দেওয়ান তৈমুর রাজা চৌধুরী

বাংলাদেশী রাজনীতিবিদ

দেওয়ান তৈমুর রাজা চৌধুরী (১৯১৭ - ১৯৯৭) হলেন একজন বাংলাদেশী মরমী গীতকার, রাজনীতিবিদ ও প্রাক্তন সংসদ সদস্য। ১৯৭৯ সালে গঠিত জিয়াউর রহমান মন্ত্রিসভার যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী ছিলেন।

দেওয়ান তৈমুর রাজা চৌধুরী
প্রতিমন্ত্রী যোগাযোগ মন্ত্রণালয়
কাজের মেয়াদ
১৯৭৯ – ১৯৮০
রাষ্ট্রপতিজিয়াউর রহমান
সিলেট-৭ আসনের
জাতীয় সংসদ সদস্য
কাজের মেয়াদ
১৯৭৯ – ১৯৮৪
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম(১৯১৭-১১-০৫)৫ নভেম্বর ১৯১৭
রামপাশা, বিশ্বনাথ, সিলেট ব্রিটিশ ভারত (বর্তমান বাংলাদেশ)
মৃত্যু১৪ ডিসেম্বর ১৯৯৭(1997-12-14) (বয়স ৮০)
নাগরিকত্ব ব্রিটিশ ভারত (১৯৪৭ সাল পর্যন্ত)
 পাকিস্তান (১৯৭১ সালের পূর্বে)
 বাংলাদেশ
জাতীয়তাবাংলাদেশী
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল
বাসস্থানবিশ্বনাথ, সিলেট
প্রাক্তন শিক্ষার্থীমুরারিচাঁদ কলেজ
ধর্মইসলাম

জন্ম ও শিক্ষাসম্পাদনা

তৈমুর রাজা চৌধুরী সিলেট জেলার বিশ্বনাথ থানার ঐতিহ্যবাহী রামপাশা গ্রামে ১৯১৭ সালের ৫ই নভেম্বর রোজ শুক্রবার জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতার নাম দেওয়ান একলিমুর রাজা চৌধুরী এবং মায়ের নাম মেহেরজান বানু । তার পিতামহ জগত বিখ্যাত মরমি কবি দেওয়ান হাছন রাজা চৌধুরী। তার প্রাথমিক শিক্ষা গ্রামের রাজাগঞ্জ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শুরু হয়। সেখানে কিছুদিন অধ্যয়নের পর তাকে ধর্মীয় শিক্ষা দেওয়ার জন্য সিলেট সরকারি আলীয়া মাদ্রাসায় ভর্তি হন। অত্র মাদ্রসায় তিনি বাংলা উর্দু আরবী ও ফার্সি ভাষায় জ্ঞান লাভ করেন। এরপর তিনি সিলেট রসময় উচ্চ বিদ্যালয় ও সিলেট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করেন অতপর তিনি সিলেট ঐতিহ্যবাহী সরকারী মুরারিচাঁদ কলেজে লেখাড়া করেন। কলেজ জীবনের সহপাটীদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিলেন জেনারেল আতাউল গনি ওসমানী, ড. মোহাম্মদ আব্দুর রশীদ ও আমীনুর রশীদ চৌধুরী।[১]

কর্মজীবনসম্পাদনা

দেওয়ান তৈমুর রাজা চৌধুরী কর্মজীবনে প্রথম দিকে তার পিতার আসামের আলিজান কোল মাইন, থিপুরার রূপামুখী, সোনামুখী এবং সিলেটের মৌলভী বাজার চা বাগানের পরিচালনার দায়িত্ব গ্রহণ করেন পরিচালক হিসাবে। তিনি ১৯৪৭ থেকে ১৯৫০ সাল পর্যন্ত তিন বছর অনারারী ম্যাজিস্ট্রেটের দায়িত্ব পালন করেন।[২] ব্রিটিশ শাসনামলে তিনি তিন বছর ঋণ শালিসী বোডের সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন ।

রাজনীতিসম্পাদনা

দেওয়ান তৈমুর রাজা চৌধুরী ছাত্র জীবন থেকেই রাজনীতির সাথে জরিত ছিলেন। তিনি আসাম প্রাদেশিক মুসলিম ছাত্র ফেডারেশনের সম্পাদক ছিলেন।[২] এরপর সিলেট পৌরসভার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ১৯৪৬ গনভোটে আসাম প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন। সে সময় তিনি কিছুদিন আসাম প্রাদেশিক মুসলিম লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৪৭ সালের পর পাকিস্তান প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য লাভ করেন এবং খাজা নাজিম উদ্দীনের মন্ত্রী সভার সংসদীয় সম্পাদক নিযুক্ত হন। তিনি এ দায়িত্ব একনাগারে ৬বছর পালন করেন। তিনি কিছুদিন সিলেট জেলার বেসরকারী জেল পরিদর্শক ছিলেন দেওয়ান তৈমুর রাজা চৌধুরী ১৯৬৫ সালে বিশ্বনাথ, জগন্নাতপুর, নবীগঞ্জ নির্বাচনী এলাকা হতে পূর্ব পাকিস্তান প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৭৯ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বি এন পির ধানের শীষের প্রাথী হয়ে সিলেট-৭ আসনের (দক্ষিণ সুরমা-বিশ্বনাথ) নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলে তিনি জিয়াউর রহমানের মন্ত্রী সভার যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন।[২]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. আলী, মোহাম্মদ ইলিয়াস (২০০৪)। বিশ্বনাথের ইতিহাস ও ঐতিহ্য (প্রথম সংস্করণ)। ঢাকা। 
  2. ইসলাম, সিরাজুল; মিয়া, সাজাহান; খানম, মাহফুজা; আহমেদ, সাব্বীর, সম্পাদকগণ (২০১২)। "বাংলাদেশ"বাংলাপিডিয়া: বাংলাদেশের জাতীয় বিশ্বকোষ (২য় সংস্করণ)। ঢাকা, বাংলাদেশ: বাংলাপিডিয়া ট্রাস্ট, বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটিআইএসবিএন 9843205901ওএল 30677644Mওসিএলসি 883871743 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা