প্রধান মেনু খুলুন

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের অধিনায়কগণের তালিকা

উইকিমিডিয়ার তালিকা নিবন্ধ

প্র্যাকটিসে মাস্রাফি মরতুজা
ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস-এর অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা-এর বিপিএল-এ অন্তত ১০টি খেলায় অধিনায়কত্ব করা খেলোয়াড়দের মধ্যে সবচেয়ে ভাল জয়ের হার রয়েছে।
মুশফিকুর রহিম
দুরন্ত রাজশাহী এবং সিলেট রয়্যালস এর হয়ে খেলা মুশফিকুর রহিম বিপিএল-এ অধিনায়ক হিসেবে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলেছেন।

ক্রিকেট খেলায় যিনি দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার পাশাপাশি কিছু অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করেন, তিনি দলের অধিনায়ক[১][২]বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএল) হল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) আয়োজিত একটি পেশাদার টুয়েন্টি২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট। ২০১২ সালের প্রথম আসরের পর থেকে প্রতিবছর বিপিএল অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। [৩] এখন পর্যন্ত হওয়া দুই আসরে ২৬ জন খেলোয়াড় অন্তত ১ টি ম্যাচের জন্য হলেও অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।[৪]

২০১১ সাল হতে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল-এর বর্তমান অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম, অধিনায়ক হিসেবে বিপিএল-এ সবচেয়ে বেশি ম্যাচে অংশগ্রহণ করেছেন। বিপিএল-এ খেলা ২৪ টি ম্যাচের প্রতিটিতেই তিনি অধিনায়ক ছিলেন এবং তার সর্বমোট জয়ের হার ৬৬.৬৬%। ১০০% জয়ের হার নিয়ে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস-এর মোশাররফ হোসেন এর বিপিএল-এ সবচেয়ে ভাল জয়ের হার রয়েছে। যদিও তিনি মাত্র একটি ম্যাচে অধিনায়কত্ব করেছেন। অন্তত ১ টি ম্যাচের অধিক ম্যাচে দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন, তাদের মধ্যে ব্রেন্ডন টেলর-এর জয়ের হার সবচেয়ে ভাল। তার জয়ের হার ৬ ম্যাচে ৮৩.৩৩%। তবে যারা অন্তত ১০ টি ম্যাচে অধিনায়কত্ব করেছেন তাদের মধ্যে মাশরাফি বিন মর্তুজা-এর বিপিএল-এ সবচেয়ে ভাল জয়ের হার রয়েছে। ২১ টি ম্যাচে তার জয়ের হার ৭৬.১৯%। মুশফিকুর রহিম ও মাশরাফি বিন মর্তুজা উভয়েই ১৬ টি করে ম্যাচে অধিনায়ক হিসেবে জয় পেয়েছেন। একইভাবে অন্তত ১০টি ম্যাচে অধিনায়কত্ব করা খেলোয়াড়দের মধ্যে শাহরিয়ার নাফীস-এর বিপিএল-এ সবচেয়ে খারাপ জয়ের হার রয়েছে। ১৪ টি ম্যাচে তার জয়ের হার ২৮.৫৭%। ১০টি করে পরাজয় নিয়ে শাহরিয়ার নাফীস ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ অধিনায়ক হিসেবে হারের তালিকায় সবার উপরে। শুধুমাত্র অলোক কাপালি, শাহরিয়ার নাফীস, মুশফিকুর রহিম এবং লু ভিনসেন্ট দুটি দলের হয়ে বিপিএল-এ অধিনায়কত্ব করেছেন। অলোক কাপালি ও লু ভিনসেন্ট উভয়েই বরিশাল বার্নার্সসিলেট রয়্যালস-এর হয়ে অধিনায়কত্ব করেছেন। শাহরিয়ার নাফীস বরিশাল বার্নার্স ও খুলনা রয়েল বেঙ্গলস-এর অধিনায়কত্ব করেছেন। অপরদিকে মুশফিকুর রহিম দুরন্ত রাজশাহী ও সিলেট রয়েলস-কে নেতৃত্ব দিয়েছেন। [৪]

পিটার ট্রেগো অধিনায়ক হিসেবে কোন জয় ছাড়া সবচেয়ে বেশি ম্যাচে অংশ নিয়েছেন। তিনি ৫ টি ম্যাচে তার দলকে নেতৃত্ব দেন এবং ৫টিতেই তার দল পরাজিত হয়। ৬ জন খেলোয়াড় সিলেট রয়ালস-কে, ৫ জন খেলোয়াড় দুরন্ত রাজশাহী-কে, ৪ জন খেলোয়াড় বরিশাল বার্নার্স-কে, তিনজন করে খেলোয়াড় চিটাগাং কিংস, ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস ও খুলনা রয়েল বেঙ্গলস এবং ২ জন খেলোয়াড় রংপুর রাইডার্স-কে নেতৃত্ব দিয়েছেন। অন্তত এক ম্যাচে হলেও অধিনায়কত্ব করা এই ২২ জনের মধ্যে ১৬ জন বাংলাদেশের খেলোয়াড়। বাকি ৬ জনের মধ্যে ২ জন শ্রীলঙ্কার এবং ১ জন করে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড ও জিম্বাবুয়ের। [৪]

এই তালিকায় তারাই স্থান পেয়েছেন যারা বিপিএল-এ তাদের দলকে অন্তত এক ম্যাচের জন্য হলেও নেতৃত্ব দিয়েছেন। এই তালিকা তৈরি করা হয়েছে ম্যাচের সংখ্যার ভিত্তিতে। যদি কোন ক্ষেত্রে ম্যাচের সংখ্যা সমান হয়ে যায় সে ক্ষেত্রে জয়-পরাজয়ের হারের ভিত্তিতে শ্রেণী বিন্যাস করা হয়েছে। এর পরেও কোন ক্ষেত্রে সমান থাকলে নামের শেষাংশের ভিত্তিতে শ্রেণী বিন্যাস করা হয়েছে। [দ্রষ্টব্য ১][দ্রষ্টব্য ২]

সহায়সম্পাদনা

সহায়
চিহ্ন অর্থ
প্রথম যে সালের বিপিএল-এ প্রথমবারের মত অধিনায়কত্ব করেন
সর্বশেষ যে সালের বিপিএল-এ সর্বশেষ অধিনায়কত্ব করেছেন
ম্যাচ অধিনায়ক হিসেবে খেলা ম্যাচের সংখ্যা
দল যে দল বা দলসমুহের হয়ে অন্তত ১ ম্যাচের জন্য হলেও অধিনায়কত্ব করেছেন
জয় অধিনায়ক হিসেবে যতগুলো খেলায় জয়লাভ করেছেন
হার অধিনায়ক হিসেবে যতগুলো খেলায় পরাজিত হয়েছেন
টাই যতগুলো খেলা টাই হয়েছে
পরিত্যাক্ত যতগুলো খেলা কোন ফল ছাড়াই শেষ হয়েছে বা পরিত্যাক্ত হয়েছে
জয়ের হার অধিনায়ক হিসেবে জয়ের হার [দ্রষ্টব্য ৩]

বিপিএল অধিনায়কগণসম্পাদনা

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের অধিনায়কগণ[৪]
খেলোয়াড় জাতীয়তা [দ্রষ্টব্য ৪] প্রথম সর্বশেষ ম্যাচ দল জয় হার টাই পরিত্যাক্ত জয়ের হার
মুশফিকুর রহিম   বাংলাদেশ ২০১২ ২০১৩ ২৪ ১৬ ৬৬.৬৬
মাশরাফি বিন মর্তুজা   বাংলাদেশ ২০১২ ২০১৩ ২১ ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস ১৬ ৭৬.১৯
ব্র্যাড হজ   অস্ট্রেলিয়া ২০১২ ২০১৩ ১৮ বরিশাল বার্নার্স ৫০.০০
মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ   বাংলাদেশ ২০১২ ২০১৩ ১৮ চিটাগং কিংস ১০ ৪৪.৪৪
শাহরিয়ার নাফীস   বাংলাদেশ ২০১২ ২০১৩ ১৪ ১০ ২৮.৫৭
সাকিব আল হাসান   বাংলাদেশ ২০১২ ২০১২ ১১ খুলনা রয়েল বেঙ্গলস ৫৪.৫৪
আব্দুর রাজ্জাক   বাংলাদেশ ২০১৩ ২০১৩ ১১ রংপুর রাইডার্স ৪৫.৪৫
ব্রেন্ডন টেলর   জিম্বাবুয়ে ২০১৩ ২০১৩ চিটাগং কিংস ৮৩.৩৩
অলোক কাপালি   বাংলাদেশ ২০১২ ২০১৩ ৪০.০০
পিটার ট্রেগো   ইংল্যান্ড ২০১২ ২০১২ সিলেট রয়্যালস ০.০০
চামারা কাপুগেদারা   শ্রীলঙ্কা ২০১৩ ২০১৩ দুরন্ত রাজশাহী ৭৫.০০
মোহাম্মদ আশরাফুল   বাংলাদেশ ২০১৩ ২০১৩ ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স ২৫.০০
জহুরুল ইসলাম   বাংলাদেশ ২০১২ ২০১৩ দুরন্ত রাজশাহী ২৫.০০
তামিম ইকবাল   বাংলাদেশ ২০১৩ ২০১৩ দুরন্ত রাজশাহী ৩৩.৩৩
লু ভিনসেন্ট   নিউজিল্যান্ড ২০১৩ ২০১৩ ৫০.০০
মুক্তার আলী   বাংলাদেশ ২০১৩ ২০১৩ দুরন্ত রাজশাহী ০.০০
মোশাররফ হোসেন   বাংলাদেশ ২০১৩ ২০১৩ ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস ১০০.০০
ইমরুল কায়েস   বাংলাদেশ ২০১২ ২০১২ সিলেট রয়্যালস ০.০০
জিহান মুবারক   শ্রীলঙ্কা ২০১৩ ২০১৩ খুলনা রয়েল বেঙ্গলস ০.০০
সোহরাওয়ার্দী শুভ   বাংলাদেশ ২০১২ ২০১২ সিলেট রয়্যালস ০.০০
এনামুল হক জুনিয়র   বাংলাদেশ ২০১৩ ২০১৩ চিটাগং কিংস ০.০০
নাসির হোসেন   বাংলাদেশ ২০১৩ ২০১৩ রংপুর রাইডার্স ০.০০

টীকাসমূহসম্পাদনা

  1. অন্য কোন ভিত্তিতে তালিকাবদ্ধ করতে চাইলে কলামের পাশে  -এ ক্লিক করুন।
  2. ২০১৩ বিপিএল পর্যন্ত তথ্যের ভিত্তিতে এই তালিকা করা হয়েছে।
  3. যেসকল খেলায় কোন ফল হয় নি সেগুলো তালিকা করার সময় গননা করা হয় নি। টাই ম্যাচগুলো অর্ধ-জয় বিবেচনা করা হয়েছে।
  4. জাতীয়তা অংশের তথ্য ESPNcricinfo হতে নেয়া। এই তথ্য কোন খেলোয়াড়ের জন্মস্থান বা নাগরিকত্ব নাও দেখাতে পারে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Cricket Australia; Frank Pyke; Ken Davis (৮ মার্চ ২০১০)। Cutting Edge CricketHuman Kinetics। পৃষ্ঠা 132। আইএসবিএন 978-0-7360-7902-0। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০১৩ 
  2. Ken Davis; Neil Buszard (৫ এপ্রিল ২০১১)। Cricket: 99.94 Tips to Improve Your Game। Human Kinetics। পৃষ্ঠা 69। আইএসবিএন 978-0-7360-9078-0। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০১৩ 
  3. "Bangladesh Premier League"। Bangladesh Cricket Board। ১১ জানুয়ারি ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ জুন ২০১৪ 
  4. "Bangladesh Premier League/Records/Most matches as captain"ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৪ মে ২০১৪ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা