দ্যা আকারমোলেন

দ্যা আকারমোলেন (ওলন্দাজ উচ্চারণ: [də ˈɑkərˌmoːlən]; ইংরেজি: The Field Mill) নেদারল্যান্ডসের জুনডার্টে অবস্থিত ১৭ শতকের একটি বায়ুকল। এটি পূর্বে অবস্থিত একটি বায়ুকলকে প্রতিস্থাপিত করে ১৬০৫ সালের আশেপাশে সময়ে নির্মাণ করা হয়। ১৯৫০ সালে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আগ পর্যন্ত এটি গ্রিস্টমিল হিসেবে ব্যবহৃত হতো। ১৯৬১ সালে স্থানীয় সরকার কলটি কিনে নেন এবং পুনঃস্থাপন করেন। এটি ১৯৭৪ সালে জাতীয় ঐতিহ্যবাহী স্থান হিসেবে তালিকাভুক্ত হয়।

দ্যা আকারমোলেন
De Akkermolen te Zundert schuin van voren gefotografeerd - Zundert - 20361446 - RCE.jpg
কলের সামনের দিকের ছবি, ১৯৬৪
Origin
নামদ্যা আকারমোলেন
ইংরেজি: The Field Mill
অবস্থানআকারমোলেনওয়েগ
জুনডার্ট, নেদারল্যান্ডস
ভৌগোলিক স্থানাংক৫১°২৮′৪৪″ উত্তর ৪°৪০′০২″ পূর্ব / ৫১.৪৭৮৮৫৩° উত্তর ৪.৬৬৭১৫° পূর্ব / 51.478853; 4.66715
পরিচালকজুনডার্ট মিউনিসিপালিটি
নির্মাণ সালআনু. ১৬০৫
Information
ব্যবহারগ্রিস্টমিল
ধরনউন্মুক্ত ট্রেসেল, বায়ুকল
পাখার সংখ্যাচার
পাখার ধরনসাধারণ পাখা
Windshaftকাঠ
Windingমেরু
ভিত্তিপ্রস্তর জোড়ের সংখ্যাএক
ভিত্তিপ্রস্তরের আকার১.৫০ মিটার (৪ ফু ১১ ইঞ্চি)
অন্যান্য তথ্যর‍্যাক্সমনুমেন্ট (৪১১১৩)

ইতিহাসসম্পাদনা

 
১৮০৪ সালের খোদাই

বর্তমানে অবস্থিত কলের স্থানে পূর্বে আরেকটি বায়ুকল স্থাপিত ছিল। এটি ১৫৫৭ সালে দ্যা মিল ইন দ্যা সানডাচ ফিল্ড (de molen in de Sundertsche Akker) নামে পরিচিত ছিল। পূর্বের এই কলটি পার্শ্ববর্তী একটি ওয়াটারমিল দ্যা পোয়েরমোলেনকে প্রতিস্থাপনের পর্যায়ে ছিল। ১৪৩৮ সালে এই ঘটনাটির উল্লেখ পাওয়া যায়।[১] ১৫৮৪ সালে স্পেনীয় বাহিনী পূর্বের এই কলটিকে ধ্বংস করে এবং নতুন আরেকটি ভবন গড়ে তুলতে কয়েক বছর লেগে যায়। বর্তমান বায়ুকল্টি প্রথম ১৬০৫ সালে উল্লেখিত হয়।[১]

এই কলটির মালিক ছিলেন বার্গ অপ জুম এর মারগ্রেভ এবং এটি ছিল ব্যানমোলেন (nl), যার মানে হল ঐ এলাকার বাসিন্দারা তাদের গম ভানার জন্য এই কলটি ব্যবহার করতে বাধ্য ছিল।[১][২] ১৭৯৪ সালে এটি উইলিয়াম ভি, প্রিন্স অব অরেঞ্জ ও ব্রেডার ব্যারন এর মালিকানায় চলে যায়।[১][২] ব্যানমোলেন ফ্রেঞ্চ বিপ্লবের সময় সাধারণ আইনের মধ্যে থেকে বাদ দেয়া হয়, এর ফলে মানুষ তাদের উৎপাদিত গম তাদের পছন্দমত স্থানে ভানার অধিকার পায়। ১৮৩০ সালে কলটি ব্যক্তিগত সম্পদে পরিণত হয়।[২] ১৯৫০ সালে কাঠের উইন্ডশাফটটি ভেঙে যাওয়ার আগ পর্যন্ত কলটি গ্রিস্টমিল হিসেবে ব্যবহৃত হতো। উইন্ডশাফটটি ভেঙে যাওয়ার ফলে কলের পাখাগুলো মাটিতে ভেঙে পরে এবং কলটির ভবিষ্যৎ অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়ে যায়।[২] ১৯৫৯ সালে জুনডার্ট মিউনিসিপাল সরকার কলটি কিনে নেয় এবং ১৯৬১ সালে এটিকে পুনঃস্থাপন করা হয়।[২] কলটি কার্যকরী থাকা সত্ত্বেও সক্রিয় গ্রিস্টমিল হিসেবে এর ব্যবহার বন্ধ রাখা হয়।[১] ১৯৯১ সালে কলটিকে নতুন করে তৈরি করার সময় আরেক দফায় পুনঃস্থাপন করা হয়।[১]

বর্ণনাসম্পাদনা

 
"Kruisplaat", the junction of the crosstree and double quarterbars.

দ্যা আকারমোলেন একটি খোলা ট্রেসেল হিসেবে নির্মিত হয়। অর্থাৎ কলটির সম্পূর্ণ কাঠামো, যেখানে যন্ত্রপাতিগুলো থাকে, তা একটি খোলা লম্বা স্তম্ভের উপর দণ্ডায়মান থাকে। এর চারপাশে বাতাসের মধ্যে পাখাগুলো ঘুরতে পারে।[২] কলটি পেইন্টেড উড দিয়ে নির্মিত এবং এর কাঠামোতে আংশিকভাবে আলকাতরার আবরণ রয়েছে। এর ছাদ হল বিটুমিনাস ওয়াটারপ্রুফিং। কলটির ২৩.০০ মিটার (৭৫ ফু ৬ ইঞ্চি) ঘূর্ণনক্ষমতা সম্পন্ন চারটি পাখা রয়েছে যেগুলো ৭১ কগের চাকা ঘুরায়। স্টোন নাটটি মেয়েন থেকে এক জোড়া কালেন মাইলস্টোন চালায় ( কালেন হল কোলোন, যেখানে এই মাইলস্টোনগুলো বাজারজাত হতো[৩]), ব্যাস ১৭ হাত অথবা ১.৫০ মিটার (৪ ফু ১১ ইঞ্চি).[১]

কলের ভিতরে মিলের মালিক ও তার সহকারীদের বিভিন্ন খোদাই পাওয়া যায় যা ১৮০৪ সালের। [৪]

কলটি ১১ জুলাই ১৯৭৪ সালে জাতীয় ঐতিহ্যবাহী স্থান এর তালিকায় (নং ৪১১১৩) যুক্ত হয়।.[৫] এটি মাসের প্রথম শনিবার দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত থাকে, অথবা এপয়েন্টমেন্টের মাধ্যমে দর্শন করা যায়।[১][৬]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "De Akkermolen" (Dutch ভাষায়)। Database of Mills। সংগ্রহের তারিখ ১৮ মে ২০১৪ 
  2. "De Akkermolen" (Dutch ভাষায়)। De Hollandsche Molen। ১৮ মে ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৮ মে ২০১৪ 
  3. Osiander, Andreas (২০০৭)। Before the State: Systemic Political Change in the West from the Greeks to the French Revolution। Oxford University Press। পৃষ্ঠা 317। আইএসবিএন 978-0-19-160690-8 
  4. "De Akkermolen" (Dutch ভাষায়)। VVV-Zundert। সংগ্রহের তারিখ ১৮ মে ২০১৪ 
  5. "De Akkermolen" (Dutch ভাষায়)। Dutch monument registration। ১৮ মে ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৮ মে ২০১৪  (Click on "41113" to view)
  6. Chris Kolman; ও অন্যান্য (১৯৯৭)। "De Akkermolen"। Monumenten in Nederland - Noord-Brabant। Rijksdienst voor de Monumentenzorg/ Waanders Uitgevers, Zeist/Zwolle। পৃষ্ঠা 344। 

আরও পড়ুনসম্পাদনা

  • (ওলন্দাজ) A. Delahaye, 'De Akkermolen van Zundert', in: Jaarboek van de Geschied- en Oudheidskundige Kring van Stad en Land van Breda "De Oranjeboom", Deek XIV, Breda, 1961, 1-16
  • (ওলন্দাজ) F. Kools, Acht eeuwen molens in Zundert en Rijsbergen, 1992