শ্রেষ্ঠ নারী কণ্ঠশিল্পী বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার (বাংলাদেশ)

শ্রেষ্ঠ নারী কণ্ঠশিল্পীর জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের নেপথ্য নারী কণ্ঠশিল্পীদের জন্য সর্বাপেক্ষা সম্মানীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার; যা জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের অংশ হিসাবে ১৯৭৬ সাল থেকে দেওয়া হয়। প্রথমবার এই পুরস্কার লাভ করেন সাবিনা ইয়াসমিন। তিনি সর্বাধিক ১৪ বার এই পুরস্কার লাভ করেন।[১] ১৯৮৩, ১৯৯৬, ১৯৯৭, ১৯৯৮, ১৯৯৯, ও ২০০৪ সালের চলচ্চিত্রের নেপথ্য নারী কণ্ঠশিল্পীদের কোন পুরস্কার প্রদান করা হয় নি।

জাতীয় চলচ্চিত্র শ্রেষ্ঠ নারী কণ্ঠশিল্পী পুরস্কার
প্রদানের কারণচলচ্চিত্রশিল্পে গৌরবোজ্জ্বল ও অসাধারণ অবদানের জন্য
অবস্থানঢাকা
দেশবাংলাদেশ
পুরস্কারদাতাবাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী
প্রথম পুরস্কৃত১৯৭৫
সর্বশেষ পুরস্কৃত২০১৫
বর্তমানে আধৃতপ্রিয়াংকা গোপ (অনিল বাগচীর একদিন)
ওয়েবসাইটঅফিসিয়াল ওয়েবসাইট

বিজয়ী কণ্ঠশিল্পীদের তালিকাসম্পাদনা

 
সাবিনা ইয়াসমিন সর্বোচ্চ ১৪ বার এই পুরস্কার লাভ করেন।
 
রুনা লায়লা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৭ বার এই পুরস্কার লাভ করেন।
 
ফরিদা পারভীন ১৯৯৩ সালের অন্ধ প্রেম চলচ্চিত্রের গানের জন্য এই পুরস্কার লাভ করেন।
 
মমতাজ বেগম ২০১৪ সালের নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ চলচ্চিত্রের গানের জন্য এই পুরস্কার লাভ করেন।

১৯৭০-এর দশকসম্পাদনা

বছর বিজয়ী কন্ঠশিল্পী চলচ্চিত্র গান সূত্র
১৯৭৫ সাবিনা ইয়াসমিন সুজন সখী "সব সখীরে পাড় করিতে" [১]
১৯৭৬ রুনা লায়লা দি রেইন "চঞ্চলা হাওয়ারে" [২]
১৯৭৭ রুনা লায়লা যাদুর বাঁশি "যাদু বিনা পাখি"
১৯৭৮ সাবিনা ইয়াসমিন গোলাপী এখন ট্রেনে "হায়রে কপাল মন্ধ" [১]
১৯৭৯ সাবিনা ইয়াসমিন সুন্দরী "কেউ কোন দিন আমারে তো"

১৯৮০-এর দশকসম্পাদনা

বছর বিজয়ী কন্ঠশিল্পী চলচ্চিত্র গান সূত্র
১৯৮০ সাবিনা ইয়াসমিন কসাই "ভালবাসি বলিব না আর" [১]
১৯৮১ কোন পুরস্কার দেয়া হয় নি [৩]
১৯৮২ মিতালী মুখার্জী দুই পয়সার আলতা "এই দুনিয়া এখন তো আর"
১৯৮৩ শ্রেষ্ঠ নারী কণ্ঠশিল্পীর জন্য পুরস্কার দেওয়া হয়নি
১৯৮৪ সাবিনা ইয়াসমিন চন্দ্রনাথ "এই হৃদয়ে এত যে কথার কাঁপন" [১]
১৯৮৫ সাবিনা ইয়াসমিন প্রেমিক "আমার মনের ভিতর অনেক জ্বালা"
১৯৮৬ নীলুফার ইয়াসমীন শুভদা "এত সুখ সইবো কেমন করে"
১৯৮৭ সাবিনা ইয়াসমিন রাজলক্ষী শ্রীকান্ত "শত জনমের স্বপ্ন" [১]
১৯৮৮ সাবিনা ইয়াসমিন দুই জীবন "আবার দুজনে দেখা হল"
১৯৮৯ রুনা লায়লা এ্যাক্সিডেন্ট [২]

১৯৯০-এর দশকসম্পাদনা

বছর বিজয়ী কন্ঠশিল্পী চলচ্চিত্র গান সূত্র
১৯৯০ শাহনাজ রহমতুল্লাহ ছুটির ফাঁদে "সাগরের সৈকতে"
১৯৯১ সাবিনা ইয়াসমিন দাঙ্গা "হে মাতৃভূমি" [১]
১৯৯২ সাবিনা ইয়াসমিন রাধা কৃষ্ণ "বনমালি তুমি"
১৯৯৩ ফরিদা পারভিন অন্ধ প্রেম
১৯৯৪ রুনা লায়লা অন্তরে অন্তরে "কাল তো ছিলাম ভালো" [২]
১৯৯৫ কনক চাঁপা লাভ স্টোরি [৩]
১৯৯৬ শ্রেষ্ঠ নারী কণ্ঠশিল্পীর জন্য পুরস্কার দেওয়া হয়নি
১৯৯৭ শ্রেষ্ঠ নারী কণ্ঠশিল্পীর জন্য পুরস্কার দেওয়া হয়নি
১৯৯৮ শ্রেষ্ঠ নারী কণ্ঠশিল্পীর জন্য পুরস্কার দেওয়া হয়নি
১৯৯৯ শ্রেষ্ঠ নারী কণ্ঠশিল্পীর জন্য পুরস্কার দেওয়া হয়নি

২০০০-এর দশকসম্পাদনা

বছর বিজয়ী কন্ঠশিল্পী চলচ্চিত্র গান সূত্র
২০০০ সাবিনা ইয়াসমিন দুই দুয়ারী [১]
২০০১ কনক চাঁপা প্রেমের তাজমহল "আমার প্রেমের তাজমহল"
২০০২ উমা খান হাসন রাজা [৪]
২০০৩ বেবি নাজনীন সাহসী মানুষ চাই
২০০৪ শ্রেষ্ঠ নারী কণ্ঠশিল্পীর জন্য পুরস্কার দেওয়া হয়নি
২০০৫ সাবিনা ইয়াসমিন দুই নয়নের আলো "দুই নয়নের আলো" [৫]
২০০৬ সামিনা চৌধুরী রানীকুঠির বাকী ইতিহাস "আমার মাঝে এখন নেই তো আমি"
২০০৭ ফাহমিদা নবী আহা! "লুকোচুরি লুকোচুরি গল্প"
২০০৮ কনক চাঁপা ১ টাকার বউ [৬]
২০০৯ কাজী কৃষ্ণকলি ইসলামচন্দনা মজুমদার মনপুরা "যাও পাখি বলো তারে" [৭]

২০১০-এর দশকসম্পাদনা

বছর বিজয়ী কন্ঠশিল্পী চলচ্চিত্র গান সূত্র
২০১০ শাম্মী আখতার ভালোবাসলেই ঘর বাঁধা যায় না "ভালবাসলেই ঘর বাঁধা যায় না" [৮]
২০১১ নাজমুন মুনিরা ন্যান্সি প্রজাপতি "প্রজাপতি" [৯]
২০১২ রুনা লায়লা তুমি আসবে বলে [১০]
২০১৩ রুনা লায়লা
সাবিনা ইয়াসমিন
দেবদাস "এ জীবন ধুপের মতো গন্ধ বিলায়"
"ভালবেসে একবার কাঁদালে"
[১১][১২]
২০১৪ রুনা লায়লা
মমতাজ বেগম
প্রিয়া তুমি সুখী হও
নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ
-
"নিশিপক্ষী রে"
[১৩][১৪]
২০১৫ প্রিয়াংকা গোপ অনিল বাগচীর একদিন "আমার সুখ সে তো" [১৫]

পরিসংখ্যানসম্পাদনা

একাধিকবার বিজয়ীসম্পাদনা

এখন পর্যন্ত তিনজন কণ্ঠশিল্পী একাধিকবার জাতীয় পুরস্কার পেয়েছেন।

সংখ্যা কণ্ঠশিল্পী
১৪ সাবিনা ইয়াসমিন
রুনা লায়লা
কনক চাঁপা

বয়সানুক্রমিক বিজয়ীসম্পাদনা

রেকর্ড কণ্ঠশিল্পী চলচ্চিত্র বয়স (বিজয়ের সাল) বয়োজ্যেষ্ঠ বিজয়ী সাবিনা ইয়াসমিন পুত্র ৬৫ (২০১৯)} কনিষ্ঠ বিজয়ী সাবিনা ইয়াসমিন সুজন সখী ২২ (১৯৭৬)

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. রওশন আরা বিউটি (২৪ জানুয়ারি ২০১৩)। "সংগীতের অহংকার সাবিনা ইয়াসমিন"দৈনিক আজাদী। ঢাকা, বাংলাদেশ। সংগ্রহের তারিখ ১৮ অক্টোবর ২০১৫ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. "রুনা লায়লা এক নজরে"দৈনিক প্রথম আলো। ঢাকা, বাংলাদেশ। ৯ এপ্রিল ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৮ অক্টোবর ২০১৫ 
  3. "জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রাপ্তদের নামের তালিকা (১৯৭৫-২০১২)"বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন। সংগ্রহের তারিখ ১৮ অক্টোবর ২০১৫ 
  4. "National film awards for 2002 and 2003 declared" [২০০২ ও ২০০৩ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ঘোষণা]। দ্য ডেইলি স্টার। ঢাকা, বাংলাদেশ। ২৪ নভেম্বর ২০০৪। সংগ্রহের তারিখ ১৮ অক্টোবর ২০১৫ 
  5. "National Film Awards for the last fours years announced" [চার বছরের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ঘোষণা]। দ্য ডেইলি স্টার। ঢাকা, বাংলাদেশ। ১ সেপ্টেম্বর ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ১৮ অক্টোবর ২০১৫ 
  6. "জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০০৮ ঘোষণা"প্রথম আলো। ঢাকা, বাংলাদেশ। ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ১৮ অক্টোবর ২০১৫ 
  7. "Monpura best film for 2009"বিডিনিউজ। ঢাকা, বাংলাদেশ। ২১ জুলাই ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ১৮ অক্টোবর ২০১৫ 
  8. "সেরা ছবি গহীনে শব্দ, অভিনয়ে সাকিব-পূর্ণিমা"দৈনিক আজাদী। ২২ মার্চ ২০১২। ২০১৬-১১-৩০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৮ অক্টোবর ২০১৫ 
  9. "Guerrilla bags 10 National Film Awards"বিডিনিউজ। ঢাকা, বাংলাদেশ। ১৭ মার্চ ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ১৮ অক্টোবর ২০১৫ 
  10. "'জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১২' ঘোষণা"দৈনিক ইত্তেফাক। ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৮ অক্টোবর ২০১৫ 
  11. "জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার-২০১৩"বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন। সংগ্রহের তারিখ ১৮ অক্টোবর ২০১৫ 
  12. "জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে 'মৃত্তিকা মায়া'র জয়জয়কার"বিডিনিউজ। ঢাকা, বাংলাদেশ। ১০ মার্চ ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৮ অক্টোবর ২০১৫ 
  13. "জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার-২০১৪"বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন। সংগ্রহের তারিখ ১৮ অক্টোবর ২০১৫ 
  14. "জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৪ ঘোষণা"দৈনিক জনকণ্ঠ। ঢাকা, বাংলাদেশ। ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০১৬ 
  15. "২০১৫ সালের 'জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার' ঘোষণা"দৈনিক জনকণ্ঠ। ঢাকা, বাংলাদেশ। ১৯ মে ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মে ২০১৭ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বহিঃসংযোগসম্পাদনা