বরিশাল এক্সপ্রেস

বরিশাল এক্সপ্রেস ছিল আন্তর্জাতিক যাত্রীবাহী একটি ট্রেন যা তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান (বর্তমান বাংলাদেশ) এবং ভারতে চলাচল করত। ট্রেনটি ভারতের কলকাতার সাথে বাংলাদেশের খুলনা শহরের সংযোগ রক্ষা করত। ১৯৬৫ সালের ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধের সময় এই রেলওয়ে সংযোগটি বন্ধ করে দেওয়া হয়।

বরিশাল এক্সপ্রেস
যাত্রাপথ
শুরুশিয়ালদহ
শেষখুলনা
যাত্রাপথের সেবা
আসন বিন্যাসহ্যাঁ

ইতিহাসসম্পাদনা

বরিশাল এক্সপ্রেস ১৮৮৪ সালে চালু হয়। ট্রেনটি ভারতের কলকাতা শহরের সাথে বাংলাদেশের খুলনা শহরকে সংযুক্ত করত। ১৯৬৫ সালে ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধের আগে পর্যন্ত তিনটি মালবাহী ও যাত্রীবাহী ট্রেন ভারত ও পূর্ব পাকিস্তানে চলাচল করত।

  1. ইস্টার্ন বেঙ্গল এক্সপ্রেস - শিয়ালদহ থেকে গোয়ালন্দ ঘাট পর্যন্ত, ভায়া গেদেদর্শনা
  2. ইস্ট বেঙ্গল মেল - শিয়ালদহ থেকে পার্বতীপুর পর্যন্ত, ভায়া গেদে ও দর্শনা। এবং
  3. বরিশাল এক্সপ্রেস - শিয়ালদহ থেকে খুলনা পর্যন্ত, ভায়া পেট্রাপোল-বেনাপোল[১][২]

১৯৬৫ সালের ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধের সময় এই রেলওয়ে সংযোগটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। ১৯৭২ সালে মালবাহী ট্রেন সেবার জন্য রুট ২ বছরের জন্য পুনরায় চালু হয়েছিল।

২০০০ সালের জুলাইয়ে ট্রেন যোগসূত্রটি পুনঃপ্রতিষ্ঠা করার জন্য ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল। ১৯৯৪ সাল থেকে সম্ভাব্যতা সমীক্ষা চলমান রয়েছে। ২০১৭ সালে নতুন ট্রেন হিসেবে বন্ধন এক্সপ্রেস চালু করা হয়। সীমান্তের অপেক্ষায় কয়েক ঘণ্টা না হারাতে অভিবাসন পরীক্ষা কলকাতা ট্রেন স্টেশনে সরিয়ে আনা হয়েছে।

আরো দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Sangeeta Thapliyal। "India-Bangladesh Transportation Links: A Move for Closer Cooperation"। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-১২-১০ 
  2. "Geography - International"। IRFCA। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-১২-১০