দেবী চৌধুরাণী

উপন্যাস

দেবী চৌধুরাণী বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের একটি উপন্যাস। দেবী চৌধূরাণীর মূল নায়িকা হল প্রফুল্ল যে এক সাধারন মেয়ে সে আর তার মা খুবিই গরিব ছিল তারা ভিক্ষা করে সংসার চালাত প্রফুল্ল বাল‍্যকালে খুবিই রুপবতী ও গুনি ছিল সে সব কাজ পারত তার জন্য তার বিবাহ খুব তাড়াতাড়ি হয় জমিদার হরবল্লভ রায়ের একমাএ পুএ ব্রজেসরের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয় কিন্তু কিছুদিন না যেতেই তাকে তার বাড়িতে আবার ফিরে আসতে হয়।কারন তার শ্বশুর সমাজ পতিদের কথায় তাকে তার বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয় ।প্রফুল্ল যখন যৌবনে পা দিল তখন সে আবার তার শ্বশুরবাড়িতে ফিরে আসে এবং সে এসে দেখে যে তার শ্বামী আবার দুটি বিবাহ করেন তাদের নাম সাগর আর নয়ন কিছুদিন পর আবার তার শ্বশুর তাকে আবার তার শ্বশুরালয় থেকে তাড়িয়ে দেয় এরপর ডাকাত সর্দার ভবানি পাঠক তাকে আশ্রয় দেয় এবং সেখানে তার প্রশিক্ষন চলে তার পর একদিন সে দুধ্ষ ডাকাতরানি দেবী চৌধূরাণী হয়ে উঠে। তারপর সেখান থেকেই শুরু হয় তার সংগ্রামের কাহিনি। দিন দিন তার শত্রু সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে থাকে। একদিন তার সাথে দেখা হয় তার সামীর। তার সংগ্রাম মূলত ছিল ইংরেজ শাসনের বিরুদ্ধে।

দেবী চৌধুরাণী
Cover of the book
লেখকবঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়
মূল শিরোনামদেবী চৌধুরানী
দেশভারত
ভাষাবাংলা
ধরনউপন্যাস (জাতীয়তাবাদী)
প্রকাশনার তারিখ
১৮৮৪
মিডিয়া ধরনছাপা