পূর্ব পাকিস্তান কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী-লেনিনবাদী)

পূর্ব পাকিস্তান কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী-লেনিনবাদী) ছিলো পূর্ব পাকিস্তানের একটি কমিউনিস্ট পার্টি। পূর্ব পাকিস্তানের কমিউনিস্ট পার্টি বিভক্ত হয়ে ১৯৬৬ সালে এই দলটির উত্থান ঘটে। সুখেন্দু দস্তিদার ইপিসিপি (এম-এল) এর সাধারণ সম্পাদক হন।[১] শুরুতে এই দলের প্রধান নেতৃত্বে ছিলেন সুখেন্দু দস্তিদার, মোহাম্মদ তোয়াহা এবং আবদুল হক।[২]

পূর্ব পাকিস্তান কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী-লেনিনবাদী)
সংক্ষেপেসিপিইপি
সাধারণ সম্পাদকসুখেন্দু দস্তিদার
প্রতিষ্ঠাতাসুখেন্দু দস্তিদার
প্রতিষ্ঠা১৯৬৬
বিভক্তিপূর্ব পাকিস্তানের কমিউনিস্ট পার্টি, ১ম কংগ্রেস
ভাবাদর্শসাম্যবাদ
মার্কসবাদ–লেনিনবাদ মাও সেতুং চিন্তাধারা
রাজনৈতিক অবস্থানবামপন্থী
আনুষ্ঠানিক রঙলাল
পাকিস্তানের রাজনীতি

১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের পরে দুটি পৃথক ইপিসিপি (এম-এল) গঠিত হয়েছিল, একটি তোয়াহার নেতৃত্বে গঠিত হয়েছিল ইপিসিপি (এম-এল) যা বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী-লেনিনবাদী) নাম গ্রহণ করে এবং অন্যটির নেতৃত্বে আবদুল হকের নেতৃত্বে বিবর্তিত হয়েছিল।[৩] মোহাম্মদ তোয়াহার দল চারু মজুমদারের শ্রেণিশত্রু খতমের আদর্শের নিন্দা করেছিল।[৪]

গঠনের ইতিহাস

সম্পাদনা

বদরউদ্দিন উমরের মতে, ১৯৪৭ এর পরবর্তী প্রথম দিকে পূর্ব পাকিস্তানের কমিউনিস্টপন্থী ব্যক্তিবর্গ প্রাথমিকভাবে পূর্ব পাকিস্তান যুবলীগে যোগ দেন।[৫] পরবর্তীতে আবদুল হক, সুখেন্দু দস্তিদার ও মোহাম্মদ তোয়াহার নেতৃত্বে ১৯৬৭ সালে গড়ে ওঠে পূর্ব পাকিস্তানের কমিউনিস্ট পার্টি (এমএল)।[৬] ১৯৬৭ সালে ১-৩ অক্টোবর ১ম কংগ্রেসে মার্কসবাদ-লেনিনবাদ, মাও সেতুং এর চিন্তাধারাকে আদর্শিক ভিত্তি হিসাবে গ্রহণ করে কমরেড সুখেন্দু দস্তিদার, কমরেড মোহাম্মদ তোয়াহার নেতৃত্বে পূর্ব পাকিস্তান কমিউনিস্ট পার্টি (এম-এল) প্রতিষ্ঠিত হয়। ১ম কংগ্রেসে ৯ সদস্যবিশিষ্ট নির্বাচিত কেন্দ্রীয় কমিটি নির্বাচিত হয়। সদস্যবৃন্দ ছিলেন,

  1. সুখেন্দু দস্তিদার --সাধারণ সম্পাদক,
  2. মোহাম্মদ তোয়াহা - সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য,
  3. আবদুল হক- সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য,
  4. দেবেন শিকদার - সদস্য,
  5. অজয় ভট্টাচার্য - সদস্য,
  6. আলাউদ্দিন আহামেদ- সদস্য,
  7. শরদিন্দু দস্তিদার - সদস্য,
  8. নজরুল ইসলাম- সদস্য,এবং
  9. হাবিবুর রহমান - সদস্য।

উক্ত প্রথম কংগ্রেসে সর্বপ্রথম ‘স্বাধীন সার্বভৌম জনগণতান্ত্রিক পূর্ব বাংলা রাষ্ট্র কায়েম’-এর প্রস্তাব দেবেন শিকদার উপস্থাপন করেন এবং সর্বসম্মতিক্রমে তা গৃহীত হয়।[৭]

ভাঙ্গন

সম্পাদনা

১৯৭২ সনের শুরুতে পার্টিতে ভাঙ্গন দেখা দেয়। সুখেন্দু দস্তিদার ও মোহাম্মদ তোয়াহা নেতৃত্বে একটি অংশ সংগঠিত হয়। অন্য অংশের নেতৃত্ব দিতে থাকেন আবদুল হক, শরদিন্দু দস্তিদার, অজয় ভট্টাচার্য এবং হেমন্ত সরকার[২]

১৯৭৮ সালে হকের দল বাংলাদেশের বিপ্লবী কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী-লেনিনবাদী) নামটি গ্রহণ করে।[৮]

উল্লেখযোগ্য সদস্যবৃন্দ

সম্পাদনা

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. Amin, Md. Nurul (জুলাই ১৯৮৬)। "Maoism in Bangladesh: The Case of the East Bengal Sarbohara Party"Asian Survey। University of California Press। 26 (7): 759–773। জেস্টোর 2644210ডিওআই:10.2307/2644210 
  2. হোসেন, আমজাদ (১৯৮৯)। "পূর্ব বাংলায় নকশাল আন্দোলনের প্রভাব"। নকশালবাড়ি আন্দোলনের প্রামাণ্য তথ্য সংকলন (প্রথম প্রকাশ সংস্করণ)। পৃষ্ঠা ১৮৮–১৯২। 
  3. Rashiduzzaman, M. (ফেব্রুয়ারি ১৯৭৯)। "Bangladesh 1978: Search for a Political Party"Asian Survey। University of California Press। 19 (2): 191–197। জেস্টোর 2643785ডিওআই:10.2307/2643785 
  4. Alim, Syed Fattahul (১ ফেব্রুয়ারি ২০১২)। "Has Left Politics any Future?"Forum6 (2)। The Daily Star। ২৩ জুলাই ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জুলাই ২০১৬ 
  5. বদরুদ্দিন ওমর পূর্ব বাংলার ভাষা আন্দোলন ও তৎকালীন রাজনীতি, তৃতীয় খন্ড ১৯৮৪, পৃষ্ঠা নং ২১৪-২১৫
  6. ইসলাম, এমাদ উল্লাহ শহিদুল (২০১৩-১২-২২)। "সম্পাদকীয়-আপসহীন সংগ্রামের এক প্রতিচ্ছবি"বাংলাদেশ প্রতিদিন। ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেড। 
  7. প্রতিনিধি, জেলা (২০১২-০১-০৯)। "ব্রিটিশ বিরোধী বিপ্লবী দেবেন সিকদারের মৃত্যুবার্ষিকী সোমবার"বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম। ঢাকা: ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেড। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৪-০৬ 
  8. সালেহ আতহার খান (২০১২)। "হক, আবদুল২"ইসলাম, সিরাজুল; মিয়া, সাজাহান; খানম, মাহফুজা; আহমেদ, সাব্বীর। বাংলাপিডিয়া: বাংলাদেশের জাতীয় বিশ্বকোষ (২য় সংস্করণ)। ঢাকা, বাংলাদেশ: বাংলাপিডিয়া ট্রাস্ট, বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটিআইএসবিএন 9843205901ওএল 30677644Mওসিএলসি 883871743 

বহিঃসংযোগ

সম্পাদনা