নোর-বু-দ্পাল-য়ে-শেস

নোর-বু-দ্পাল-য়ে-শেস (ওয়াইলি: Nor bu dpal ye shes) বা মণিকশ্রীজ্ঞান (১২৮৯-১৩৬৩) তিব্বতী বৌদ্ধধর্মের জো-নাং ধর্মসম্প্রদায়ের প্রতিষ্ঠাতা দোল-পো-পা-শেস-রাব-র্গ্যাল-ম্ত্শানের চৌদ্দজন প্রধান শিষ্যের একজন ছিলেন যিনি কালচক্র সম্বন্ধে পন্ডিত ছিলেন।

শিক্ষাসম্পাদনা

নোর-বু-দ্পাল-য়ে-শেস ১২৮৯ খ্রিষ্টাব্দে তিব্বতের গ্যের-ফু (ওয়াইলি: gyer phu) নামক স্থানে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি গ্সাং-ফু (ওয়াইলি: gsang phu) বৌদ্ধবিহারে দীক্ষা নেন। মধ্য তিব্বতের বিভিন্ন বৌদ্ধবিহারে শিক্ষাগ্রহণ করে তিনি সা-স্ক্যা বৌদ্ধবিহারে 'জাম-দ্ব্যাংস-ছোস-ক্যি-র্গ্যাল-ম্ত্শান (ওয়াইলি: 'jam dbyangs chos kyi rgyal mtshan) নামক বৌদ্ধভিক্ষুর নিকট অভিধর্ম সম্বন্ধে শিক্ষাগ্রহণ করেন। এরপর তিনি ব্রাগ-রাম (ওয়াইলি: brag ram) বৌদ্ধবিহারে দ্কোন-ম্ছোগ-ব্জাং-পো (ওয়াইলি: dkon mchog bzang po) নামক বৌদ্ধভিক্ষুর নিকট ভিক্ষুর শপথ গ্রহণ করেন। ঝ্বা-লু (ওয়াইলি: zhwa lu) বৌদ্ধবিহারে বু-স্তোন-রিন-ছেন-গ্রুব নামক বিখ্যাত পন্ডিতের নিকট সংস্কৃত ব্যাকরণ ও কাব্য সম্বন্ধে শিক্ষাগ্রহণ করেন। এরপর তিনি 'ব্রি-কুং বৌদ্ধবিহারে ভারতীয় পন্ডিত দ্বস্তনকরের নিকট ভারতীয় ভাষা, সংস্কৃত ব্যাকরণ এবং ভারতীয় ধর্মশাস্ত্রগু এবং বতিকর নামক ভারতীয় পন্ডিতের নিকট পূর্ব ও পশ্চিম ভারতের কথ্য ভাষাগুলি সম্বন্ধে অধ্যয়ন করেন। এই বৌদ্ধবিহারের তৎকালীন প্রধান তাকে মহামুদ্রা, নারোপার ছয় যোগনিগুমার ছয় যোগ সম্বন্ধে শিক্ষাদান করেন। পাঁচ বছর এই বিহারে অধ্যয়নের পর তিনি স্ন্যে-থাং (ওয়াইলি: snye thang) বৌদ্ধবিহারে জো-নাং ধর্মসম্প্রদায়ের প্রতিষ্ঠাতা দোল-পো-পা-শেস-রাব-র্গ্যাল-ম্ত্শানের নিকট কালচক্রবিমলপ্রভা টীকাভাষ্য সম্বন্ধে অধ্যয়ন করেন।[১]

পরবর্তী জীবনসম্পাদনা

দোল-পো-পা-শেস-রাব-র্গ্যাল-ম্ত্শানের মৃত্যুর পর তিনি ব্রাগ-দ্কার-ছোস-স্তেং (ওয়াইলি: brag dkar chos steng) বৌদ্ধবিহারে সাধনা ও বিমলপ্রভা সম্বন্ধে শিক্ষাদানে লিপ্ত থাকেন। জো-নাং বৌদ্ধবিহারে সাত বছর তিনি প্রধানের পদে অধিষ্ঠিত থাকেন এবং বাহাত্তর বছর বয়সে তিনি ম্খা'-ল্দিং-ফুং-পো (ওয়াইলি: mkha' lding phung po) বৌদ্ধবিহারে পরবর্তী দুই বছর বিমলপ্রভা সম্বন্ধে শিক্ষাদান করেন

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Stearns, Cyrus (আগস্ট ২০০৮)। "Drigung Lotsāwa Maṇikaśrījñāna"The Treasury of Lives: Biographies of Himalayan Religious Masters। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৪-১১