দুই পয়সার আলতা

বাংলাদেশী চলচিত্র

দুই পয়সার আলতা ১৯৮২ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত বাংলাদেশী বাংলা ভাষার চলচ্চিত্র। ছায়াছবিটি পরিচালনা করেছেন বিখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক আমজাদ হোসেন[১] এতে শ্রেষ্ঠাংশে অভিনয় করেছেন শাবানা[২], রাজ্জাক, নূতন, আনোয়ারা, প্রবীর মিত্র প্রমুখ। ছায়াছবিটি ৪টি বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পায়। চলচ্চিত্রটির দুইটি কপি এখনো বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভে জমা আছে।[৩]

দুই পয়সার আলতা
দুই পয়সার আলতা.jpg
পরিচালকআমজাদ হোসেন
প্রযোজকইফতেখারুল আলম কিসলু
চিত্রনাট্যকারআমজাদ হোসেন
কাহিনিকারআমজাদ হোসেন
শ্রেষ্ঠাংশেশাবানা
রাজ্জাক
নূতন
আনোয়ারা
সুরকারআলাউদ্দিন আলী
চিত্রগ্রাহকরফিকুল বারী চৌধুরী
সম্পাদকআওকাত হোসেন
শরফুদ্দিন ভুঁইয়া
পরিবেশকস্টার কর্পোরেশন
মুক্তি১৯৮২
দৈর্ঘ্য১২৮ মিনিট
দেশবাংলাদেশ
ভাষাবাংলা ভাষা

কাহিনী সংক্ষেপসম্পাদনা

কুসুমের মা তার বাল্যকালে মারা যায় এবং তার বাবাও তার জন্য কিছুই না রেখে মারা যায়। তার চাচার পরিবারে সে অনাকাঙ্ক্ষিত হয়ে পরে। গ্রামেরই এক যুবক কাজল তাকে পছন্দ করে। কুসুমও তাকে পছন্দ করে। কুসুমের চাচা তার বিয়ে ঠিক করলেও যৌতুকের টাকা দিতে না পারায় বিয়ে ভেঙ্গে যায়। এতে কুসুম বাড়ি ছেড়ে চলে যায়। অন্যদিকে, কাজলের বাবা চায় ঝর্নার সাথে কাজলের বিয়ে দিতে। বাবার পীড়াপীড়িতে কাজল ঝর্ণাকে বিয়ে করতে রাজী হয়। বিয়ের দিন যৌতুকের টাকা না দিতে পারলে সে ঝর্ণাকে বিয়ে করবে না বলে জানালে লাল চাচী কিছু দিন পর বাকি টাকা দেওয়ার কথা বলে। কাজল তখন একই ব্যাপারে কুসুমের সময় তারা কেন চুপ ছিল জানতে চায়। এ সময় অসুস্থ কুসুমকে গুনাই খুঁজে নিয়ে আসলে তাকে বিনা যৌতুকে বিয়ে করার প্রস্তাব দেয়।

শ্রেষ্ঠাংশেসম্পাদনা

সঙ্গীতসম্পাদনা

দুই পয়সার আলতা চলচ্চিত্রে সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন আলাউদ্দিন আলী। গানের কথা লিখেছেন আমজাদ হোসেন, নজরুল ইসলাম বাবু, ও আলাউদ্দিন আলী। গানে কণ্ঠ দিয়েছেন সৈয়দ আব্দুল হাদী, সাবিনা ইয়াসমিন, মিতালী মুখার্জি, খুরশিদ আলম, ও রুনা লায়লা। মিতালী মুখার্জির অনুরোধে আলাউদ্দিন আলী "এই দুনিয়া এখন তো আর সেই দুনিয়া নাই" গানটি লিখেন এবং রেকর্ড করেন। গানটি বাংলাদেশ টেলিভিশনে প্রচারের পর জনপ্রিয় হয়। পরিচালক আমজাদ হোসেন এই ছায়াছবির একটা দৃশ্যের সাথে এই গানটি মিলে যাওয়ায় এই গানটি ব্যবহার করতে চান। আলাউদ্দিন আলী তাকে সম্মতি দেন। এছাড়াও সৈয়দ আব্দুল হাদীর কণ্ঠে "এমনতো প্রেম হয়" গানটি বেশ জনপ্রিয় হয়।[৪] মিতালী মুখার্জি "এই দুনিয়া এখন তো আর সেই দুনিয়া নাই" গানটির জন্য ১৯৮২ সালে শ্রেষ্ঠ নারী কণ্ঠশিল্পী হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান।[৫]

গানের তালিকাসম্পাদনা

নং গানের শিরোনাম কণ্ঠশিল্পী পর্দায় শিল্পী
এই দুনিয়া এখন তো আর মিতালী মুখার্জি শাবানা
আমি হব পর রুনা লায়লা শাবানা ও নূতন
এত বেশি বলিস না রুনা লায়লা শাবানা ও নূতন
কি বা জাদু জানো খুরশিদ আলম শাবানা
এমনতো প্রেম হয় সৈয়দ আব্দুল হাদী রাজ্জাক

পুরস্কারসম্পাদনা

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. ফজলে এলাহী (২৭ মে ২০১৫)। "বাংলা চলচ্চিত্রের 'সিংহপুরুষ' একজন আমজাদ হোসেন"কারু নিউজ। ঢাকা, বাংলাদেশ। ২৫ নভেম্বর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৭ মার্চ ২০১৬ 
  2. "জনপ্রিয় অভিনেত্রী শাবানাকে আর দেখা যাবেনা টিভি পর্দায়ও"নিউজ সময়। ঢাকা, বাংলাদেশ। সংগ্রহের তারিখ ৭ মার্চ ২০১৬ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  3. "সংরক্ষিত পূর্ণদৈর্ঘ্য বাংলা ছায়াছবির (প্রিন্ট) তালিকা"। ঢাকা, বাংলাদেশ: বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভ। ২০ ডিসেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৭ মার্চ ২০১৬ 
  4. নিশীথ সূর্য (৮ জুন ২০১৫)। "আমার মতো ভাগ্যবান সুরকার কম : আলাউদ্দিন আলী"এনটিভি অনলাইন। ঢাকা, বাংলাদেশ। সংগ্রহের তারিখ ৭ মার্চ ২০১৬ 
  5. "আত্মার কাছাকাছি দুই দেশকেই অনেক ভালোবাসি :মিতালী মুখার্জী"আনন্দ আলো। ঢাকা, বাংলাদেশ। সংগ্রহের তারিখ ৭ মার্চ ২০১৬ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা