পরিণীতা (২০০৫-এর চলচ্চিত্র)

২০০৫-এর প্রদীপ সরকার পরিচালিত হিন্দি চলচ্চিত্র

পরিণীতা (হিন্দি: परिणीता) প্রদীপ সরকার পরিচালিত ২০০৫ সালের ভারতীয় হিন্দি ভাষার নাট্য চলচ্চিত্র। কথাসাহিত্যিক শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় রচিত একই নামের গল্প অবলম্বনে চলচ্চিত্রটির চিত্রনাট্য লিখেছেন বিধু বিনোদ চোপড়া ও প্রদীপ সরকার। এতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন বিদ্যা বালান, সাইফ আলী খান, সঞ্জয় দত্ত, সব্যসাচী চক্রবর্তী, রাইমা সেন, এবং পার্শ্ব চরিত্রে দিয়া মির্জা। ভারতীয় সাহিত্য ও সিনেমার বেশ কিছু উল্লেখযোগ্য ইঙ্গিত রয়েছে এই সিনেমাটিতে। এটি ২০০৫ সালের ১০ জুন ভারতে মুক্তি পায়। পরিচালক প্রদীপ সরকার ছবিটি পরিচালনার জন্য ৫৩তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে পরিচালকের শ্রেষ্ঠ প্রথম চলচ্চিত্রের জন্য ইন্দিরা গান্ধী পুরস্কার লাভ করেন।[৩] এছাড়া ছবিটি পাঁচটি বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার, পাঁচটি বিভাগে ভারতীয় আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র পুরস্কার, দুটি বিভাগে জি সিনে পুরস্কার ও দুটি বিভাগে স্ক্রিন পুরস্কার লাভ করে।

পরিণীতা
প্রেক্ষাগৃহে মুক্তির পোস্টার
परिणीता
পরিচালকপ্রদীপ সরকার
প্রযোজকবিধু বিনোদ চোপড়া
চিত্রনাট্যকারবিধু বিনোদ চোপড়া
প্রদীপ সরকার
উৎসশরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় কর্তৃক 
পরিণীতা
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারশান্তনু মৈত্র
চিত্রগ্রাহকনটরাজন সুব্রামানিয়াম
সম্পাদকহেমন্তি সরকার
নিতিশ শর্মা
পরিবেশকবিনোদ চোপড়া প্রোডাকশন্স ইউটিভি মোশন পিকচার্স (আন্তর্জাতিক)
মুক্তি১০ জুন ২০০৫[১]
স্থিতিকাল১৩০ মিনিট
দেশভারত
ভাষাহিন্দি
আয়₹ ৩২.৬৩ কোটি[২]

কাহিনী সংক্ষেপ

সম্পাদনা

বিংশ শতাব্দীর প্রথম দিকে কলকাতা। শেখর আর গায়েত্রীর বিয়ের রাত। শেখর এই অনুষ্ঠানের জন্য তৈরি হচ্ছে। এমন সময় তার মনে ললিতার ছবি উঁকি দেয়। শেখর সিঁড়ি দিয়ে নিচে নামার সময় তার বসুন্ধরার সাথে দেখা হয়। বসুন্ধরা তার প্রতিবেশী গুরুচরণের বিধবা স্ত্রী। ললিতাও সেখানে উপস্থিত হয় এবং তাকে জিজ্ঞাসা করে সে তার প্রতি এত উদাসীন কেন। শেখর সে কেন অন্য কাউকে বিয়ে করেছে এই অনুযোগ করে। শেখর রাগান্বিত হয়ে সেখান থেকে বাড়ি ফিরে আসে এবং তার পিয়ানো নিয়ে তার খুবই প্রিয় একটি সুর বাজাতে থাকে। ফ্ল্যাশব্যাকে দেখা যায় কিশোর শেখর পিয়ানোতে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের একটি গানের সুর তুলছে আর কিশোরী ললিতা ও কোয়েল তা শুনছে।

