ফুলবাগান মেট্রো স্টেশন

ভূ-গর্ভস্থ মেট্রো স্টেশন

ফুলবাগান মেট্রো স্টেশন হল কলকাতা মেট্রো-এর ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো লাইনের[৩] একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূগর্ভস্ত মেট্রো স্টেশন। এই স্টেশনটি ফুলবাগান এলাকায় অবস্থিত।ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো প্রথম পর্যায় সেক্টর ফাইভ থেকে ফুলবাগান মেট্রো স্টেশন পর্যন্ত চলাচল করছে ৪ অক্টোবর ২০২০ থেকে আর এই ফুলবাগান মেট্রো স্টেশন প্রথম পর্যায়ের ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো রেলের এক মাত্র ভূগর্ভস্থ মেট্রো রেল স্টেশন।[২] মেট্রো স্টেশনটি গুরুদাস কলেজের কাছেই অবস্থিত।

ফুলবাগান মেট্রো স্টেশন
কলকাতা মেট্রো স্টেশন
Phoolbagan-Metro-Station.jpg
ফুলবাগান মেট্রো স্টেশনের প্রবশদ্বার
অবস্থান১১১, নারকেলডাঙা মেইন রোড, ফুলবাগান, কঙ্কুরগাছি, কলকাতা - ৭০০০৯৮
মালিকানাধীনকলকাতা মেট্রো রেল কর্পোরেশন
লাইনলাইন ২
প্ল্যাটফর্ম২ টি (দ্বীপ প্ল্যাটফর্ম)
রেলপথ
নির্মাণ
গঠনের ধরনভূগর্ভস্থ
গভীরতা১৮ মিটার (৫৯ ফু)
প্ল্যাটফর্মের স্তর
পার্কিংনা
সাইকেলের সুবিধানা
প্রতিবন্ধী প্রবেশাধিকারহ্যাঁ Handicapped/disabled access
অন্য তথ্য
অবস্থাপরীক্ষামূলক ট্রেন চলাচল
ভাড়ার স্থানকলকাতা মেট্রো
ইতিহাস
চালু৪ অক্টোবর ২০২০[১][২]
বৈদ্যুতীকরণ২৯ মে ২০১৯
পরিষেবা
পূর্ববর্তী স্টেশন   কলকাতা মেট্রো   পরবর্তী স্টেশন
লাইন ২
অবস্থান

ইতিহাসসম্পাদনা

১৯৬৯ সালে কলকাতার যানজট সমস্যা সমাধানে মেট্রোপলিটান ট্রান্সপোর্ট প্রজেক্ট (রেলওয়ে) নামে একটি প্রকল্প গৃহীত হয়। এই প্রকল্পের প্রতিবেদনে কলকাতার যানজট সমস্যার সমাধানে দ্রুতগামী গণপরিবহন ব্যবস্থা চালু করা ছাড়া অন্য কোনো বিকল্প পথ নেই বলে জানানো হয়। ১৯৭১ সালে প্রকাশিত প্রকল্পের মাস্টার প্ল্যানে কলকাতার জন্য মোট ৯৭.৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য্যের পাঁচটি মেট্রো লাইনের প্রস্তাব দেওয়া হয়।[৪] এই পাঁচটি পথের মধ্যে বিধাননগর থেকে হাওড়া পর্যন্ত মেট্রো রেলপথের কথা বলা হয়। কিন্তু সেই সময়ে এই মেট্রো রুট নির্মাণে গুরুত্ব পায়নি।

জানুয়ারী ২০০৪ সালে, প্যাসিফিক কনসালটেন্ট ইন্টারন্যাশনাল গ্রুপ মেট্রো লাইনের জন্য একটি সম্ভাব্যতা গবেষণা পরিচালনা করে। এর পর সংস্থাটি হুগলি নদীর নিচে রাস্তা ও সুড়ঙ্গ নির্মাণের প্রস্তাব করে।

২০০৯ সালে পূর্ব-পশ্চিম মেট্রো রুটের নির্মাণ শুরু হয়। এই রুটে ফুলবাগান মেট্রো স্টেশনটি অন্তর্ভুক্ত করা হয়। স্টেশনের নির্মাণ কাজ শুরু হয় ২০১১ সালে। স্টেশনটি ২০১৪ সালে চালু করার কথা বলা হলেও স্টেশনের নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ না হওয়ায় স্টেশনটি চালু করা সম্ভব হয়নি।[৫] তবে পরবর্তীতে এটি ২০১৫ সালের মধ্যে চালু করার কথা বলা হয়। কিন্তু ওই সময়ে প্রকল্প শেষ কর্তে নির্মান সংস্থা ব্যর্থ হয়।

২৯ মে ২০১৯ সালে স্টেশনের তৃতীয় রেল বা থার্ড লাইনে বিদ্যুৎ সংযোগ করা হয়। [৬] ৩১ মে ২০১৯ সালে, ফুলবাগান মেট্রো স্টেশনে দিন বেলা সাড়ে ১২টা নাগাদ ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর একটি বাতানুকূল রেক সুভাষ সরোবরের কাছে ভূগর্ভস্থ পথ দিয়ে প্রথমে ফুলবাগান স্টেশনে পৌঁছয়। পরে ওই ট্রেনটি ফুলবাগান পেরিয়ে নির্মীয়মাণ শিয়ালদহ মেট্রো স্টেশনের পূর্ব প্রান্ত পর্যন্ত গিয়ে আবার পাশের লাইন দিয়ে ফিরে আসে।[৭][৮]

২০১৯ সালের জুন মাসের মধ্যে এই প্রকল্পের প্রথম ধাপের দ্বিতীয় অংশে ফুলবাগান পর্যন্ত মেট্রো চালু হওয়ার কথা থাকলেও, আবারো স্টেশন চালু করতে ব্যর্থ হয় নির্মান সংস্থা। এর পর, অক্টোবর ২০১৯ সালের মধ্যে স্টেশনটি চালু কররা চেষ্টার ব্যর্থ হয়।[২] অবশেষে ২০২০ সালের অক্টোবরে মাসের ২০ তারিখ থেকে স্টেশনটির কার্যক্রম চালু হয়।

স্টেশনসম্পাদনা

গঠনসম্পাদনা

কলকাতা মেট্রোর লাইন ২-এর অন্তর্গত ফুলবাগান মেট্রো স্টেশনটি গঠনগতভাবে ভূর্গভস্থ মেট্রো স্টেশন। স্টেশনটির প্ল্যাটফর্ম ভূমিপৃষ্ঠ থেকে ১৮ মিটর গভীরে অবস্থিত।[৫] ফুলবাগান মেট্রো স্টেশনটি একটি দ্বীপ প্ল্যাটফর্ম নিয়ে গঠিত। এই প্ল্যাটফর্মের উভয় পাশে একটি করে মোট ২ টি রেল ট্রাক রয়েছে। স্টেশনের পশ্চিমদিকগামী রেল ট্র্যাকটি শিয়ালদহগামী ট্রেনের জন্য ব্যবহৃত হয় এবং পূর্বদিকগামী রেল ট্র্যাকটি সল্ট লেক স্টেডিয়ামগামী ট্রেনের জন্য ব্যবহৃত হয়। স্টেশনের প্ল্যাটফর্ম ১৪০ মিটার দীর্ঘ ও ১২ মিটার প্রস্ত।[৫] এই স্টেশনটির প্ল্যাটফর্মের দৈর্ঘ উত্তর-দক্ষিণ লাইনের স্টেশনগুলির প্ল্যাটফর্মের দৈর্ঘের থেকে ৩০ মিটার কম। স্টেশনটি ৫,৭২৫ বর্গ মিটার (২২৯মি x ২৫মি) এলাকা নিয়ে নির্মিত।[৫]

স্টেশন বিন্যাসসম্পাদনা

স্টেশনটি তিনটি স্তরে বিন্যস্ত রয়েছে। এই তিনটি স্তর হল ভূমি স্তর (রাস্তায় স্তর), এম বা দ্বিতীয় স্তর এবং পি বা তৃতীয় স্তর। ভূমি স্তরে স্টেশনের প্রবেশ পথের শুরু এবং প্রস্থান পথের শেষ হয়। দ্বিতীয় স্তর বা মধ্যবর্তী তলাতে মূলত টিকিট পরীক্ষা ও টিকিট ক্রয়ের ব্যবস্থা রয়েছে। তৃতীয় স্তর বা শেষ স্তরে প্ল্যাটফর্ম এবং পূর্ব ও পশ্চিমগামী দুটি রেল ট্র্যাক রয়েছে।

ভূমি রাস্তার স্তর প্রস্থান / প্রবেশ
এম মধ্যবর্তী তলা ভাড়া নিয়ন্ত্রণ, স্টেশন এজেন্ট, টিকিট / টোকেন, দোকান
পি পশ্চিমদিকগামী → শিয়ালদহ-এর দিকে → →
দ্বীপ প্ল্যাটফর্ম, দরজা বাম খুলবে   
পূর্বদিকগামী ← সল্টলেক স্টেডিয়াম-এর দিকে ←←

সংযোগগুলিসম্পাদনা

অটো রিক্সাসম্পাদনা

এই স্টেশন থেকে করুণাময়ী, বেলিয়াঘাটা, শিয়ালদহ, গণেশ টকিজ, আরজি কর হাসপাতাল রুটে অটো পরিষেবা উপলব্ধ।[৯]

বাসসম্পাদনা

১২সি/২, ৪৪, ৪৫, ২১৭বি, ২২১, ২২৩, ২৩৫, ২৫৩, ডিএন১৭, এস১২২ (মিনি), এস১৩৮ (মিনি), এস১৬৫ (মিনি), এস১৭৩ (মিনি), ডি১১এ, এসি৪৯এ নং রুটের বাসগুলি স্টেশনে বাস পরিষেবা পরিবেশন করে।[১০]

রেলসম্পাদনা

স্যার গুরুদাস বন্দ্যোপাধ্যায় হাল্ট   মেট্রো স্টেশন থেকে ৫০০ মিটার দূরে অবস্থিত।

বিমানবন্দরসম্পাদনা

নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ভিআইপি রোড এবং সি.আই.টি রোড হয়ে ১০.৬ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "মার্চের মধ্যে ফুলবাগানে ট্রেন চালাতে চাইছে মেট্রো"। eisamay.indiatimes.com/। ৩০ নভেম্বর ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২৫ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  2. অজন্তা চক্রবর্তী (৩০ নভেম্বর ২০১৯)। "East-West Metro: Launch of Phoolbagan station deferred to March" (ইংরেজি ভাষায়)। timesofindia.indiatimes.com। সংগ্রহের তারিখ ২৫ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  3. "আংশিকভাবে খুলে যাচ্ছে মেট্রোর নতুন ৪টি রুট-কাছে। ইস্ট ওয়েস্ট মেট্রো চালু হবে সেক্টর ফাইভ থেকে ফুলবাগান পর্যন্ত" 
  4. "History of Kolkata Metro"। ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ জুলাই ২০১০ 
  5. অজন্তা চক্রবর্তী (২৩ আগস্ট ২০১৯)। "1st underground Metro station in 24 years, at Phoolbagan"। timesofindia.indiatimes.com। সংগ্রহের তারিখ ২৫ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  6. অজান্তা চক্রবর্তী (২৯ মে ২০১৯)। "East-West Metro's third rail to get electrified till Phoolbagan" (ইংরেজি ভাষায়)। দ্য টাইমস অফ ইন্ডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ২৫ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  7. "সল্টলেক থেকে শিয়ালদহ মহড়া দিল নতুন মেট্রো"। আনন্দবাজার পত্রিকা। ১ জুন ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২৫ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  8. দেবরাজ মিত্র (১ জুন ২০১৯)। "East-West Metro passes underground test" (ইংরেজি ভাষায়)। দ্য টেলিগ্রাফ। সংগ্রহের তারিখ ২৫ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  9. "Auto Rickshaw Routes - Kolkata City Info"sites.google.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৬-২৯ 
  10. http://transport.wb.gov.in/transport-services/bus-services/

বহিঃসংযোগসম্পাদনা