চারটি মৌলিক যৌনাসনের একটি হলো ডগি স্টাইলচামচ যৌনাসন-এর মতো এটিও একটি পশ্চাদগামী সংগম আসন।[১] সর্বাধিক ব্যবহৃত যৌন আসন না হলেও এই আসন পুরুষদের পক্ষে অনুকূল আসন হিসাবে বিবেচিত হয় যেমনটি রিভার্স কাউগার্ল আসন নারীদের জন্য অধিক অনুকূল। [২]

ডগি স্টাইল আসন

কৌশলসম্পাদনা

  1. যৌনসঙ্গী দুই হাত এবং দুই হাঁটুর উপর ভর করে উপুড় হবে। খানিকটা চারপেয়ে প্রাণীর মত।
  2. মুখ্যসঙ্গী পিছনে দুই বা এক হাঁটুর উপর ভর করে দাঁড়াবে।
  3. মুখ্যসঙ্গী এক বা দুই হাতে গৌনসঙ্গীর কোমর জড়িয়ে ধরবে।
  4. এবার পুরুষাঙ্গ যোনির মধ্যে প্রবেশ করবে।
  5. এরপর দুজনই দুজনের সাথে মিল রেখে সামনে পিছনে কোমর দোলাতে শুরু করবে।
  6. পুরুষ বা নারী এক হাতে ভগ্নাংকুর বা ক্লাইটরিসে ঘর্ষণ করুন । এতে সেনসেশন দ্বিগুণ হয়ে যাবে।

সুবিধা ও অসুবিধাসম্পাদনা

আসনটি মেয়েদের জন্যে খুবই উপযুক্ত কারণ এতে মেয়েটি তার ইচ্ছামত সেক্সের সময় নড়াচড়া করতে পারে, পুরুষ লিঙ্গকে তার যোনির ভিতর ইচ্ছামতো নাড়াচাড়া করিয়ে নিতে পারে। যৌনক্রিয়ার বেগও নিজের ইচ্ছামত নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। এর সাথে সাথে পুরুষের সুবিধা হচ্ছে সে ইচ্ছামত খুব সহজে নারীর জি স্প্টে স্পর্শ করতে পারে এবং হাত দিয়ে নারীর ভগাঙ্কুরে ঘর্ষণ করে নারীকে ইচ্ছামতো আনন্দ দিতে পারে। নারী নিজেও নিজের ভগাঙ্কুরে ইচ্ছামতো হাত দিয়ে ঘর্ষণ করতে পারে। এতে নারীর খুব দ্রুত রাগমোচন হতে পারে।

শিল্পকর্মে ডগি স্টাইলসম্পাদনা

ডগি স্টাইল সকল যুগেই সবচেয়ে বেশিবার সংস্কৃতি এবং শিল্পে চিত্রিত হয়েছে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Nilamadhab Kar; Gopal Chandra Kar (২০০৫)। Comprehensive Textbook of Sexual Medicine Jaypee Brothers Publishers। পৃষ্ঠা 110–111। আইএসবিএন 978-8180614057। জুন ২৭, ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৪ 
  2. "The Missionary Position"। Sexual Health Center। ২০০৭-১০-২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০২-০২