প্রধান মেনু খুলুন

ফজল গাজী ভাওয়াল রাজ্যের প্রধান এবং গাজী বংশের শ্রেষ্ঠ শাসক ছিলেন। তিনি ঈসা খাঁর একজন অনুসারীর সন্তান ছিলেন। তিনি শেরশাহ এবং সম্রাট আকবরের সমসাময়িক। বীরত্বের জন্য খ্যাতি অর্জন করেন।[১]

জনশ্রুতি আছে এই গাজী বংশের নামানুসারেই গাজীপুরের নামকরণ করা হয়।[২][৩] ভাওয়াল পরগণা বিস্তৃত ছিল ময়মনসিংহঢাকা জেলার ৬০০ বর্গমাইল এলাকা জুড়ে।

ঈসা খাঁ-র সাথে তার খুব ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল, মোঘল সেনাপতি মানসিংহের সাথে যুদ্ধ বাঁধার আশঙ্কা দেখা দিলে ফজল গাজী ভাওয়ালের বর্জাপুর (বর্তমান বক্তারপুর) একটা নৌ পোতাশ্রয় এবং দূর্গ গড়ে তুলেন, মোঘল সাম্রাজ্যের সাথে লড়াইয়ের ব্যাপারে তারা প্রায়ই এক সাথে শলা-পরামর্শ করতেন এবং তারা বীরত্বের সাথে জোট বেঁধে লড়াই করতেন।[৪]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "ফজল গাজী"। বাংলাপিডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ৫ জুলাই ২০১৫ 
  2. "স্বাধীনচেতা বিপ্লবী বীর ঈশা খাঁ ও তাঁর সহযোদ্ধা ফজল গাজী"বিজ্ঞাপন চ্যানেল। ১০ মে ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ৫ জুলাই ২০১৫ 
  3. ইসলাম, এম নজরুল (১৭ ডিসেম্বর ২০১৪)। "গাজীপুর : ইতিহাসের পাতা থেকে"দৈনিক ভোরের কাগজ। সংগ্রহের তারিখ ৫ জুলাই ২০১৫ 
  4. রফিকুল, মোহাম্মদ (২১ জুন ২০১৪)। "সখ্যতায়-শত্রুতায় মোঘল আর গাজী"বহুমাত্রিক। সংগ্রহের তারিখ ৫ জুলাই ২০১৫ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]