পিস টিভি বাংলা

বাংলা ভাষার টিভি চ্যানেল

পিস টিভি বাংলা হল একটি বাংলা ভাষার ইসলামী টেলিভিশন নেটওয়ার্ক চ্যানেল। পিস টিভি বাংলা অনুষ্ঠামালা বাংলা ভাষায় সম্প্রচারিত হয় এবং কিছু কিছু অনুষ্ঠানমালা ইংরেজি ভাষা থেকে বাংলা ভাষায় অনুবাদ করে প্রচারিত করা হয়ে থাকে; বিশেষ করে জাকির নায়েকের লেকচার। পিস টিভি নেটওয়ার্কের সকল টিভি চ্যানেলসমূহ সম্পূর্ণ বিনামূল্য অনুষ্ঠান প্রচার করে। পিস টিভি বাংলা এর প্রতিষ্ঠাতা এবং সভাপতি হলেন জাকির নায়েক

পিস টিভি বাংলা
পিস টিভি বাংলা.png
উদ্বোধন২২ এপ্রিল ২০১১
মালিকানাজাকির নায়েক (প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি)
লর্ডস প্রোডাকশন লিমিটেড
ইউনিভার্সাল ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশন লিমিটেড এর একটি সহায়ক
চিত্রের বিন্যাস৫৭৬আই (এসডিটিভি)
স্লোগানমানবতার সমাধান
দেশব্রিটিশ ভারতীয়
প্রচারের স্থানএশিয়া, মধ্যপ্রাচ্যে, আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া, বাংলাদেশ
ভ্রাতৃপ্রতিম
চ্যানেল(সমূহ)
পিস টিভি, পিস টিভি উর্দু
প্রাপ্তিস্থান
টেরেস্ট্রিয়াল
কৃত্রিম উপগ্রহ
স্কাই (ইউকে)৮২২
টাটা স্কাই২০১১

২০১১ সালের ২২ এপ্রিল থেকে পিস টিভি বাংলা চ্যানেল বিশ্বব্যাপী প্রচার করা হচ্ছে, প্রধানত ইসলামী দেশগুলোর জন্য বিশেষ করে বাংলাভাষী দেশসমূহ যেমন বাংলাদেশ, ভারত সহ বিশ্বের সকল বাঙালীদের জন্য। চ্যানেলটি বিশ্বব্যাপী অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে এশিয়া, মধ্যপ্রাচ্যে, আফ্রিকা এবং অস্ট্রেলিয়া[১][২] খুব শ্রীঘ্রই এটি বিশ্বের অন্যান্য দেশেও প্রচারিত হবে। ২১শে জানুয়ারি ২০০৬ সাল থেকে এটির সহোদর চ্যানেল পিস টিভি বিশ্বের ২০০টির বেশি দেশে প্রচারিত হয়ে আসছে।[৩] যেমন: এশিয়া, ইউরোপ, আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া এবং উত্তর আমেরিকাসহ বিশ্বব্যাপী।[১][২] ২০০৯ সালে (পিস টিভি উর্দু) চালু করা হয়েছিল, যেটি বিশেষ করে বিশ্বজুড়ে উর্দু ভাষাভাষী দর্শকদের জন্য নিবেদিত। পিস টিভি নেটওয়ার্ক সরাসরি অনুষ্ঠান প্রচার করে থাকে।[৪] প্রাপ্তবয়স্ক ও তরুণদের পাশাপাশি শিশুদের জন্য শিক্ষামূলক অনুষ্ঠানমালার জন্য পিস টিভি নেটওয়ার্কের সভাপতি জাকির নায়েক প্রায়ই এটিকে একটি "শিক্ষামূলক চ্যানেল" বলে থাকেন।[৫]

২০১৬ সালের ১০ই জুলাই চ্যানেলটি বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক বাংলাদেশে সম্প্রচার নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়।[৬]

নতুন ফ্রিকোয়েন্সি ও ইতিহাসসম্পাদনা

২২ এপ্রিল ২০১১ সালে উপগ্রহ বিএডিআর-৩ নেভিগেশন আরবসাট প্রাথমিকভাবে পিস টিভি বাংলা প্রথমত চালু করা হয়েছিল; সেপ্টেম্বর ২০১২ সালে পিস টিভি পাওয়া সহজলভ্যভাবে পাওয়া যায় স্যাটেলাইট গালাক্সি ১৯, ২৪/৭, ইংরেজি, উর্দু এবং বাংলা ভাষায়। সেপ্টেম্বর ২০০৭ এর হিসাবে, পিস টিভি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডা এবং ইউকে-তে পাওয়া যায় "বিএসকেওয়াইবি" তে। এটি আরও ওভার দ্য এয়ার পাওয়া যায় (ওটিএ) নিউ ইয়র্ক, লস এঞ্জেলেস, শিকাগো, ফিলাডেলফিয়া, হাউস্টন, ডালাস, মিয়ামি, আটলান্টা এবং সিয়াটল মধ্যে। এটি লাইভস্টেশন উপগ্রহ টেলিভিশন কম্পিউটারে অ্যাপ্লিকেশন থেকে বিনামূল্যে পাওয়া যায়।[৭] চ্যানেলটি ইসলামী রিসার্চ ফাউন্ডেশন ইন্টারন্যাশনাল থেকে ডা. জাকির নায়েক মালিকানাধীন রেজিস্টার্ড চ্যারিটি থেকে ২০০৯ সালে £১.২৫ মিলিয়ন গ্রহণ করে।

বক্তাগণসম্পাদনা

  • জাকির নায়েক, (সভাপতি, আইআরএফ) (বাংলায় ডাবিং কণ্ঠদাতা: আনোয়ার শাহী)
  • শায়খ আহমাদুল্লাহ, প্রতিষ্ঠাতা, আস-সুন্নাহ ফাউন্ডেশন[৮]
  • আবুবকর মুহাম্মাদ যাকারিয়া মাদানী, অধ্যাপক, আল ফিকহ অ্যান্ড লিগ্যাল স্টাডিজ বিভাগ, আইন ও শারিয়াহ অনুষদ, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ
  • মানজুরে ইলাহী, সহযোগী অধ্যাপক, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, গাজীপুর জেলা; ইসলামী স্টাডিজ
  • মতিউর রহমান মাদানী, (শিক্ষক, জমিয়তে উল ইমাম আল বুখারী, কিষণগঞ্জ, বিহার)
  • আব্দুস সালাম আজাদী, (ভাষা হেড, জামিয়াতুল উম্মাহর স্কুল, লন্ডন)
  • আবুল কালাম আজাদ, (ষষ্ঠ ফরম ডিরেক্টর, জামিয়াতুল উম্মাহর স্কুল, লন্ডন)
  • শাইখ মুহাম্মদ আবদুর রহমান মাদানী, (জামিয়াতুল উম্মাহর বিদ্যালয় এবং ষষ্ঠ ফরম কলেজের প্রিন্সিপাল)
  • মুহাম্মাদ মুছলেহুদ্দীন, (রাজকীয় সিনিয়র কর্মকর্তা, সৌদি দূতাবাস, ঢাকা)
  • শাহ মোহাম্মদ অলিউল্লাহ, ইসলামী টিভি, পবিত্র আল কোরান (দৈনিক) অনুষ্ঠানের আলোচক
  • মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন বেলাল মাদানী, (টেলিফোন মাধ্যমে এবং খোলা প্রোগ্রাম ধর্মীয় প্রশ্নের উত্তর)
  • মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ খান মাদানী, (লেকচারার)
  • মুযাফফর বিন মুহসিন, (মুহাদ্দিছ, আল-মারকাযুল ইসলামী আস-সালাফী)
  • আব্দুর রাযযাক বিন ইউসুফ, (প্রতিষ্ঠাতা: আল-জামিআহ্ আস্-সালাফিয়্যাহ, রাজশাহী ও নারায়ণগঞ্জ শাখা)
  • আমানুল্লাহ বিন ইসমাঈল, (খত্বীব, ঢাকা)
  • জাহাঙ্গীর আলম, (খত্বীব, আল-আমীন মসজিদ, মুহাম্মাদপুর, ঢাকা)
  • মোহাম্মদ আখতার মাদানী, (দাঈ, আল ক্বাছীম, সঊদীআরব)
  • মুহাম্মদ আব্দুল কাইয়ুম, (ইমাম ও খতীব: ইস্ট লন্ডন মসজিদ ও লন্ডন মুসলিম সেন্টার)
  • মোঃ বদুরুদ্দোজা নাদভি ও সালাফি, (দাওয়াতের ও তাবলীগ সম্পর্কে বাংলায় বক্তৃতা (পশ্চিমবঙ্গ, বিহার ও আসাম)
  • হারুন হুসাইন, ইমাম, অধ্যক্ষ ও ইসলামী বক্তা
  • আহমাদুল্লাহ ত্রিশালী , (ইসলামী লেকচারার)
  • মোঃ শরফুদ্দিন , (ইসলামী লেকচারার)
  • খোন্দকার আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর, প্রয়াত ইসলামী গবেষক ও অধ্যাপক, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া
  • মামুনুল হক[৯]
  • হাসান জামিল

লোগোসমূহসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Aataai Gazi Mahbub (২০০৭-০৫-১০)। "Does 'Peace TV' Encourage Interfaith Amity?"OhMyNews। ২০১৬-০৩-০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৫-১৯ 
  2. Syed Neaz Ahmad (ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০০৭)। "Peace TV Reaching 400 Million Viewers – Dr. Zakir Naik"Saudi Gazette। ২০০৭-০৭-০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৫-১৮ 
  3. "About Peace TV"। Peacetv.in। ২০১৩-১১-২৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-১১-৩০ 
  4. "An Inter - Religious dialogue for Spiritual Enlightenment"The True Call। ডিসেম্বর ১৩, ২০০৬। ২০১৪-০১-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৫-১৯ 
  5. "British authorities consider banning Peace TV – The Express Tribune"। Tribune.com.pk। ২০১০-১১-৩০। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৪-০৫ 
  6. Times of India। "Bangladesh bans televangelist Zakir Naik's Peace TV"। সংগ্রহের তারিখ ১০ জুলাই ২০১৬ 
  7. "Schedules"। Peacetv.tv। ২০১৩-১২-০৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-১১-৩০ 
  8. "ইসলামিক কনফারেন্সে অংশ নিতে ২৮ মার্চ সাতকানিয়ায় আসছেন শায়খ আহমাদুল্লাহ"প্রবাসীর দিগন্ত। ২০২০-০৩-০৮। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৬-২৩ 
  9. "পিস টিভিতে মামুনুল হক সাহেব কি বললেন দেখেন"ইউটিউব 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা