহামেডান ২০০২ ২–০ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ
মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ২০০৩ ২–১ (অ.স.প.) ঢাকা মোহামেডান
ব্রাদার্স ইউনিয়ন ২০০৫ ১–০ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ
ঢাকা মোহামেডান ২০০৮ ১–১ (অ.স.প.)
(৩–২ পে.)
ঢাকা আবাহনী [৬]
ঢাকা মোহামেডান ২০০৯ ০–০ (অ.স.প.)
(৪–১ পে.)
ঢাকা আবাহনী   আলামু বুকোলা ওলালেকান (৮) [৭]
ঢাকা আবাহনী ২০১০ ৫–৩ (অ.স.প.) শেখ জামাল   জেমস মোগা (৭) [৮]
শেখ জামাল ২০১১–১২ ৩–১ বিজেএমসি দল   আসোগবা অ্যালেন (৪)
  আব্দুল রশিদ আজাগুন (৪)
  আর্নস্ট এমাকো সিনাকাম (৪)
  লাকি ডিভাইন (৪)
[৯]
শেখ রাসেল ২০১২ ২–১ (অ.স.প.) শেখ জামাল   জাহিদ হাসান এমিলি (৭)
শেখ জামাল ২০১৩ ১–০ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ   সনি নর্দে (৭) [১০]
শেখ জামাল ২০১৫ ৬–৪ (অ.স.প.) মুক্তিযোদ্ধা সংসদ   ওয়েদসন আনসেলমে (৬) [১১]
ঢাকা আবাহনী ২০১৬ ১–০ আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ   কেস্টুর একন (৪) [১২]
ঢাকা আবাহনী ২০১৭ ৩–১ চট্টগ্রাম আবাহনী   এমেকা ডার্লিংটন (৩) [১৩]
ঢাকা আবাহনী ২০১৮ ৩–১ বসুন্ধরা কিংস   সানডে চিজোবা (৬) [১৪]
বসুন্ধরা কিংস ২০১৯–২০ ২–১ রহমতগঞ্জ এমএফএস   সিডনি রিভেরা (৪) [১৫]
বসুন্ধরা কিংস ২০২০–২১ ১–০ সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব   রাউল বেসেরা (৫)
  কেনেথ ইকেচুকু (৫)
[১৬]
ঢাকা আবাহনী ২০২১–২২ ২–১ রহমতগঞ্জ এমএফএস   ডরিয়েল্টন (৪)

  ফিলিপ আদজা (৪)

ঢাকা মোহামেডান ২০২২–২৩ ৪–৪

(অ.স.প.)
(৪–২ পে.)

ঢাকা আবাহনী   সুলেমান দিয়াবাত (৮)
বসুন্ধরা কিংস ২০২৩–২৪ ২–১

(অ.স.প.)

ঢাকা মোহামেডান   ওয়াশিংটন ব্রান্ডাও (৫)
টীকা
  • ক ^ – ফলাফল সমতায় থাকায় উভয় দলকেই চ্যাম্পিয়ন হিসেবে ঘোষণা করা হয়।
  • খ ^ – দাঙ্গার ফলে ফাইনাল খেলা বাতিল করা হয়েছে, যার ফলে কোন দল চ্যাম্পিয়ন এবং রানার-আপের খেতাব লাভ করতে পারেনি।
  • গ ^ – দাঙ্গার পূর্ব পর্যন্ত খেলাটি ০–০ গোলে সমতায় ছিল।

