দেবিদ্বার সরকারি রেয়াজ উদ্দিন পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়

দেবিদ্বার সরকারি রেয়াজ উদ্দিন পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয় কুমিল্লা জেলার দেবিদ্বার উপজেলার সদরে অবস্থিত। এই শতবর্ষী বিদ্যালয়টি উপজেলার প্রাচীনতম শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে একটি।[১] এটি দেবিদ্বার পৌরসভার প্রাণকেন্দ্রে, দেবিদ্বার থানা ও পোস্ট অফিস সংলগ্ন এলাকায় অবস্থিত।

দেবিদ্বার সরকারি রেয়াজ উদ্দিন পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়
দেবিদ্বার রেয়াজ উদ্দিন পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়.jpeg
অবস্থান

,
৩৫৩০

তথ্য
নীতিবাক্যজ্ঞানই আলো
প্রতিষ্ঠাকাল১৯১৮ খ্রিস্টাব্দ
প্রতিষ্ঠাতানবাব স্যার কাজী গোলাম মহিউদ্দিন ফারুকী
কর্তৃপক্ষগণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
অধ্যক্ষজাহাঙ্গীর আলম
শ্রেণী৬ষ্ঠ-১০ম
লিঙ্গছেলে-মেয়ে
শিক্ষার্থী সংখ্যা২০০০
ভাষার মাধ্যমবাংলা,ইংরেজি(বর্তমানে এই মাধ্যমে পাঠদান করা হয় না)
ক্যাম্পাসদেবিদ্বার, কুমিল্লা
শিক্ষায়তন৬ একর
ক্যাম্পাসের ধরনপৌর
রঙসাদা-নেভী ব্লু
ক্রীড়াফুটবল, ক্রিকেট, ভলিবল, ব্যাডমিন্টন, হ্যান্ডবল,হাডুডু
Communities servedস্কাউট, বিএনসিসি, রেডক্রিসেন্ট
শিক্ষা বোর্ডকুমিল্লা

বিদ্যালয়টি প্রভাতি ও দিবা-এই দুই শিফটে পাঠদান করে আসছে। এটি একটি উচ্চ বিদ্যালয়; ৬ষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠ্যক্রম চালানো হয়। বর্তমানে বিদ্যালয়টিতে প্রায় ২০০০ শিক্ষার্থী অধ্যয়নরত আছে।

ইতিহাসসম্পাদনা

থাম্ব|ছবিঃ কাজী গোলাম মহিউদ্দিন ফারুকী নওয়াব কাজী গোলাম মহিউদ্দিন ফারুকী ১৯১৮ খ্রিষ্টাব্দে তাঁর পিতা কাজী রেয়াজ উদ্দিন আহমদ ফারুকীর নামে অত্র বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করেন। বিদ্যালয়ের মূল ক্যাম্পাসের পরিমাণ ৬ একর। এছাড়াও এ.বি.এম গোলাম মোস্তফা স্টেডিয়ামটিও বিদ্যালয়ের মালিকাধীন।

প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকে বিদ্যালয়টি একটি বালক বিদ্যালয় হিসেবে যাত্রা শুরু করলেও; প্রতিষ্ঠার ৯১ বছর পর ২০১১ সালে বিদ্যালয়টি এমপিও ভুক্ত হয়ে মডেল বিদ্যালয়ে উন্নীত হলে ছাত্রী ভর্তি করানো শুরু হয়।[২] বর্তমানে বিদ্যালয়টিতে ছাত্র/ছাত্রী উভয়েরই অধ্যয়নের সুযোগ রয়েছে।

২০১৬ সালে সরকারের 'প্রত্যেক উপজেলায় ন্যুনতম একটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় করা' প্রকল্পের আওতাধীন হয়ে এই বিদ্যালয়টির সরকারিকরণ সম্পন্ন হয়।[৩]

বর্তমান অবস্থাসম্পাদনা

পোশাক এবং ভর্তিসম্পাদনা

শিক্ষক/শিক্ষিকাসম্পাদনা

সহশিক্ষা কর্মসূচীসম্পাদনা

বোর্ড পরিক্ষার ফলাফলসম্পাদনা

শতবর্ষ উৎযাপনসম্পাদনা


 
চিত্রঃ শতবর্ষ উৎযাপনের অফিশিয়াল লগো


বিদ্যালয়টি ১৯১৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। ফলে ২০১৮ সালে বিদ্যালয়টির শতবর্ষ পূর্ণ হয়। ৩ মার্চ,২০১৮ সালে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে বিশাল এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিদ্যালয়ের শতবর্ষ উৎযাপন করা যায়।[৪] এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তৎকালীন পরিকল্পনা মন্ত্রী(বর্তমানে অর্থমন্ত্রী) আ হ ম মুস্তফা কামাল। এছাড়াও সাবেক উপমন্ত্রী ফখরুল ইসলাম মুন্সী এবং সাংসদ রাজী মোহাম্মদ ফখরুল উপস্থিত ছিলেন।

পাশাপাশি অত্র বিদ্যালয়ের বর্তমান ছাত্র/ছাত্রীসহ সকল ব্যাচের প্রাক্তনরাও উপস্থিত ছিলেন। এদিন স্কুল প্রাঙ্গন এক মিলনমেলায় পরিণত হয়।

অনুুুষ্ঠানের স্থিরচিত্রঃ

 
চিত্রঃ শতবর্ষ উৎযাপনে ব্যাচ ২০১৭


উল্লেখযোগ্য প্রাক্তন শিক্ষার্থীসম্পাদনা

যে সব খ্যাতনামা ব্যক্তি এই বিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলেন, তাঁদের মধ্যে কয়েকজন হলেনঃ

  • মোজাফফর আহমদ(ন্যাপ);প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ন্যাপ
  • ক্যাপ্টেন সুজাত আলী;বীর মুক্তিযোদ্ধা,সাবেক সংসদ সদস্য(১৯৭০,১৯৭৩)

চিত্রশালাসম্পাদনা

 
ছবি উৎসঃ google map
 
ছবি উৎসঃ google map

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "দেবিদ্বার রেয়াজ উদ্দিন পাইলট উচ্চবিদ্যালয়ের শত বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান আজ"দৈনিক নয়া দিগন্ত। ২০২০-০১-১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-১২ 
  2. shawkat। "দেবিদ্বার রেয়াজ উদ্দিন পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মডেল স্কুলে উন্নীত | comillaweb.com" (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-১৩ 
  3. "দেবিদ্বার রেয়াজ উদ্দিন পাইলট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাত্যহিক সমাবেশের দৃশ্য"old.teachers.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-১২ 
  4. Comilla.tv। "দেবিদ্বারে রেয়াজ উদ্দিন বিদ্যালয়ের শতবর্ষ পূর্তি পালনের প্রস্তুতি"comilla tv (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২০-০১-১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-১৩