নিউল্যান্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ড

নিউল্যান্ডস ক্রিকেট মাঠ দক্ষিণ আফ্রিকার কেপ টাউনে অবস্থিত একটি ক্রিকেট মাঠদক্ষিণ আফ্রিকা জাতীয় ক্রিকেট দলের অন্যতম স্টেডিয়াম হিসেবে এর বিশেষ পরিচিতি রয়েছে। ১৮৮৯ সালে সর্বপ্রথম টেস্ট ক্রিকেট এবং ১৯৯২ সালে সর্বপ্রথম একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা অনুষ্ঠিত হয়।[২] মার্চ, ২০১৪ সাল পর্যন্ত ৫১টি টেস্ট ম্যাচসহ ৩৫টি একদিনের আন্তর্জাতিক অনুষ্ঠিত হয়েছে।[৩][৪] এছাড়াও এটি কেপ কোবরাস দলের অনুশীলনের মাঠ হিসেবে ব্যবহৃত হয় যেখানে সানফয়েল সিরিজ, মোমেনটাম ওয়ানডে কাপ এবং র‌্যামস্ল্যাম প্রো২০ প্রতিযোগিতারও আয়োজন করা হয়। এছাড়াও নিউল্যান্ডস স্টেডিয়ামে রাগবি ইউনিয়ন ও ফুটবল খেলার আসর বসে।

সাহারা পার্ক নিউল্যান্ডস
নিউল্যান্ডস
Newlands2.jpg
স্টেডিয়ামের তথ্যাবলী
অবস্থানকেপ টাউন
ধারন ক্ষমতা২২,৫০০[১]
প্রান্ত
ওয়েনবার্গ এন্ড
কেলভিন গ্রোভ এন্ড
আন্তর্জাতিক তথ্যাবলী
প্রথম টেস্ট২৫-২৬ মার্চ ১৮৮৯: দক্ষিণ আফ্রিকা বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট১৪-১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৩: দক্ষিণ আফ্রিকা বনাম পাকিস্তান
প্রথম ওডিআই৭ ডিসেম্বর ১৯৯২: দক্ষিণ আফ্রিকা বনাম ভারত
শেষ ওডিআই২৪ নভেম্বর ২০১৩: দক্ষিণ আফ্রিকা বনাম পাকিস্তান
১ম টি২০ আন্তর্জাতিক১২ সেপ্টেম্বর ২০০৭: অস্ট্রেলিয়া বনাম জিম্বাবুয়ে
শেষ টি২০ আন্তর্জাতিক২২ নভেম্বর ২০১৩: দক্ষিণ আফ্রিকা বনাম পাকিস্তান
ঘরোয়া দলের তথ্য
কেপ কোবরাস (২০০৫-বর্তমান)
৪ জানুয়ারি ২০১৪ অনুযায়ী
উৎস: ক্রিকইনফো

মাঠটির সাথে বাণিজ্যিকভাবে চুক্তিবদ্ধ হওয়ায় তা সাহারা পার্ক নিউল্যান্ডস নামে পরিচিত। কিন্তু, দক্ষিণ আফ্রিকাসহ ক্রিকেট সমর্থকদের কাছে এর ঐতিহাসিক নাম নিউল্যান্ডস নামেই সমধিক পরিচিতি পেয়ে আসছে।

ইতিহাসসম্পাদনা

১৮৪৫ সালে জ্যাকব লেটারস্টেট নামীয় ব্যক্তি তার কন্যা লিডিয়া কোরিনাকে ভিকম্পটে ডি মন্টমর্টের সাথে বিবাহ-বন্ধনে আবদ্ধ হবার সময় উপহার হিসেবে প্রদান করেন। ১৮৮৭ সালে ওয়েস্টার্ন প্রভিন্স ক্রিকেট ক্লাব পঁচিশ বছর মেয়াদে ৫০ পাউন্ডের বিনিময়ে লীজ নেয়। ১৮৮৮ সালে ক্লাবটি চুক্তিতে আবদ্ধ হয় ও অর্থমূল্য ১০০ পাউন্ডে বৃদ্ধি পেয়ে ভাড়া নেয়। ক্লাবের আজীবন সদস্যগণ প্রত্যেকেই ব্যয় নির্বাহের জন্য ২৫ পাউন্ড প্রদান করেন ও প্যাভিলিয়ন নির্মাণে আরও ৩৫০ পাউন্ড দানের মাধ্যমে সংগ্রহ করে।[৫]

২৪ মার্চ, ১৮৮৯ তারিখে প্রথমবারের মতো নিউল্যান্ডসে টেস্ট খেলা অনুষ্ঠিত হয়। ঐ খেলায় ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা দলকে ইনিংস ও ২০২ রানের বৃহৎ ব্যবধানে পরাভূত করেছিল। জানুয়ারি, ২০১৪ সাল পর্যন্ত অনুষ্ঠিত ৫০টি টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকা ১৮ খেলায় জয়লাভ করে। পক্ষান্তরে অন্যান্য টেস্টখেলুড়ে দেশগুলো ২২ খেলায় বিজয়ী হয় ও ১০ খেলা ড্রয়ে পরিণত হয়।

নিউল্যান্ডসকে বিশ্বের অন্যতম সুন্দর ক্রিকেট মাঠ হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

রেকর্ডসমূহসম্পাদনা

ব্যাটসম্যানেরা এ মাঠে ৮৪টি টেস্ট সেঞ্চুরি করতে পেরেছেন। তন্মধ্যে ২০০৬ সালে নিউজিল্যান্ডের স্টিফেন ফ্লেমিংয়ের ৪২৩ বলে করা ২৬২ রান সবচেয়ে বেশি রানের স্বীকৃতি পেয়েছে। এছাড়াও হার্শেল গিবসের ২২৮ ও গ্রেইম পোলকের ২০৯ রান উল্লেখযোগ্য। জ্যাক ক্যালিস সবচেয়ে বেশি নয়টি সেঞ্চুরি করেছেন।[৬]

  • ১৮৮৯ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা-ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে মধ্যে টেস্ট ম্যাচে সব ইনিংস নিয়ে সর্বমোট ৩৮২ রান হয় , যা এই মাঠে সর্বনিম্ন সমষ্টিগত ম্যাচ স্কোর। এটি এই মাঠের প্রথম আন্তর্জাতিক টেস্ট ম্যাচ ছিল। ইংল্যান্ডের ববি অ্যাবল দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১২০ রানের সেঞ্চুরিটি ছিল এ মাঠের সর্বপ্রথম সেঞ্চুরি।
  • ১৮৯৯ সালে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে চতুর্থ ইনিংসে দক্ষিণ আফ্রিকা মাত্র ৩৫ রানে অল আউট হয়ে যায়, যা এই মাঠে সর্বনিম্ন দলগত স্কোর।

এ মাঠে একদিনের আন্তর্জাতিকে প্রথম সেঞ্চুরি করেছেন নিউজিল্যান্ডের রজার টোজ। তিনি দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১০৩ রান করেছিলেন। এছাড়াও, দক্ষিণ আফ্রিকার বাইরে ব্রায়ান লারাসৌরভ গাঙ্গুলী এ কীর্তিগাথা রচনা করেছেন। ২০০১ সালে কেনিয়ার বিপক্ষে নিল ম্যাকেঞ্জি অপরাজিত ১৩১* রান করেছেন ১২১ বলে যা সর্বোচ্চ রান হিসেবে স্বীকৃত। একমাত্র ব্যাটসম্যান হিসেবে হার্সেল গিবস সবেচেয়ে বেশি ২টি সেঞ্চুরি করেছেন।[৭]

টেস্ট ক্রিকেটসম্পাদনা

  • ভারত এই মাঠে মোট ৪টি ম্যাচ খেলেছে। কাকতালীয়ভাবে সব কয়টি ম্যাচ ২রা জানুয়ারি খেলা হয়েছে। সাল যথাক্রমে ১৯৯৩, ১৯৯৭, ২০০৭, ২০১১ । এর মাঝে ২টি ম্যাচ সাউথ আফ্রিকা জয় পায়। ২টি ড্র হয়।
  • ভারতীয়দের পক্ষে শচীন তেন্ডুলকর সর্বোচ্চ ১৬৯ রান করেন। যা এশীয়দের মধ্যেও সর্বোচ্চ। একমাত্র শতরানকারী ভারতীয়ও তিনি।
  • ভারতীয়দের পক্ষে জাভাগাল শ্রীনাথ সর্বোচ্চ ১২টি উইকেট নেন । যা এশীয়দের মধ্যেও সর্বোচ্চ।

ওডিআইসম্পাদনা

  • ১৯৯২ সালে সাউথ আফ্রিকা ও ভারতের মধ্যে এই মাঠের প্রথম একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয়।
  • ২০০৩ সালে সৌরভ গাঙ্গুলী সর্বোচ্চ ১০৭ রান করেন। এই মাঠে একমাত্র শতরানকারী ভারতীয়ও তিনি।
  • ২০১৭ সালে সাউথ আফ্রিকা শ্রীলংকার বিরুদ্ধে ৩৬৭ রান করে, যা এ মাঠের সর্বোচ্চ দলগত স্কোর। ফাফ দু প্লেসিস শ্রীলংকার বিরুদ্ধে ১৮৫ রান করেন যা এই মাঠের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত স্কোর।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Record crowds pour into Newlands" 
  2. "Newlands — Cricinfo profile"Cricinfo। ESPN। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১০ 
  3. "Statsguru: Newlands, Cape Town / Test matches / Match result list"Cricinfo। ESPN। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১০ 
  4. "Statsguru: Newlands, Cape Town / One-Day Internationals matches / Match result list"Cricinfo। ESPN। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১০ 
  5. "History of Newlands"। Supersport। ৩১ আগস্ট ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ জানুয়ারি ২০১৩ 
  6. "Statsguru: Test matches / Batting records / Innings by innings list"Cricinfo। ESPN। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১০ 
  7. "Statsguru: One-Day Internationals / Batting records / Innings by innings list"Cricinfo। ESPN। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১০ 

আরও দেখুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

স্থানাঙ্ক: ৩৩°৫৮′২৫.৩২″ দক্ষিণ ১৮°২৮′৮.১৬″ পূর্ব / ৩৩.৯৭৩৭০০০° দক্ষিণ ১৮.৪৬৮৯৩৩৩° পূর্ব / -33.9737000; 18.4689333