ক্লাব অনুযায়ী সম্পাদনা

দল বিজয়ী রানার্স-আপ বিজয়ের সাল রানার্স-আপের সাল
ঢাকা আবাহনী ১২ ১৯৮২*, ১৯৮৫, ১৯৮৬, ১৯৮৮, ১৯৯৭,
১৯৯৯, ২০০০, ২০১০, ২০১৬,
২০১৭, ২০১৮, ২০২১–২২
১৯৮১, ১৯৮৩, ১৯৮৯, ১৯৯৪, ১৯৯৫,
২০০৮, ২০০৯, ২০২২–২৩
ঢাকা মোহামেডান ১১ ১৯৮০*, ১৯৮১, ১৯৮২*, ১৯৮৩, ১৯৮৭,
১৯৮৯, ১৯৯৫, ২০০২, ২০০৮, ২০০৯, ২০২২–২৩
১৯৮৮, ১৯৯১, ২০০০, ২০০৩, ২০২৩–২৪
মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ১৯৯৪, ২০০১, ২০০৩ ১৯৯৯, ২০০২, ২০০৫, ২০১৩, ২০১৫
ব্রাদার্স ইউনিয়ন ১৯৮০*, ১৯৯১, ২০০৫ ১৯৮৫, ১৯৮৬
বসুন্ধরা কিংস ২০১৯–২০, ২০২০–২১, ২০২৩–২৪ ২০১৮
শেখ জামাল ২০১১–১২, ২০১৩, ২০১৫ ২০১০, ২০১২
শেখ রাসেল ২০১২
আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ ১৯৯৭, ২০০১, ২০১৬
ঢাকা ওয়ান্ডারার্স ক্লাব ১৯৮৭
বিজেএমসি দল ২০১১–১২
চট্টগ্রাম আবাহনী ২০১৭
রহমতগঞ্জ এমএফএস ২০১৯–২০
সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব ২০২০–২১

সংস্করণ অনুসারে শীর্ষ গোলদাতা সম্পাদনা

২২ মে ২০২৪ পর্যন্ত হালনাগাদকৃত।
বছর খেলোয়াড় ক্লাব গোল
১৯৮৭   রিজভী করিম রুমি
  রুম্মন বিন ওয়ালী সাব্বির
বিআরটিসি

ঢাকা মোহামেডান

২০০১   মমিনুর রহমান মোমিন প্রান্তিক ক্রীড়াচক্র
২০০৯   আলামু বুকোলা ওলালেকান ঢাকা মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব
২০১০   জেমস মোগা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ
২০১১-১২   আসোগবা অ্যালেন
  আব্দুর রশীদ আজাগুন
  আর্নেস্ট সিয়ানকাম এমাকো
  লাকি ডিভাইন
শেখ জামাল
বিজেএমসি দল
শেখ রাসেল কেসি
রহমতগঞ্জ মুসলিম
২০১২   জাহিদ হাসান এমিলি শেখ রাসেল
২০১৩   সনি নর্দে শেখ জামাল
২০১৫   ওয়েডসন এনসেলমে শেখ জামাল
২০১৬   কেস্টার আকন আরামবাগ কেএস
২০১৭   এমেকা ডার্লিংটন ঢাকা আবাহনী
২০১৮   সানডে চিজোবা ঢাকা আবাহনী
২০১৯-২০

  সানডে রিভেরা

বাংলাদেশ পুলিশ ফুটবল ক্লাব

২০২০–২১   রাউল বেচেরা
  কেনেথ ইকেচুকবু
বসুন্ধরা কিংস
সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব
২০২১–২২   ডরিয়েল্টন
  ফিলিপ আদজাহ
ঢাকা আবাহনী
রহমতগঞ্জ মুসলিম
২০২৩–২৩   সুলেমান দিয়াবাত ঢাকা মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব
২০২৩–২৪   ওয়াশিংটন ব্রান্ডাও ঢাকা আবাহনী

পৃষ্ঠপোষক সম্পাদনা

কার্যকাল পৃষ্ঠপোষক
১৯৮০–১৯৮৮ কোন মূল পৃষ্ঠপোষক ছিল না
১৯৮৯ কোকা-কোলা
১৯৯১–১৯৯৪ কোন মূল পৃষ্ঠপোষক ছিল না
১৯৯৫ বেক্সিমকো
১৯৯৭ কোন মূল পৃষ্ঠপোষক ছিল না
১৯৯৯ পেড্রোলো পাম্প
২০০০ কোন মূল পৃষ্ঠপোষক ছিল না
২০০১ নিটল গ্রুপ
২০০২ মুক্তিযুদ্ধ সংসদ
২০০৩–২০০৫ কোহিনুর ক্যামিকাল
২০০৮–২০০৯ সিটিসেল
২০১০–২০১২ গ্রামীণফোন
২০১৩–২০১৮ ওয়ালটন গ্রুপ
২০১৯–২০২০ টিভিএস মোটর কোম্পানি
২০২০–২০২১ ওয়ালটন গ্রুপ
২০২১- বসুন্ধরা গ্রুপ

আরও দেখুন সম্পাদনা

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

  1. "Bangladesh - List of Cup Winners" [বাংলাদেশ - কাপ বিজয়ীর তালিকা] (ইংরেজি ভাষায়)। আরএসএসএসএফ। সংগ্রহের তারিখ ২৬ আগস্ট ২০১১ 
  2. "Federation Cup" [ফেডারেশন কাপ] (ইংরেজি ভাষায়)। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন। ২০১০। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ আগস্ট ২০১১ 
  3. "Federation Cup role of honor" [ফেডারেশন কাপে অর্জন] (ইংরেজি ভাষায়)। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন। ২২ অক্টোবর ২০১০। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ জানুয়ারি ২০১৩ 
  4. "মোহামেডানকে হারিয়ে ট্রেবল জয়ের স্বপ্নপূরণ কিংসের"জাগোনিউজ২৪ ডটকম। ২২ মে ২০২৪। সংগ্রহের তারিখ ২২ মে ২০২৪ 
  5. "আর্কাইভকৃত" (ইংরেজি ভাষায়)। ৬ জুলাই ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ আগস্ট ২০১০ 
  6. "Arman does it for his mom" [মায়ের জন্য আরমানের জয়]। দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ২ সেপ্টেম্বর ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ২৯ ডিসেম্বর ২০২০ 
  7. "Mohammedan keep the Cup" [মোহামেডান পুনরায় শিরোপা জয়লাভ করল]। দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ২০ অক্টোবর ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ২৯ ডিসেম্বর ২০২০ 
  8. "Fed Cup Abahani's" [ফেডারেশন কাপ আবাহনীর]। দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ৩১ অক্টোবর ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ২৯ ডিসেম্বর ২০২০ 
  9. "Classy Jamal clinch Cup" [জামালের কাপ জয়]। দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ২৫ জানুয়ারি ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ২৯ ডিসেম্বর ২০২০ 
  10. "Sk Jamal take the crown" [শেখ জামালের মুকুট জয়]। দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ১৪ ডিসেম্বর ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ২৯ ডিসেম্বর ২০২০ 
  11. "Sk Jamal retain title" [শেখ জামাল পুনরায় শিরোপা জয়লাভ করল]। দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ৬ মার্চ ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২৯ ডিসেম্বর ২০২০ 
  12. "Abahani Win Fed Cup Title" [আবাহনীর ফেডারেশন কাপ শিরোপা জয়]। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (ইংরেজি ভাষায়)। ২৭ জুন ২০১৬। ২ জুলাই ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুন ২০১৬ 
  13. "Dhaka Abahani lift 10th Fed Cup title" [ঢাকা আবাহনীর ১০ম আসরের মতো শিরোপা জয়]। ডেইলি সান (ইংরেজি ভাষায়)। ৮ জুন ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২৯ ডিসেম্বর ২০২০ 
  14. "Abahani seal hattrick title" [আবাহনীর হ্যাট্রিক শিরোপা জয়]। দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ২৪ নভেম্বর ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ২৯ ডিসেম্বর ২০২০ 
  15. "Kings clinch Fed Cup" [কিংসের ফেডারেশন কাপ জয়]। ঢাকা ট্রিবিউন (ইংরেজি ভাষায়)। ৫ জানুয়ারি ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ৫ জানুয়ারি ২০২০ 
  16. "মুকুট ধরে রাখল বসুন্ধরা কিংস"বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম। ২০২১-০১-১০। ২০২১-০১-১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-১০ 

বহিঃসংযোগ সম্পাদনা