প্রধান মেনু খুলুন

পাকুড় জেলা

ঝাড়খণ্ডের একটি জেলা

ঝাড়খণ্ড এর ২৪ টি জেলার মধ্যে পাকুড় একটি ৷ ১৯৯৪ খ্রীষ্টাব্দের ২৮ শে জানুয়ারী পুর্বতন সাহেবগঞ্জ জেলার দক্ষিণ মহকুমা পৃথক করে এই জেলাটি গঠন করা হয় ৷

পাকুড় জেলা
ঝাড়খণ্ডের জেলা
ঝাড়খণ্ডে পাকুড়ের অবস্থান
ঝাড়খণ্ডে পাকুড়ের অবস্থান
দেশভারত
রাজ্যঝাড়খণ্ড
প্রশাসনিক বিভাগসাঁওতাল পরগণা বিভাগ
সদরদপ্তরপাকুড়
তহশিল
সরকার
 • বিধানসভা আসন
আয়তন
 • মোট১৮১১ কিমি (৬৯৯ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট৯,০০,৪২২[১]
 • মূল শহর৭.৫০
জনতাত্ত্বিক
 • সাক্ষরতা৪৮.৮২ শতাংশ
 • লিঙ্গানুপাত৯৮৯
ওয়েবসাইটদাপ্তরিক ওয়েবসাইট

অবস্থানসম্পাদনা

পাকুড় জেলার উত্তরে সাহেবগঞ্জ জেলা (ঝাড়খণ্ড) , পূর্বে মুর্শিদাবাদ জেলা (পশ্চিমবঙ্গ) ও বীরভূম জেলা (পশ্চিমবঙ্গ) , উত্তর পশ্চিমে গোড্ডা জেলা (ঝাড়খণ্ড) এবং দক্ষিণ পশ্চিমে দুমকা জেলা (ঝাড়খণ্ড) অবস্থিত ৷

প্রশাসনিক বিভাগসম্পাদনা

জেলাটি ৬ টি তহশিল নিয়ে গঠিত৷ যথা -

  • পাকুড়
  • লিটিপাড়া
  • আমড়াপাড়া
  • হিরণপুর
  • মহেশপুর
  • পাকুড়িয়া

জনসংখ্যার উপাত্তসম্পাদনা

২০১১ সালের জনগণনা অনুযায়ী পাকুড় জেলার জনসংখ্যা ৯০০৪২২ যার মধ্যে ৪৫২৬৬১ জন পুরুষ ও ৪৪৭৭৬১ জন নারী ৷ ২০০১ সালের জনগণনা অনুযায়ী জেলাটির জনসংখ্যা ছিলো ৭০১৬৬৪ জন , অর্থাৎ জনবৃৃদ্ধির হার ২৮.৩৩% ৷

পর্যটন ও দর্শনীয় স্থানসম্পাদনা

যোগাযোগসম্পাদনা

ভাষাসম্পাদনা

ঝাড়খণ্ড একটি বহুভাষিক রাজ্য হওয়ার দরুন পাকুড় জেলাটিও বহুভাষিক ও বহুসাংস্কৃৃতিক ৷ প্রধান ভাষাগুলি হলো বাংলা , সাঁওতালী , খোরঠা ও হিন্দী ৷

২০১১ অনুযায়ী বিভিন্ন ভাষাসমূহ[২]

  বাংলা (৩৯.৪২%)
  সাঁওতালি (৩৬.৪০%)
  খোরঠা (১১.৮৪%)
  মালতো (৪.৯১%)
  হিন্দী (৪.৫৮%)
  উর্দু (১.৭৭%)
  অন্যান্য (১.০৮%)

ধর্মসম্পাদনা

২০১১ অনুযায়ী পাকুড় জেলার ধর্মাবলম্বী মানুষ

  হিন্দু (৪৫.৫৫%)
  মুসলিম (৩৫.৮৭%)
  সরনা (৯.৮৬%)
  খ্রীষ্টান (৮.৪৩%)
  অন্যান্য (০.২৯%)

তথ্যসুত্রসম্পাদনা