দারসে নিজামি (উর্দু: درسِ نظامی‎‎) হল সেলজুক সাম্রাজ্যের উজির নিজামুল মুলক কর্তৃক প্রণিত শিক্ষা পাঠ্যক্রম। ১০৬৫ সালে বাগদাদের নিজামিয়া মাদ্রাসায় প্রথম এই পাঠ্যক্রম চালু হয়।[১] নিজামুল মুলক আল-গাজ্জালিকে নিজামিয়া মাদ্রাসার অধ্যাপক হিসেবে নিযুক্ত করেছিলেন। এসময় গাজ্জালির বয়স ছিল ৩৩ বছর।

এ মাদ্রাসায় বিনামূল্যে শিক্ষাদান করা হত। এটিকে মধ্য যুগের সবচেয়ে বৃহৎ বিশ্ববিদ্যালয় ধরা হয়। বার্বার আলমোহাদ রাজবংশের প্রতিষ্ঠাতা ইবনে তুমারত এই মাদ্রাসায় ইমাম গাজ্জালির অধীনে শিক্ষালাভ করেন বলে মত রয়েছে। নিজামুল মুলকের জামাতা মুগাতিল ইবনে বাকরিকে এখানে নিযুক্ত করা হয়েছিল। ১০৯৬ সালে ইমাম গাজ্জালি নিজামিয়া মাদ্রাসা ত্যাগ করেন। এসময় এখানে ৩০০০ ছাত্র ছিল। ১১১৬ সালে মুহাম্মদ আল শাহরাস্তানি নিজামিয়া মাদ্রাসায় শিক্ষকতা করেন। ১১৭০ এর দশকে বাহাউদ্দিন মসুলে শিক্ষাদানের উদ্দেশ্যে যাওয়ার পূর্ব পর্যন্ত এখানে শিক্ষাদান করেছিলেন।[২]

বিষয়সম্পাদনা

দরসে নিজামী সিলেবাসভুুক্ত বিষয়গুলো হচ্ছে তাফসির (কুরআনের অনুচ্ছেদ), হিফজ (কোরআন মুখস্থ), সারফ এবং নাহু (আরবি বাক্য গঠন এবং ব্যাকরণ ), ফারসি, উর্দু, তারিখ (ইসলামিক ইতিহাস), ফিকহ (ইসলামিক আইনশাসন) এবং শরীয়াহ (ইসলামিক আইন) ইত্যাদি।

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ১৭ এপ্রিল ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জুলাই ২০১৪ 
  2. Zaman, Muhammad Qasim (জানুয়ারি ২০১৪)। "Religious Education and the Rhetoric of Reform: The Madrasa in British India and Pakistan"। Comparative Studies in Society and History41 (2): 294–323। 

আরও পড়ুনসম্পাদনা