বাংলাদেশে ধর্মহীনতা

বাংলাদেশের সংবিধান অনুসারে, প্রত্যেক নাগরিকের ধর্মীয় স্বাধীনতা আছে। তারা তাদের মত করে ধর্ম পালন করতে পারবে। প্রজাতন্ত্রের সংবিধান; সকল ধর্মীয় বৈষম্যকে অবৈধ ঘোষণা করেছে। তবে সাম্প্রতিক সময় গুলোতে বেশ কিছু বাংলাদেশী নাস্তিক ব্লগার ধর্মীয় মৌলবাদী দলের দ্বারা খুনের শিকার হয়েছেন।[১][২][৩][৪] ২০০৯ সালে গ্যালোপ জরিপে দেখা গিয়েছে যে, জরিপে অংশগ্রহণকারীর ৯৯ শতাংশই জানিয়েছে, তাদের ব্যক্তিগত জীবনে ধর্ম একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ,[৫] ২০১৪ সালে আরেকটি গ্যালোপ জরিপে দেখা গিয়েছে, বাংলাদেশীদের মধ্যে ৫ শতাংশ নিজেদের ধর্মহীন বলে দাবী করেন।[৬] ২০১৭ সালে আরেকটি গ্যালোপ জরিপে দেখা গিয়েছে, বাংলাদেশীদের মধ্যে ১৯ শতাংশ নিজেদের ধর্মহীন বলে দাবী করেন।[৭]

প্রেক্ষাপটসম্পাদনা

শাহবাগ আন্দোলনসম্পাদনা

২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে শীর্ষ যুদ্ধাপরাধী আব্দুল কাদের মোল্লার সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড এবং ৭১ এর মুক্তিযুদ্ধে তৎকালীন পশ্চিম পাকিস্তানকে সহযোগীতার কারণে, জামায়াতে ইসলামীকে রাজনীতি থেকে নিষিদ্ধের জন্য শাহবাগে গণ-আন্দোলন সংগঠিত হয়।[৮] ইসলামভিত্তিক দল হেফাজত ইসলাম বাংলাদেশ নাস্তিক ব্লগারদের ফাসি, ব্ল্যাসফেমী আইন প্রণয়নসহ ১৩ দফা বাস্তবায়নের জন্য ২০১৩ সালে মতিঝিলে আন্দোলন করে।[৯][১০] এরপর থেকে যেসব ধর্মনিরপেক্ষ ব্লগার শাহবাগ আন্দোলনকে সমর্থন করেছিল, তাদের উপর নানাবিধ আক্রমণ শুরু হয়।[১১] অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল উদ্বিতা প্রকাশ করে বলে, এ সহিংসতা; হিন্দুধর্মের উপরও বেড়ে গেছে।[১২][১৩]

ধর্মের কটাক্ষ কারিদের উপর সরকার কর্তৃক পদক্ষেপসম্পাদনা

২০১৩ সালে এপ্রিলের প্রথমদিকে বাংলাদেশ পুলিশ ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতদানের অযুহাতে চারজন ব্লগারকে গ্রেফতার করে। চারজন ব্লগার হলেন; সুব্রত অধিকারী শুভ, রাসেল পারভেজ, মশিউর রহমান বিপ্লব এবং আসিফ মহিউদ্দীন। 'আমার ব্লগ' নামক ব্লগ কে প্রশাসন কর্তৃক বন্ধ করে দেওয়া হয়।[১৪] ধর্মভিত্তিক দল হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ ব্লগারদের ফাসির দাবী জানায়।[১৫] বিটিআরসি কর্তৃক আসিফ মহিউদ্দীনের ব্লগ বন্ধ করে দেওয়া হয়।

হুমকি, আক্রমণ এবং নির্বাসনসম্পাদনা

১৯৯০ সালের গ্রন্থাকার তসলিমা নাসরীন বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে বিতর্কিত হয় উঠেন, "তার কবিতায় যৌনতাকে বলিষ্ঠভাবেচিত্রায়িতকরার জন্য, নিজেকে স্বঘোষিতভাবে নাস্তিক বলার জন্য এবং তার iconoclastic জীবনযাপনের জন্য"।[১৬] তিনি পত্রিকায় তার কলামে ধর্মীয় মৌলবাদের মাথাচাড়া দিয়ে উঠা, সরকারের নির্লিপ্ততার তীব্র সমালোচনা করতেন। ১৯৯২ সালের প্রথম দিকে উন্মত্ত জনতা, তার বই যেসব বইয়ের দোকান সংরক্ষণ করত, সেখানে আক্রমণ করা শুরু করে একই বছরে তিনি বইমেলায় আকস্মিক আঘাতের সম্মুখীন হন, এবং তার পাসপোর্ট বাজেয়াপ্ত করা হয়। ১৯৯৩ সালের জুলাই মাসে তার উপন্যাস লজ্জা বিভ্রান্তিকর তথ্য সম্প্রদায়ের মধ্যে ছড়ানো র অভিযোগে সরকার দ্বারা নিষিদ্ধ করা হয়।[১৭] ১৯৯৩ সালের ২৩  এ সেপ্টেম্বর তার মৃত্যুর জন্য ফতোয়া জারী করা হয়। আন্তর্জাতিক চাপের মুখে তার পাসপোর্ট ১৯৯৪ সালের এপ্রিলে ফেরত দেওয়া হয়, এর পরই তিনি ফ্রান্সে চলে যান, এবং ভারতে ফিরে আসন। ১৯৯৪ সালের ৪ঠা জুলাই তার বিরুদ্ধে এরেস্ট ওয়ারেন্ট জারী করা হয় এবং তিনি গ্রেফতার এড়াতে লুকিয়ে পরেন।[১৬] আগস্টের ৩ তারিখ তার জামিন হয়, এবং নাসরীন সুইডেন পালিয়ে যান। সেখানে কিছু বছর তিনি নির্বাসনে থাকেন। ১৯৯৮ সালে তিনি তার গুরুতর অসুস্থ মাকে দেখতে বাংলাদেশে আসেন, কিন্তু বিক্ষোভ এবং হুমকি ধামকির মুখে তাকে পুনরায় লুকিয়ে পরতে বাধ্য করা হয়। ২০০৫ সালে তিনি ভারতে চলে যান, এবং সেখানের নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করেন। আপাতত অস্থায়ীভাবে তিনি ভারতেই আছেন।[১৬]

২০০৩ সালে বাংলাদেশী গ্রন্থাকার হুমায়ুন আজাদ ধর্মীয় মৌলবাদীদের সমালোচনা করেন, এরপর তার মৃত্যুর আগ পর্যন্ত বিভিন্ন মৌলবাদীদের থেকে তিনি মৃত্যুর হুমকি পান।[১৮] ২০১৫ সালের মে থেকে হুমায়ুন আজাদের পুত্র; ব্লগার অনন্য আজাদ; ইসলামী মৌলবাদের সমালোচনা করায়, পুনরায় মৃত্যুর হুমকি পেতে থাকেন।[১৯] তাই একপ্রকার বাধ্য হয়েই তাকে ইউরোপে অভিবাসন নিতে হয়।[২০]

২০১৩ সালের ১৫ জানুয়ারী স্বঘোষিত নাস্তিক আসিফ মহিউদ্দীন,[২১] ঢাকার মতিঝিলে তার অফিসে ছুরিকাহত হন। তিনি অবশ্য সে যাত্রায় বেচে যান।[২১] মহিউদ্দীন, অনলাইনের কার্যক্রমের জন্য ববস পুরস্কার বিজয়ী হন, তিনি চরমপন্থীদের করা হিট লিস্টের শীর্ষে ছিলেন।[২২]

২০১৩ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি, আলোচিত ইসলাম বিরোধী ব্লগার আহমেদ রাজীব হায়দার, তার ঢাকা শহরে; বাসার বাইরে চাপাতি হামলায় মারা যান।[২৩]

২০১৫ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি প্রকৌশলী এবং বিখ্যাত বাংলাদেশী ব্লগার অভিজিৎ রায় এবং তার স্ত্রী বন্যা আহমেদ ঢাকাতে দুর্বৃত্তদের দ্বারা চাপাতি হাতে হামলার স্বীকার হন।[২৪][২৫] অভিজিৎ এবং তার স্ত্রী আনুমানিক রাত ৮:৩০ এর দিকে রিকশা করে একুশে বই মেলা থেকে আসছিলেন।[২৪] তারা যখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষক মিলনায়তন এর কাছে আসেন, তখনি দুর্বৃত্ত দ্বারা তারা আক্রমণের স্বীকার হন। তার স্ত্রী গুরুতর ভাবে আহত হন এবং একটি আঙুল হারান।

২০১৫ সালের ৩০ মার্চ আরেকজন ব্লগার ওয়াশিকুর রহমান, ঢাকার তেজগাঁওতে অভিজিৎ রায়ের মত খুন হন। পুলিশ দুইজন সন্দেহভাজনকে গ্রেতার করেন, এবং তাদের কাছ থেকে মাংশ কাটার ছুরি উদ্ধার করেন। সন্দেহভাজনরা বলেন, "রহমানকে তারা খুন করেছে কারণ ওয়াশিকুর ইসলামবিরোধী শ্লেষাত্মক লেখা লিখতেন।".[২৬] সন্দেহভাজনরা পুলিশকে এটা নিশ্চিত করেছে যে, তারা আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সদস্য এবং তারা নিলয়কে খুন করার আগে পনেরদিন ধরে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত হয়েছেন, কিভাবে খুন করতে হয়।[২৭]

অনন্ত বিজয় দাস নাস্তিক ব্লগার ছিলেন,[২৮] ছিলেন চরমপন্থী দের করা তালিকার মধ্যেও। ২০১৫ সালের ১২ মে সিলেটে চারজন মুখোশধারীরহামলায় তিনি নিহত হন।[২৮] অনন্ত মুক্তমনা ব্লগে লিখতেন, তিনি তিনটি বই লিখেছিলেন, যার একটি ছিল বিজ্ঞানের উপর, একটি বিবর্তনের উপর এবং অপর একটি সোভিয়েত ইউনিয়নের বিপ্লবের উপর। তিনি সিলেটের বিজ্ঞান ও যুক্তিবাদী সমিতির প্রধান ছিলেন।[২৯][৩০] তিনি যুক্তি নামক একটা সাময়িকের সম্পাদক ছিলেন।[৩০]

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Avijit Roy Hacked to death in Bangladesh"NBC News। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১৫ 
  2. "Bangladesh blogger hacked to death"CNN। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১৫ 
  3. "Bangladesh blogger Ananta Bijoy Das hacked to death"BBC News। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১৫ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  4. "Fourth secular Bangladesh blogger hacked to death"Al Jazeera News। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১৫ 
  5. Steve Crabtree। "Religiosity Highest in World's Poorest Nations"Gallup.com। সংগ্রহের তারিখ ২৭ জানুয়ারি ২০১৪ 
  6. "End of Year Survey 2014: Regional & Country Results"। ১৫ নভেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৪ জুন ২০১৭ 
  7. "Wayback Machine" (PDF)। ২০১৭-১১-১৪। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৩-২৭ 
  8. "Protesters demand death for Bangladesh war crimes Islamist"Reuters। ৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ 
  9. "Hardline Muslims rally in Bangladesh amid shutdown"USA Today। Associated Press। ৬ এপ্রিল ২০১৩। 
  10. Farid Ahmed (৮ এপ্রিল ২০১৩)। "Bangladesh Islamists rally for blasphemy law"CNN 
  11. "Activist, blogger and DW Bobs nominee Avijit Roy killed in Dhaka"Deutsche Welle। ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৫। 
  12. "Bangladesh: Wave of violent attacks against Hindu minority"Amnesty International। ৬ মার্চ ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ৯ মার্চ ২০১৩ 
  13. "Amnesty calls for protecting Hindus"bdnews24.com। ৭ মার্চ ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ৯ মার্চ ২০১৩ 
  14. Emran Hossain (4 Apri 2013)। "Bangladesh Arrests 'Atheist Bloggers,' Cracking Down on Critics"Huffington Post। সংগ্রহের তারিখ 27 January 2014  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  15. Sabir Mustafa (৬ মে ২০১৩)। "Hefazat-e Islam: Islamist coalition"BBC News। সংগ্রহের তারিখ ২৭ জানুয়ারি ২০১৪ 
  16. Margaret Bald (১ জানুয়ারি ২০০৬)। Literature Suppressed on Religious Grounds। Infobase Publishing। পৃষ্ঠা 177। আইএসবিএন 978-0-8160-7148-7। সংগ্রহের তারিখ ২৭ জানুয়ারি ২০১৪ 
  17. "Bangladesh Teacher arrested for having a copy of a book by Taslima Nasrin, – Asia News"asianews.it  অজানা প্যারামিটার |accessate= উপেক্ষা করা হয়েছে (|access-date= ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে) (সাহায্য)
  18. "Proper probe into death of Humayun Azad demanded"Daily Star। ১২ আগস্ট ২০০৯। 
  19. Hammadi, Saad (২৮ মে ২০১৫)। "Bangladeshi blogger named on hitlist warned: 'You will be next'"। সংগ্রহের তারিখ ৩ ডিসেম্বর ২০১৬ – The Guardian-এর মাধ্যমে। 
  20. Burke, Jason (২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫)। "Militant group publishes global hitlist of bloggers, activists and writers"। সংগ্রহের তারিখ ৩ ডিসেম্বর ২০১৬ – The Guardian-এর মাধ্যমে। 
  21. "'Militant atheist' blogger stabbed in Bangladesh"The Hindustan TimesAgence France-Presse। ১৫ জানুয়ারি ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ২৭ জানুয়ারি ২০১৪ 
  22. "Bloggers on hit-list posted by supposed Islamist group in Bangladesh"Reporters Without Borders। ১৯ নভেম্বর ২০১৪। ১৮ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৪ জুন ২০১৭ 
  23. "Anti-Islamist blogger killed in Bangladesh: police"Agence France-Presse। ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ২৭ জানুয়ারি ২০১৪ 
  24. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; guardian_28feb2015 নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  25. "Atheist US blogger hacked to death in Bangladesh"The Daily Telegraph। ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ 
  26. "Knife attack kills Bangladesh blogger Washiqur Rahman"BBC News। ৩০ মার্চ ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০১৫ 
  27. "Ansarullah behind Wasiq murder: DMP"The Daily Observer। Dhaka। ২ এপ্রিল ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১১ মে ২০১৫ 
  28. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; cnn_13may2015 নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  29. "Slain blogger Ananta Bijoy Das' last words in 'devil's world'"bdnews24.com। ১২ মে ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মে ২০১৫ 
  30. Saad Hammadi। "Third atheist blogger killed in Bangladesh knife attack"the Guardian। AgenceFrance-Presse। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মে ২০১৫