ললিতা তার বাবা মা এক গাড়ি দুর্ঘটনায় মারা যাওয়ার পর তার মামা গুরুচরণের পরিবারে আসে। কোয়েল তার মামাতো বোন এবং চারু তাদের প্রতিবেশী। সময় যেতে থাকে ললিতা ও শেখরের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে ওঠে। শেখর তার বাবার ব্যবসায়ের দেখাশুনা না করে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ও এলভিস প্রেসলির গান নিয়ে এবং ললিতাকে নিয়ে তার নিজের গানের সুর করে সারাদিন কাটায়। শেখরের বাবা চায় শেখর তার বন্ধুর মেয়ে গায়েত্রী তান্থিয়াকে বিয়ে করুক। অন্যদিকে, লন্ডন ফেরত স্টিল ব্যবসায়ী গিরিশ চারুদের বাড়িতে আসে। গিরিশ ললিতাকে পছন্দ করে আর কোয়েল গিরিশকে। শেখর গিরিশের সাথে ললিতার বন্ধুত্বকে ঈর্ষা করে।

গুরুচরণ নবীন রায়ের কাছ থেকে অনেক টাকা বন্ধকী ঋণ নিয়েছিল। এই ঋণ পরিশোধ করতে এগিয়ে আসে গিরিশ। এক রাতে, ললিতা ও শেখর গোপনে বিয়ে করে। শেখর কয়েক দিন পর একটি ব্যবসায় সফরে দার্জিলিং যায়। ইতিমধ্যে নবীন রায় তার ব্যবসায়ের ক্ষতির জন্য ললিতা ও গুরুচরণকে অপদস্ত করে। অপমান সহ্য করতে না পেরে ললিতার মামা হার্ট অ্যাটাকে মারা যান। মৃত্যুর সময় গুরুচরণ গিরিশকে ললিতাকে বিয়ে করতে বলে এবং এই পরিবারের দায়িত্ব নিতে বলে। শেখর দার্জিলিং থেকে ফিরে তাদের বিয়ের কথা জেনে তার বাবার মত সেও ললিতাকে অপমান করে এবং তার বাবার পছন্দের গায়েত্রীকে বিয়ে করতে রাজি হয়। পরে শেখরের সামনে সকল সত্য তুলে ধরা হলে সকল ভুলের অবসান হয়।

কুশীলব

সম্পাদনা
  • ললিতা রায়ের চরিত্রে বিদ্যা বালান । শেখরের প্রতি অদম্য ভালবাসা সহ মর্যাদার মহিলা। একজন সুন্দর গায়িকা, যিনি পরিস্থিতির কাছে পদত্যাগ করেছিলেন, যখন তিনি অপমানের মুখোমুখি হন তখন তার সম্মান বজায় রেখেছিলেন।
  • শেখর রায়ের চরিত্রে সাইফ আলি খান । ললিতার প্রতি ভালবাসা এবং গিরিশের প্রতি ঈর্ষার ভারসাম্য দেখায়। তিনি একজন অনুরাগী সঙ্গীতজ্ঞ। শেষ পর্যন্ত নিজের প্রতি তার চরম ঘৃণা তাকে ঠাণ্ডা এবং তিক্ত ব্যক্তিতে রূপান্তরিত করে।
  • গিরিশ শর্মা চরিত্রে সঞ্জয় দত্ত । একজন সহজ-সরল ব্যবসায়ী যিনি ললিতার নৈতিক সমর্থনে উষ্ণতা ও মমতায় অভিনয় করেন।
  • কোয়েলের চরিত্রে রাইমা সেন । ললিতার কৌতুকপূর্ণ, দুষ্টু এবং হাসিখুশি চাচাতো ভাই যিনি প্রাণবন্ত, প্রাণবন্ত এবং প্রতি মুহূর্তে বেঁচে থাকেন।
  • গায়ত্রী তাঁতিয়ার চরিত্রে দিয়া মির্জা । একজন বিপথগামী সোশ্যালাইট যিনি শেখরকে তার কমনীয়তা এবং সৌন্দর্য দিয়ে প্রলুব্ধ করেন।
  • গুরচরণ চরিত্রে অচ্যুত পোতদার ।
  • নবীনচন্দ্র রায়ের চরিত্রে সব্যসাচী চক্রবর্তী । হৃদয়ে ঠাণ্ডা, একজন বুদ্ধিমান এবং ছলচাতুরী ব্যবসায়ী যিনি এমনকি মানুষের মূল্যবোধ এবং সম্পর্ককে অর্থের লোভের নিচে রাখেন।
  • রাজেশ্বরী রায়ের চরিত্রে সুরিন্দর কৌর। শেখরের মা যিনি অবজ্ঞার সাথে দেখেন যে তার স্বামী প্রতিবেশীদের সাথে কতটা খারাপ আচরণ করে এবং অসুস্থ হয়ে পড়ে।
  • বসুন্ধরা রায়ের চরিত্রে কুমকুম ভট্টাচার্য।
  • বসুন্ধরার মেয়ের চরিত্রে ঐন্দ্রিলা সাহা।
  • কিশোরী ললিতার চরিত্রে টিনা দত্ত
  • সুনিতার চরিত্রে সুপ্রিয়া শুক্লা
  • শেখরের দাদির চরিত্রে গীতা দে ।
  • অজিতের চরিত্রে নিনাদ কামত
  • "ক্যাসি পহেলি জিন্দাগানি" গানে বিশেষ ভূমিকায় রেখা
  • ‘ধিনক ঝিনক ধা’ গানে বিশেষ ভূমিকায় রিতা গাঙ্গুলী ।
  • স্যার উইলিয়াম একহার্টের চরিত্রে জর্জ বেকার
  • রেকর্ডিং স্টুডিওতে গায়ক হিসেবে খরাজ মুখার্জি

উৎপাদন

সম্পাদনা

সঙ্গীত

সম্পাদনা

পরিণীতা চলচ্চিত্রের গানের সুর ও সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন শান্তনু মৈত্র। গানের কথা লিখেছেন স্বনন্দ কিরকিরে। চলচ্চিত্রে সাতটি গান রয়েছে। ২০০৫ সালের এপ্রিল মাসে গানগুলো প্রকাশ করে টিপস মিউজিক[৪]

গানের তালিকা

সম্পাদনা
নং.শিরোনামকণ্ঠশিল্পীদৈর্ঘ্য
১."পিয়ু বলে"সনু নিগমশ্রেয়া ঘোষাল৪:২১
২."কাস্তো মাজা"সনু নিগম ও শ্রেয়া ঘোষাল৪:৪৩
৩."সুনা মন কা অঙ্গন"সনু নিগম ও শ্রেয়া ঘোষাল৪:২০
৪."ক্যায়সি পহেলি জিন্দগানি"সুনিধি চৌহান৪:০৩
৫."রাত হামারি তো"কে. এস চিত্রাস্বনন্দ কিরকিরে৫:১৯
৬."ধিনাক ধিনাক ধা"রিতা গাঙ্গুলি৩:৫৩
৭."হুই ম্যাঁ পরিণীতা"সনু নিগম ও শ্রেয়া ঘোষাল২:২৩

মুক্তি

সম্পাদনা

পরিণীতার ডিভিডি সংস্করণের প্রথম সংস্করণটি ইউটিভি মোশন পিকচার্স ৩০ অক্টোবর ২০০৬-এ প্রকাশ করেছিল । এতে ইংরেজি, আরবি, স্প্যানিশ, জার্মান, ইতালীয়, মালয় এবং ফরাসি ভাষায় সাবটাইটেল বিকল্প রয়েছে। একটি অতিরিক্ত ডিস্ক অভিনেতাদের সাথে সাক্ষাত্কার এবং ফিল্ম তৈরির নেপথ্যের দৃষ্টিভঙ্গি অন্তর্ভুক্ত করে। এটি 16:9 অ্যানামরফিক ওয়াইডস্ক্রিন , ডলবি ডিজিটাল 5.1 সার্উন্ড , প্রগতিশীল 24 FPS , ওয়াইডস্ক্রিন এবং NTSC ফরম্যাটে উপলব্ধ।[৫] ফিল্মটি নেটফ্লিক্সেও পাওয়া যায়।[৬]

পুরস্কার

সম্পাদনা
পুরস্কার প্রদানের তারিখ বিভাগ মনোনীত ফলাফল
ফিল্মফেয়ার পুরস্কার[৭] ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০০৬ শ্রেষ্ঠ অভিষেক অভিনেত্রী বিদ্যা বালান বিজয়ী
শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালক শান্তনু মৈত্র বিজয়ী
শ্রেষ্ঠ নৃত্য পরিচালক হাওয়ার্ড রোসমেয়ার বিজয়ী
শ্রেষ্ঠ শব্দগ্রহণ বিশ্বদীপ চ্যাটার্জি বিজয়ী
শ্রেষ্ঠ শিল্প নির্দেশনা কেষ্ট মণ্ডল, এলরিজ রদ্রিগেজ, তনুশ্রী সরকার বিজয়ী
জি সিনে পুরস্কার[৮][৯] ৬ মার্চ, ২০০৬ শ্রেষ্ঠ সম্ভাবনাময় পরিচালক প্রদীপ সরকার বিজয়ী
শ্রেষ্ঠ সম্ভাবনাময় অভিনেত্রী বিদ্যা বালান বিজয়ী
শ্রেষ্ঠ নারী নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী শ্রেয়া ঘোষাল (গানঃ "পিয়ু বলে") বিজয়ী
শ্রেষ্ঠ গীতিকার স্বনন্দ কিরকিরে (গানঃ "পিয়ু বলে") বিজয়ী
শ্রেষ্ঠ সংলাপ রেখা নিগম ও বিধু বিনোদ চোপড়া বিজয়ী
শ্রেষ্ঠ পোশাক পরিকল্পনা সুবর্ণা রায় চৌধুরী বিজয়ী
ভারতীয় আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র পুরস্কার[১০] ১৫-১৭ জুন, ২০০৬ শ্রেষ্ঠ চিত্রনাট্য বিধু বিনোদ চোপড়া ও প্রদীপ সরকার বিজয়ী
শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত গ্রহণ বিশ্বদীপ চ্যাটার্জি বিজয়ী
শ্রেষ্ঠ শিল্প নির্দেশনা কেষ্ট মণ্ডল, এলরিজ রদ্রিগেজ বিজয়ী
শ্রেষ্ঠ পোশাক পরিকল্পনা সুবর্ণা রায় চৌধুরী বিজয়ী
শ্রেষ্ঠ রূপসজ্জা বিদ্যাধর ভাট্টি বিজয়ী
বছরের শ্রেষ্ঠ নারী অভিষেক বিদ্যা বালান বিজয়ী
স্ক্রিন পুরস্কার[১১] ২০০৬ শ্রেষ্ঠ নারী অভিষেক বিদ্যা বালান বিজয়ী
শ্রেষ্ঠ নারী নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী শ্রেয়া ঘোষাল (গানঃ "পিয়ু বলে") বিজয়ী

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. "Parineeta (2005)"বক্সঅফিসইন্ডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ২৮ মে ২০১৭ 
  2. "Parineeta (2005)"নাম্বারস। সংগ্রহের তারিখ ২৮ মে ২০১৭ 
  3. "National awards: Big B, Sarika win top honours"দ্য টাইমস অফ ইন্ডিয়া। ৮ আগস্ট ২০০৭। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৭ 
  4. "Music Review – Parineeta"প্ল্যানেট বলিউড। সংগ্রহের তারিখ ২৮ মে ২০১৭ 
  5. "Parineeta" (Hindi ভাষায়)। 
  6. "Watch Parineeta | Netflix"www.netflix.com (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২৩-০১-২৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২৩-০১-২৯ 
  7. "Film Fare Awards 2005"ওয়েব ইন্ডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৭ 
  8. "LUX ZEE CINE AWARD WINNERS 2006"জি সিনে অ্যাওয়ার্ডস। ২৬ ডিসেম্বর ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৭ 
  9. "Winners of Zee Cine Awards 2006"ফিল্মিবিট। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৭ 
  10. "IIFA Through the Years – IIFA 2006 : Dubai, UAE"আইফা। ১৪ জুলাই ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৭ 
  11. "Star Screen Awards 2006"অ্যাওয়ার্ডস অ্যান্ড শোজ। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৭ 

বহিঃসংযোগ

সম্পাদনা