বর্ষণ

বায়ুর ঘনীভূত জলীয়বাষ্প যেসব উপাদানে পরিণত হয়ে ভূপতিত হয়

আবহাওয়াবিজ্ঞানের ভাষায় বর্ষণ (precipitation) হলো বায়ুমণ্ডলীয় জলীয়বাষ্পের ঘনীভবনের ফলে উৎপন্ন যেকোনো উপাদান যা মহাকর্ষীয় টানের দরুন মেঘ থেকে ভূপৃষ্ঠের দিকে পতিত হয়।[৪]

ক্লাইমেটলজিস অ্যাট হাই রেজুলেশন ফর দ্য আর্থস ল্যান্ড সারফেস এরিয়া CHELSA[১][২] তথ্য বিবরণীর ভিত্তিতে বৈশ্বিক গড় বর্ষণের চিত্র।[৩]
বর্ষণের ভিত্তিতে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ। উল্লেখ্য যে, একটি দেশের কোনো অঞ্চল ঐ দেশের অন্যান্য অঞ্চলসমূহ থেকে অধিকতর আর্দ্র হতে পারে। তাই প্রদর্শিত চিত্রটি পৃথিবীর সর্বাধিক আর্দ্র এবং শুষ্কতম অঞ্চলের সঠিক কোনো অনুমান নয়।

বৃষ্টিগুড়িগুড়ি বৃষ্টি (drizzle), তুষারপাতবৃষ্টি ও তুষারের মিশ্রিত রূপ (sleet), শিলাবৃষ্টি (hail), গুঁড়ি গুঁড়ি বরফবৃষ্টি (ice pellets), কাঁচা শিলাবৃষ্টি (graupel) হলো বর্ষণের কয়েকটি প্রধান রূপভেদ। বায়ুমণ্ডলের কোনো অংশ যখন জলীয়বাষ্প দ্বারা সম্পৃক্ত হয়ে পড়ে অর্থাৎ আপেক্ষিক আর্দ্রতা ১০০%-এ পৌঁছায় তখন বর্ষণ ঘটে। বায়ুমণ্ডলের কোনো অংশ সম্পৃক্ত হয়ে গেলে বাড়তি জলীয়বাষ্প ঘনীভূত হয়ে জলকণার তৈরি করে এবং তা সরাসরি বৃষ্টি ফোঁটার আকারে কিংবা তুষার ও বরফরূপে এবং বরফের বিভিন্ন রূপভেদের আকারে ভূপৃষ্ঠের টানে "থিতিয়ে" বা ঝড়ে পড়ে। ফলতঃ একারণে এবং জলীয়বাষ্প থিতিয়ে পড়ার মতো অবস্থায় আসতে যথেষ্ট ঘনীভূত না হওয়ার কারণে কুয়াশা এবং মিস্ট (mist) বর্ষণের অংশ বা বর্ষণ নয়, বরং এরা কোলয়েড। বায়ুর শীতলীকরণ কিংবা বায়ুতে জলীয়বাষ্পের সরবরাহ এই দুটি প্রক্রিয়া, সম্ভবপর হলে এরা একত্রে প্রযুক্ত হয়ে, বায়ুকে সম্পৃক্ত করে তুলতে সক্ষম। একটি মেঘের মধ্যে পানির ক্ষুদ্রতর ফোঁটাগুলো (droplets) বৃষ্টির অন্যান্য ফোঁটার সাথে কিংবা বরফের স্ফটিকের সাথে সংঘর্ষের মাধ্যমে একত্রিত হওয়ার ফলে বর্ষণ তার স্বরূপ লাভ করে। কোনো বিক্ষিপ্ত স্থানে অর্থাৎ একটি নির্দিষ্ট অঞ্চলে অল্প পরিসরের কিছু কিছু অংশে লাগাতার কিন্তু সংক্ষিপ্ত সময়ে তীব্র বৃষ্টিপাতকে পশলাবৃষ্টি (shower) বলা হয়।[৫]

ভূপৃষ্ঠের উপ-জমাট বায়ুর (sub-freezing air) কোনো স্তর পেরিয়ে এর উপরে লিফ্টিংয়ের মাধ্যমে অথবা অন্য কোনো উপায়ে উত্থিত আর্দ্রতা মেঘ এবং বৃষ্টিতে ঘনীভূত হতে পারে। যখন হিমায়ন বৃষ্টি সংঘটিত হয় এই প্রক্রিয়াটি সচরাচর তখন সক্রিয় থাকে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "CHELSA – Free climate data at high resolution"। www.wsl.ch। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০২২ 
  2. "CHELSA – Free climate data at high resolution"। chelsa-climate.org। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০২২ 
  3. Karger, D.N.; Schmatz, D.; Detttling, D.; Zimmermann, N.E. (২০২০)। "igh resolution monthly precipitation and temperature timeseries for the period 2006-2100"Scientific Data7 (1): 248। arXiv:1912.06037 ডিওআই:10.1038/s41597-020-00587-yপিএমআইডি 32703947 |pmid= এর মান পরীক্ষা করুন (সাহায্য)পিএমসি 7378208  |pmc= এর মান পরীক্ষা করুন (সাহায্য) 
  4. "Precipitation"Glossary of MeteorologyAmerican Meteorological Society। ২০০৯। ২০০৮-১০-০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০১-০২ 
  5. Scott Sistek (ডিসেম্বর ২৬, ২০১৫)। "What's the difference between 'rain' and 'showers'?"KOMO-TV। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ১৮, ২০১৬