ডিকি রিচার্ডস

দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটার

উইলিয়াম হেনরি ম্যাথুস ডিকি রিচার্ডস (ইংরেজি: Dicky Richards; জন্ম: ২৬ মার্চ, ১৮৬২ - মৃত্যু: ৪ জানুয়ারি, ১৯০৩) কেপ উপনিবেশের গ্রাহামসটাউন এলাকায় জন্মগ্রহণকারী দক্ষিণ আফ্রিকান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৮৮৯ সালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন ডিকি রিচার্ডস

ডিকি রিচার্ডস
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামউইলিয়াম হেনরি ম্যাথুস রিচার্ডস
জন্ম২৬ মার্চ, ১৮৬২
গ্রাহামসটাউন, কেপ উপনিবেশ
মৃত্যু৪ জানুয়ারি, ১৯০৩
ওয়াইনবার্গ, কেপ প্রদেশ
ডাকনামডিকি
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
ভূমিকাব্যাটসম্যান
সম্পর্কযোসেফ রিচার্ডস (ভ্রাতা), আলফ্রেড রিচার্ডস (ভ্রাতা)
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র টেস্ট
(ক্যাপ ১৩)
২৫ মার্চ ১৮৮৯ বনাম ইংল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা
রানের সংখ্যা
ব্যাটিং গড় ২.০০ ২.০০
১০০/৫০ ০/০ ০/০
সর্বোচ্চ রান
বল করেছে - -
উইকেট - -
বোলিং গড় - -
ইনিংসে ৫ উইকেট - -
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং - -
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ০/- ০/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২৬ জুলাই ২০১৯

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটসম্পাদনা

১৮৮৮-৮৯ মৌসুম থেকে ডিকি রিচার্ডসের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। ওয়েস্টার্ন প্রভিন্সের নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যানের মর্যাদা পেয়েছেন ডিকি রিচার্ডস। একমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণই তার একমাত্র প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অংশগ্রহণ ছিল। দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম-শ্রেণীর খেলা প্রচলনের পূর্বে ওয়েস্টার্ন প্রভিন্সের সদস্যরূপে বেশ কয়েকটি প্রাদেশিক খেলায় অংশ নিয়েছিলেন।[১]

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটসম্পাদনা

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে একটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন ডিকি রিচার্ডস। ২৫ মার্চ, ১৮৮৯ তারিখে কেপ টাউনে সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে দক্ষিণ আফ্রিকার ইতিহাসের উদ্বোধনী টেস্টে দলীয় সঙ্গীদের সাথে একযোগে অভিষেক ঘটে তার। এটিই তার একমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ ছিল।[২]

খেলাটি ১৮৮৮-৮৯ মৌসুমে স্যার সি. অব্রে স্মিথের নেতৃত্বাধীন দলের বিপক্ষে দ্বিতীয় খেলার ছিল। ঐ সময়ে দলটি সি. এ. স্মিথ একাদশ হিসেবে পরিচিত ছিল। পরবর্তীকালে এমসিসি দলের পূর্ণাঙ্গ সফরের মর্যাদা লাভ করে।[৩] কেপটাউনের নিউল্যান্ডসে অনুষ্ঠিত খেলায় মন্টি বাউডেন সফরকারী দলের নেতৃত্বে ছিলেন। সাত নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে ও ৪ রান তুলেন। ঐ খেলায় দক্ষিণ আফ্রিকা দলের ইনিংস ৪৭ ও ৪৩ রানে নিজেদেরকে গুটিয়ে ফেললে ইনিংস ও ২০২ রানে পরাভূত হয়। এ খেলাটিই ডিকি রিচার্ডসের একমাত্র প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট খেলা ছিল।

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

৪ জানুয়ারি, ১৯০৩ তারিখে মাত্র ৪০ বছর বয়সে কেপ প্রদেশের ওয়াইনবার্গ এলাকায় ডিকি রিচার্ডসের দেহাবসান ঘটে। রিচার্ডসের দুই ভ্রাতা যোসেফ রিচার্ডস ও আলফ্রেড রিচার্ডস ওয়েস্টার্ন প্রভিন্সের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অংশ নিয়েছেন। তন্মধ্যে আলফ্রেড রিচার্ডস ১৮৯৫-৯৬ মৌসুমে দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে একবার টেস্ট খেলায় অংশগ্রহণ করেছেন।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Other Matches Played by Dicky Richards"। www.cricketarchive.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৪-০৬ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. "Dicky Richards"। www.cricketarchive.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৪-০৬ 
  3. "Scorecard: South Africa v England"। www.cricketarchive.com। ১৮৮৯-০৩-২৫। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৪-০৬ 

আরও দেখুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা