নলিনী দাশ (লেখিকা)

বাঙালি লেখিকা

নলিনী দাশ (জন্ম: ৫ আগস্ট, ১৯১৬) বিংশ শতাব্দীরে মধ্য পর্যায়ের একজন বাঙ্গালী সাহিত্যিক। তিনি সত্যজিৎ রায় সম্পাদিত সন্দেশ শিশুপত্রিকার সম্পাদনার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। তিনি গোয়েন্দা গন্ডালু সিরিজের প্রচুর গল্প লিখেছিলেন যা জনপ্রিয় শিশুসাহিত্য।

নলিনী দাশ
Nalinl Das.jpg
জন্ম৫ আগস্ট, ১৯১৬
জাতীয়তাভারতীয়
পেশালেখক, সম্পাদক
পরিচিতির কারণবিংশ শতাব্দীরে মধ্য পর্যায়ের একজন বাঙ্গালী সাহিত্যিক
উল্লেখযোগ্য কর্ম
সত্যজিৎ রায় সম্পাদিত সন্দেশ শিশুপত্রিকার সম্পাদক
পিতা-মাতা
  • পুণ্যলতা রায়চৌধুরী (মাতা)

জীবন বৃত্তান্তসম্পাদনা

১৯১৬ খ্রিস্টাব্দের ৫ আগস্ট তাঁর জন্ম হয় নলিনী দাশেল। তাঁর পিতা অরুণনাথ চক্রবর্তী এবং মা বাংলা শিশুসাহিত্যের অন্যতম জনক উপেন্দ্র কিশোর রায়চৌধুরীর কন্যা পুণ্যলতা রায় চৌধুরী। কবি জীবনানন্দ দাশের কনিষ্ঠ ভ্রাতা অশোকানন্দ দাশের সঙ্গে ১৯৪৩ খ্রিস্টাব্দে তিনি পরিণয় সূত্রে আবদ্ধ হন। তাঁর মাতৃকূলের শিশু সাহিত্যে এক কিংবদন্তীসম ভূমিকা। বড়মাসি সুখলতা রাও, বড়মামা সুকুমার রায়, মা পুণ্যলতাও লেখালেখি করেছেন, মামাতো ভাই সত্যজিৎ রায়।

শিক্ষা জীবনসম্পাদনা

নলিনী দাশ ১৯৩২ খ্রিস্টাব্দে ব্রাহ্ম বালিকা শিক্ষালয় থেকে ম্যাট্রিকুলেশন পাস করেন। পরবর্তীতে ডায়োপেশন কলেজ থেকে ১৯৩৪ সালে আই.এ স্কটিশচার্চ কলেজ থেকে দর্শনে অনার্স সহ বি.এ. পরীক্ষায় ১ম স্থান অধিকার করে ২টি রৌপ্যপদক, ৮টি স্বর্ণ পদক প্রাপ্তা, জুবিলি স্কলারশিপ ও ঈশান স্কলারশিপ প্রাপ্তা দর্শনশাস্ত্রে ১৯৩৮ সালে ১ম শ্রেণীতে এম.এ উত্তীর্ণ হন।

পেশা জীবনসম্পাদনা

কয়েকমাস ভিক্টোরিয়া ইন্সটিটিউসনের শিক্ষিকা করে নলিনী দাশ পরে বেথুন কলেজের অধ্যাপিকা হিসেবে কাজ করেন। সরকারী বৃত্তি লাভ করে ১৯৪৫-১৯৪৬ সাল পর্যন্ত ইংল্যান্ডে ফ্রোবের ট্রেনিং প্রাপ্ত হন তিনি। পোষ্ট গ্রাজুয়েট্ বেসিক ট্রেনিং কলেজ ১৯৪৯ সালে ও ডেভিড্ হেয়ার ট্রেনিং কলেজের ১৯৫১ সালে সহাধ্যক্ষা, ইন্সটিটিউট্ অফ্ এডুকেশন র্ফউইমেন ১৯৫৪-১৯৬৮ সাল পর্যন্ত অধ্যক্ষা এবং বেথুন কলেজের ১৯৬৮-১৯৭৪ সাল পর্যন্ত অধ্যক্ষা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন নলিনী দাশ। পরে ১৯৭৪ সালে অবসর গ্রহণ করেন।

কর্ম ও স্বীকৃতিসম্পাদনা

বিশিষ্ট শিক্ষাব্রতী হিসাবে রাজ্য পুরস্কার প্রাপ্তা (৫/৯/১৯৭৫)। ‘রাজা রামমোহন রায়’ সম্পর্কে লীলা বক্তৃতাদান (১৯৭৪)। কলিকাতা ও পরে রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় কাউনসিলের সভ্যা, হায়ার এডুকেশন কমিশন, কলেজ সার্ভিস কমিশন ইত্যাদির সঙ্গে যুক্তা। সমাজকল্যাণ ও শিশুকল্যানমূলক বিভিন্ন সংস্থার সঙ্গে যুক্তা। ১৯৬৪ থেকে সন্দেশ পত্রিকার সঙ্গে যুক্তা। যুগ্ম সম্পাদিকাঃ সন্দেশ (লীলা মজুমদার ও সত্যজিৎ রায়ের সঙ্গে), শ্রাবণী (কল্যাণী কার্লেকারের সঙ্গে), টিচার্স কোয়াটার্লি (ঐ)।

প্রকাশনাসম্পাদনা

প্রকাশিত গ্রন্থঃ রা-কা-যে-টে-না-পা (রামকানাই যেন টের না পায়) , উপন্যাস), হাস্য ও রহস্যের গল্প (গল্প সংকলন), বঙ্গম গড়ের রহস্য (উপন্যাস ও ১টি গল্প)। মধ্যরাতের ঘোড় সওয়ার (উপন্যাস), গোয়েন্দা গণ্ডালু।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা