ট্রেন্টন, নিউ জার্সি

ট্রেন্টন যুক্তরাষ্ট্রের নিউ জার্সি অঙ্গরাজ্যের রাজধানী ও মার্সার কাউন্টির সদর দপ্তর। [১] ১৭৮৪ সালে এটি যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ছিল। [২] ট্রেন্টন নিউইয়র্ক পরিসংখ্যানগত এলাকার অংশ,[৩] যদিও শহরটি পূর্বে ফিলাডেলফিয়া পরিসংখ্যানগত এলাকার অংশ ছিল। [৪] ২০১০ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী শহরের জনসংখ্যা ছিল ৮৪,৯১৩। [৫] ট্রেন্টন জনসংখ্যায় নিউ জার্সির দশম বৃহত্তম শহর।[৬]

১৭১৯ সালের ৩ জুন একটি দলিলে ট্রেন্টনের জন্য কনস্টেবল নিয়োগের কথা পাওয়া যায়। ট্রেন্টন তখন হান্টারডন কাউন্টির অংশ ছিল। ১৭২০ সালের ৩ মার্চ ট্রেন্টনের সীমানা নির্ধারিত হয়।[৭] ১৭২০ সালে ট্রেন্টনে একটি কারাগার ও আদালত ভবন প্রতিষ্ঠিত হয়। [৮] ১৭৯০ সালের ২৫শে নভেম্বর ট্রেন্টন টাউনশিপ রাজধানী হিসেবে ঘোষিত হয় ও ১৭৯২ সালের ১৩ নভেম্বর ট্রেন্টন নগরী গঠিত হয়। ১৭৯৮ সালের ২১শে ফেব্রুয়ারি নিউ জার্সি বিধানসভা এর অনুমোদন প্রদান করে। ১৮৩৪ সালের ২২শে ফেব্রুয়ারি ট্রেন্টনের কিছু অংশ এউইং শহরে যুক্ত করা হয়। ১৮৩৭ সালের ১০ এপ্রিল বাকি অংশ আনুষ্ঠানিকভাবে ট্রেন্টন নগরী গঠন করে। ১৮৫১ সালের ১৪ এপ্রিল দক্ষিণ ট্রেন্টন, ১৮৫৬ সালের ১৪ এপ্রিল নটিংহ্যাম, ১৮৮৮ সালের ৩০ এপ্রিল চেম্বার্সবুর্গ ও মিলহ্যাম , ১৮৯৮ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি উইলবার ও ১৯০০ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি হ্যামিলটন শহর ট্রেন্টনের সাথে যুক্ত করা হয়।[৭]

ইতিহাসসম্পাদনা

লেনাপে আদিবাসীরা ট্রেন্টনের আদি বাসিন্দা। [৯] ইংল্যান্ডের শেফিল্ড শহরের বাসিন্দা মাহলন স্টেসির নেতৃত্বে কোয়েকার সম্প্রদায়ের মানুষরা ১৬৭৯ সালে ট্রেন্টনে বসতি স্থাপন করেন। তারাই এখানকার প্রথম ইউরোপীয় বাসিন্দা। সেসময় ইংল্যান্ডে তাদের উপর দুঃসহ অত্যাচার করা হচ্ছিল।তাই তারা পালিয়ে উত্তর আমেরিকায় চলে আসে। [১০]

উইলিয়াম ট্রেন্ট মাহলন স্টেসির পরিবারের কাছ থেকে অনেক জায়গা-জমি ক্রয় করেন। তাঁর নামানুসারে ১৭১৯ সালে জায়গাটির নাম হয় ট্রেন্ট-টাউনে। ট্রেন্ট-টাউনে-ই হলো আজকের ট্রেন্টন। [১১]

আমেরিকার স্বাধীনতাযুদ্ধে জর্জ ওয়াশিংটন প্রথম যে লড়াইয়ে বিজয় অর্জন করেন, সেটি ট্রেন্টনেই সংঘটিত হয়েছিল। ১৭৭৬ সালের ২৫-২৬ ডিসেম্বর সংঘটিত যুদ্ধে ওয়াশিংটনের বাহিনী হেসিয়ারদের (ব্রিটিশ সেনাবাহিনীতে কর্মরত জার্মান সৈন্য) পরাজিত করেন। [১২] নিউ ইংল্যান্ড ও উত্তরাঞ্চলীয় রাজ্যের অনেকেই ট্রেন্টনকে রাজধানী করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু দক্ষিণের নেতারা ম্যাসন-ডিক্সন রেখার দক্ষিণে রাজধানী প্রতিষ্ঠা করতে চেয়েছিলেন। তাদের আকাঙ্ক্ষাই পূর্ণ হয় এবং ওয়াশিংটন ডিসি রাজধানী হয়। [১৩] ১৭৮৯ সালের ২১শে এপ্রিল জর্জ ওয়াশিংটন রাষ্ট্রপতির শপথ নিতে নিউইয়র্ক যাবার সময় ট্রেন্টন তার জন্য অভ্যর্থনার আয়োজন করে। [১৪]

১৭৯০ সালে নিউ জার্সি রাজধানী হলেও বিধানসভার সদস্যরা এখানে প্রায়ই মিলিত হতেন। [১৫] ১৭৯২ সালে একে স্থানীয় শাসনের আওতাভুক্ত করা হয়।

১৮১২ সালের ব্রিটিশ-আমেরিকান যুদ্ধের সময় আমেরিকান সেনাবাহিনী ব্রড স্ট্রিটে একটি হাসপাতাল গড়ে তুলে। [১৬]

ঊনবিংশ শতকে ট্রেন্টন শহরে মৃৎশিল্প ও তারশিল্পের প্রসার ঘটে। ইউরোপীয় অভিবাসীরা বিপুল সংখ্যায় এখানে কাজ করতে আগমন করেন। যার দরুন ১৮৩৭ সালে এখানে মেয়র-শাসিত সরকারব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করা হয়। [১৭]

১৯৪৮ সালের জানুয়ারিতে এক শ্বেতাঙ্গ ব্যক্তিকে সোডা বোতলের আঘাতে হত্যা করার অভিযোগে ছয়জন কৃষ্ণাঙ্গকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের জন্য আইনজীবীর ব্যবস্থা করা হয়নি। একসময় তাদের মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। কমিউনিস্ট পার্টি ও ন্যাশনাল অ্যসোসিয়েশন ফর ইনভেস্টমেন্ট অব কালারড পিপল এর সহযোগিতায় তারা মুক্তি পান। ইতিহাসে তারা ট্রেন্টন সিক্স নামে পরিচিত।

১৯৬৮ সালে টেনেসির মেম্ফিসে মার্টিন লুথার কিং-কে হত্যা করা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে ট্রেন্টনে তীব্র দাঙ্গা হয়। ২০০টি দোকান লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। ৩০০ জন কৃষ্ণাঙ্গ আমেরিকানকে গ্রেপ্তার করা হয়। ১৬ জন পুলিশ কর্মকর্তা ও ১৫ জন অগ্নিনির্বাপক কর্মী গ্রেপ্তার হন। প্রথমে হিসাব করে দেখা যায়, মোট ৭০,০০,০০০ ডলারের ক্ষতি হয়। কিন্তু বীমা কোম্পানিগুলো মোট ২৫,০০,০০০ ডলার ক্ষতিপূরণ প্রদান করে। [১৮]

ট্রেন্টনের ব্যাটল মনুমেন্ট এলাকা সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। সত্তরের দশকে এটি যুক্তরাষ্ট্রেরর অন্যতম অনিরাপদ শহরে পরিণত হয়। [১৯]

ভূগোলসম্পাদনা

ট্রেন্টনের আয়তন ২১.২৫ বর্গমাইল। এর ৭.৫৮ বর্গমাইল স্থল ও ০.৬৩ বর্গমাইল জল।

ডেলাওয়্যার নদীর উপর অবস্থিত কতকগুলো সেতুর মাধ্যমে ট্রেন্টন ও পেনসিলভানিয়ার মরিসভিল শহর সংযুক্ত। [২০] এগুলোর মধ্যে রয়েছে ট্রেন্টন-মরিসভিল টোলসেতু, লোয়ার ট্রেন্টন সেতু ও ক্যালহাউন সড়কসেতু।

ট্রেন্টনের ৫ মাইল দক্ষিণ-পূর্বে নিউ জার্সির ভৌগোলিক কেন্দ্র অবস্থিত। কেউ কেউ একে উত্তর নিউ জার্সি ও কেউ কেউ একে দক্ষিণ নিউ জার্সির অংশ হিসাবে বিবেচনা করেন।

জলবায়ুসম্পাদনা

নিউ জার্সির জলবায়ু অনেকটা ক্রান্তীয় আর্দ্র ধরনের। উপকূলের নিকটবর্তী অবস্থান ও সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে নিম্ন উচ্চতা এর প্রধান কারণ। [২১]

শীতকাল সাধারণত ঠাণ্ডা ও স্যাঁতস্যাঁতে হয়। অনেক সময় তাপমাত্রা হিমাঙ্কের নিচে চলে যায়। ১৬-১৭ দিন এরূপ টানা ঘটতে পারে।

গ্রীষ্মকাল অত্যন্ত উষ্ণ ও আর্দ্র হয়। জুলাই মাসে গড় তাপমাত্রা হয় ৭৫.৭ ডিগ্রি ফারেনহাইট।

প্রতিবছর গড় বৃষ্টিপাত হয় ৪৮.৩৪ ইঞ্চি। ১৯৯৬ সাল সবচেয়ে আর্দ্র ও ১৯৫৭ সাল সবচেয়ে শুষ্ক বছর ছিল। [২২]

সাধারণত প্রতি বছর ২৪-৩০ ইঞ্চি তুষারপাত হয়। ফেব্রুয়ারি হলো সবচেয়ে তুষারাচ্ছন্ন মাস।

জনমিতিসম্পাদনা

২০১০ এর আদমশুমারি অনুযায়ী শহরে ৮৪,৯১৩ জন বাসিন্দা ও ১৭,৭৪৮টি পরিবার ছিল। জনসংখ্যার ঘনত্ব ছিল প্রতি বর্গমাইলে ১১,১০১.৯ জন। বাসিন্দাদের মধ্যে ৫২.০১% কৃষ্ণাঙ্গ আমেরিকান,২৬.৫৬% শ্বেতাঙ্গ,০.৭% আদিবাসী আমেরিকান,১.১৯% এশীয় ও ০.১৩% প্রশান্ত মহাসাগরীয়। জনসংখ্যার ৩৩.৭১% কৃষ্ণাঙ্গ ছিল। [৫]

শহরের পরিবারগুলোর মাথাপিছু আয় ৩৬,৬৮১ মার্কিন ডলার। পুরুষদের মাথাপিছু আয় ২৯,৭২১ ও নারীদের মাথাপিছু আয় ২৬,৯৪৩ মার্কিন ডলার। বাসিন্দাদের গড় আয় ১৪,৬২১ মার্কিন ডলার। ২১.১% জনগণ দারিদ্র্যসীমার নিচে বসবাস করছিল, যাদের মধ্যে ২৬.৬% এর বয়স ১৮ এর নিচে ও ১৯.৫% এর বয়স ৬৫ এর সমান বা বেশি।[২৩]

প্রশাসনসম্পাদনা

ট্রেন্টন চারটি ওয়ার্ডে বিভক্ত। এই চারটি ওয়ার্ড থেকে চারজন ও সমগ্র ট্রেন্টন থেকে তিনজন - মোট সাতজন সিটি কাউন্সিলের সদস্য নির্বাচিত হন। এছাড়াও নগরবাসীর ভোটে একজন মেয়র নির্বাচিত হন। চার বছর মেয়াদে নির্দলীয় ভিত্তিতে তারা দায়িত্ব পালন করেন।[২৪]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. http://www.nj.gov/state/archives/catctytable.html
  2. http://www.trentonian.com/articles/2009/11/06/news/doc4af39f543e060661656184.txt
  3. http://www2.census.gov/geo/maps/econ/ec2012/csa/EC2012_330M200US408M.pdf
  4. https://www.bls.gov/bls/omb-bulletin-13-01-revised-delineations-of-metropolitan-statistical-areas.pdf
  5. http://factfinder.census.gov/bkmk/table/1.0/en/DEC/10_DP/DPDP1/0600000US3402174000
  6. http://2010.census.gov/news/xls/st34-final_newjersey.xls
  7. https://www.state.nj.us/dep/njgs/enviroed/oldpubs/bulletin67.pdf#page=160
  8. http://www.co.hunterdon.nj.us/history.htm
  9. http://ellarslie.org/before-there-was-trenton/
  10. http://www.state.nj.us/counties/mercer/about/community/pdfs/os_abbottch4.pdf
  11. https://www.washingtonpost.com/lifestyle/travel/trenton-nj-one-for-the-history-buffs/2011/02/10/AB6YArQ_story.html
  12. https://www.history.com/this-day-in-history/washington-wins-first-major-u-s-victory-at-trenton
  13. http://www.trentonhistory.org/His/post-revolutionary.html
  14. https://archive.org/details/washingtonsrecep00stry
  15. http://www.nj.gov/nj/about/history/short_history.html
  16. http://www.trentonnj.org/Cit-e-Access/webpage.cfm?TID=55&TPID=5612
  17. https://books.google.com/books?id=GiJRZVzkcskC&pg=PA49
  18. https://books.google.com/books?id=G1kVVDSqCT8C&pg=PA283
  19. https://www.huduser.gov/portal/publications/PDF/brahvol2.pdf
  20. https://www.drjtbc.org/bridge-info/
  21. https://www.plantmaps.com/koppen-climate-classification-map-united-states.php
  22. http://www.trentonnj.org/documents/fire%20department/city%20of%20trenton%20hazard%20mitigation%20plan_062808_f!!.pdf
  23. http://censtats.census.gov/data/NJ/1603474000.pdf
  24. https://www.trentonnj.org/477/Overview