মধ্যপ্রাচ্য

(দক্ষিণ-পশ্চিম এশিয়া থেকে পুনর্নির্দেশিত)

মধ্যপ্রাচ্য পশ্চিম এশিয়া এবং মিশরের (বেশিরভাগ উত্তর আফ্রিকায়) বিশাল সংখ্যাগরিষ্ঠ বিস্তৃত একটি অঞ্চল। বিংশ শতাব্দীর প্রথম দিকে শুরু হওয়া নিকট প্রাচ্য (সুদূর প্রাচ্যের বিপরীতে) শব্দটির প্রতিস্থাপন হিসাবে শব্দটি ব্যাপক ভাবে ব্যবহার করা হয়েছে। "বৃহত্তর মধ্যপ্রাচ্য" (ওরফে মধ্যপ্রাচ্য এবং উত্তর আফ্রিকা বা এমইএনএপি) এর বিস্তৃত ধারণার মধ্যে রয়েছে মাগরেব, সুদান, জিবুতি, সোমালিয়া, কোমোরোস, আফগানিস্তান, পাকিস্তান এবং কখনও কখনও ট্রান্সককেশিয়া এবং মধ্য এশিয়া। "মধ্যপ্রাচ্য" শব্দটি এর পরিবর্তিত সংজ্ঞা নিয়ে কিছুটা বিভ্রান্তির সৃষ্টি করেছে।

Middle East
Middle East
আয়তন৭২,০৭,৫৭৫ কিমি (২৭,৮২,৮৬০ মা)
জনসংখ্যা371 million (2010)[১]
দেশসমূহ
অধীনস্থ অঞ্চলসমূহ
ভাষাসমূহ
সময় অঞ্চলসমূহUTC+02:00, UTC+03:00, UTC+03:30, UTC+04:00, UTC+04:30
বৃহত্তম শহরসমূহLargest cities:

মধ্যপ্রাচ্যের বেশিরভাগ দেশ (১৮ টির মধ্যে ১৩ টি) আরব বিশ্বের অংশ। এই অঞ্চলের সবচেয়ে জনবহুল দেশ মিশর, ইরান এবং তুরস্ক, অন্যদিকে সৌদি আরব এলাকা অনুযায়ী মধ্যপ্রাচ্যের বৃহত্তম দেশ। মধ্যপ্রাচ্যের ইতিহাস প্রাচীন যুগের, এই অঞ্চলের ভূ-রাজনৈতিক গুরুত্ব সহস্রাব্দ ধরে স্বীকৃত।[২][৩][৪] বেশ কয়েকটি প্রধান ধর্মের উৎপত্তি মধ্যপ্রাচ্যে, যার মধ্যে রয়েছে ইহুদি ধর্ম, খ্রীষ্টধর্ম এবং ইসলাম। আরবরা এই অঞ্চলের সংখ্যাগরিষ্ঠ জাতিগোষ্ঠী গঠন করে,[৫] তুর্কি, পারস্য, কুর্দি, আজেরিস, কপ্ট, ইহুদি, আসিরীয়, ইরাকি তুর্কমেন এবং গ্রিক সাইপ্রিয়টরা।

মধ্যপ্রাচ্য হল এশিয়াআফ্রিকার মধ্যবর্তী একটি অঞ্চল। মধ্যপ্রাচ্যের ইতিহাস আদিকাল থেকেই প্রসিদ্ধ ছিল এবং এর ইতিহাস থেকেই এটি সারা বিশ্বের এক আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিনত হয়েছে। ইতিহাসের আদিকাল থেকে এই অঞ্চল নানান কারণে বিখ্যাত ছিল। ধর্মীয় কারণে এই অঞ্চল যুগে যুগে বিখ্যাত ও শ্রদ্ধেয় হয়ে রয়েছে পৃথিবীর বুকে যেমন ইসলাম ধর্ম, খ্রিস্ট ধর্ম ইত্যাদি ধর্মের আবির্ভাব প্রচার ও প্রসার এই অঞ্চলে হয়েছে। সাধারণত মধ্যপ্রাচ্যে শুস্ক ও গরম জলবায়ু বিদ্যমান। এর চারপাশে প্রধান কিছু নদী রয়েছে যা সীমিত এলাকায় কৃষি ব্যবস্থায় সহায়তা করে। মধ্যপ্রাচ্যের অনেক দেশ পারস্য উপসাগর তীরে অবস্থিত এবং প্রচুর অশোধিত পেট্রোলিয়াম জ্বালানী তেল সম্পদে ভরপুর। মধ্যপ্রাচ্য আধুনিক বিশ্বে অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, এবং সাংস্কৃতিক দিক থেকে এক গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চলে বা জনপদে পরিণত হয়েছে।

ইতিহাসসম্পাদনা

মধ্যপ্রাচ্য ইউরেশিয়া, ভূমধ্যসাগর এবং ভারত মহাসাগর'র সঙ্গমস্থলে অবস্থিত। মধ্যপ্রাচ্য বিভিন্ন ধর্মের জন্মভুমি ও আধ্যাত্মিক স্থান হিসেবে বিবেচিত।

বিমান বন্দরসম্পাদনা

 
 
তেহরান ইমাম খোমেনি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (4.2 KM)
মেহরাবাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (4 KM)
 
বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (4 KM)
 
কিং খালিদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (4.2 KM)
 
দুবাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (4.4 KM)
আল মাকতুম আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (4.5 KM)
 
ইসফাহান আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (4.3 KM)
 
আবুধাবি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (4.1 KM)
 
বাহরাইন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (3.9 KM)
বিমানবন্দরগুলোর অবস্থান

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Population 1971–2010 (pdf ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২০১২-০১-০৬ তারিখে p. 89) IEA (OECD/ World Bank) (original population ref OECD/ World Bank e.g. in IEA Key World Energy Statistics 2010 p. 57)
  2. Cairo, Michael F. (২০১২-১০-১৮)। The Gulf: The Bush Presidencies and the Middle East (ইংরেজি ভাষায়)। University Press of Kentucky। পৃষ্ঠা xi। আইএসবিএন 978-0-8131-3672-1 
  3. History of the Office of the Secretary of Defense: The formative years, 1947-1950 (ইংরেজি ভাষায়)। Government Printing Office। পৃষ্ঠা ১৭৭। আইএসবিএন 978-0-16-087640-0 
  4. Kahana, Ephraim; Suwaed, Muhammad (২০০৯-০৪-১৩)। Historical Dictionary of Middle Eastern Intelligence (ইংরেজি ভাষায়)। Scarecrow Press। পৃষ্ঠা ৩১। আইএসবিএন 978-0-8108-6302-6 
  5. Shoup, John A. (২০১১-১০-৩১)। Ethnic Groups of Africa and the Middle East: An Encyclopedia (ইংরেজি ভাষায়)। ABC-CLIO। আইএসবিএন 978-1-59884-362-0 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা